জলপাই তেলের আদ্যপান্ত

  

পিএনএস ডেস্ক : ফিটনেস প্রেমিরা প্রায়ই সাধারণ রান্নার তেলের জায়গায় জলপাই তেল ব্যবহার করার পরামর্শ দেন। তবে আপনি কী জানেন আসলে কীভাবে এটি শরীরের উপকার করে? সম্প্রতি একটি ইনস্টাগ্রাম পোস্টে ভারতের সেলিব্রিটি ফিটনেস প্রশিক্ষক ইয়াসমিন করাচিওয়ালা জলপাই তেলের স্বাস্থ্য উপকারিতা সম্পর্কে ব্যাখ্যা করেছেন।

তিনি লিখেছেন, জলপাই তেল একটি যাদুকরী ও বহুমুখি ব্যবহারযোগ্য উপাদান। এটি দেহের পুষ্টি যোগানোর পাশাপাশি ত্বক এবং চুলের উপকারেও ব্যবহার করা হয়। এমনকি এটি আমরা সারাজীবন জুড়ে কোনো না কোনো উপকারী কজে ব্যবহার করি।

তার পোস্টে ইয়াসমিন জলপাই তেলের নিম্নলিখিত সুবিধার কথা উল্লেখ করেছেন:

১. এটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ।
২. এটি এক ধরণের ডায়েটরি স্বাস্থ্যকর চর্বি- মনোস্যাচুরেটেড ফ্যাট সমৃদ্ধ।
৩. এটিতে প্রচুর প্রদাহরোধী উপাদান রয়েছে।
৪. ওজন নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে।
৫. ত্বক ও চুলের উপকার করে।

তিনি বিভিন্ন ধরণের জলপাই তেল সম্পর্কেও লিখেছেন। তিনি লেখেন, জলপাইয়ের তেল তিন ধরণের হয়। এগুলো হল-

১. অতিরিক্ত ভার্জিন জলপাই তেল: এটিতে স্বাদ বা গন্ধের কোনো ত্রুটি নেই। এর নিষ্কাশন প্রক্রিয়াতে কোনো রাসায়নিক বা উচ্চ তাপ ব্যবহৃত হয় না। এটি তেলটির উচ্চতর স্বাদ হিসাবে পরিচিত এবং এটিতে 0.৮ শতাংশের বেশি অ্যাসিডিটি নেই (এটি একটি প্যারামিটার যা তেলের গুণমানকে পরিমাপ করে)। এই তেল সালাদের জন্য ভাল বলেও জানান এই ফিটনেস প্রশিক্ষক।

২. ভার্জিন জলপাইয়ের তেল: "ভার্জিন" শব্দের মাধ্যমে বোঝানো হয় যে জলপাই থেকে তেল বের করতে কেবল মাত্র চাপ দেওয়া হয়েছে, কোনো বাহ্যিক তাপ বা রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহার করা হয় নি এবং তেল খাঁটি। এটিতে দুই শতাংশ অবধি ফ্রি অ্যাসিডিটি রয়েছে। এই তেল ভাজি এবং স্যুট করার জন্য ভাল বলে জানান ইয়াসমিন।

৩. জলপাই তেল: এটি ভার্জিন গ্রেডের সঙ্গে পরিশোধিত জলপাইয়ের তেল মিশ্রণ করে তৈরি করা হয়। এই তেলটি কাঠকয়লা এবং অন্যান্য রাসায়নিক এবং শারীরিক ফিল্টার ব্যবহার করে পরিশোধন করা হয় তবে এতে গ্লিসারিডিক কাঠামো পরিবর্তন করা হয় না। নিত্যদিনের রান্নার জন্য এই তেল সবচেয়ে উপযুক্ত।

সূত্র: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন