লকডাউনে অনলাইনে মিলছে মাদক

  03-08-2021 10:03PM

পিএনএস ডেস্ক : কুমিল্লার হোমনায় কঠোর লকডাউনেও সক্রিয় মাদক সিন্ডিকেট। লকডাউনের মধ্যে অনলাইনের মাধ্যমে মিলছে মাদক। নিজস্ব ম্যাসেঞ্জার ব্যবহার করে অর্ডার দিচ্ছে। আর এ কাজে এলাকাভিত্তিক কিছু নারীদের ব্যবহারের মাধ্যমে তারা ইয়াবার চালান আনা-নেয়া করছে।


এ কাজে ব্যবহার করছে কিছু সিএনজি ও নম্বরবিহীন মোটরবাইক। যারা এলাকায় বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতাদের কর্মী পরিচয় দিয়ে থাকেন। তাদের পুলিশও সন্দেহ করছে না।

জানা গেছে, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে উপজেলার সীমান্তবর্তী কয়েকটি স্পট যেমন- পঞ্চবটি, সাদ্দামবাজার, জয়পুর, বাবরকান্দি, রামকৃষ্ণপুর, ঘনিয়ারচর, আছাদপুর, জয়নগর, ফতেরকান্দি মনিপুর, ভাষানিয়া, ওমরাবাদ, রঘুনাথপুর চন্ডিপুর, নয়াকান্দিতে বৃদ্ধি পাচ্ছে মাদকের আমদানি ও কারবার।

উপজেলা মাসিক আইনশৃঙ্খলা সভায় এ নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হয়েছে। তবে মাদকের ব্যাপারে পুলিশের জিরো টলারেন্স নীতির কারণে কিছু কিছু মাদক ব্যবসায়ী আসছে আইনের আওতায়।

ইতোমধ্যে বেশ কয়েকজন মাদক কারবারিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবু থামছে না মাদক সিন্ডিকেটের দৌরাত্ম। কিছু দিন পূর্বে হোমনা সদরে মাদকের তথ্য পুলিশকে জানিয়ে দেয়ার অভিযোগে স্বপন নামের এক যুবকের হাত-পা ভেঙে দিয়েছে মাদক কারবারিরা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক পুলিশ সোর্স জানান, লকডাউনে মাদকসেবীদের বেশি চাহিদা ইয়াবা ও ফেনসিডিলের। লকডাউনের দোহাই দিয়ে মাদকের দাম বৃদ্ধি করছে মাদক কারবারিরা। তারপরও অনলাইনে অর্ডার দিয়ে ঘরে বসেও মাদক পাচ্ছে তারা। অনেক সময় মাদক আনা নেয়ার কাজে নারীদের ব্যবহার করা হচ্ছে।

হোমনা থানার ওসি আবুল কায়েস আকন্দ জানান, মাদকের ব্যাপারে কোনো ছাড় নেই। কিছু দিন পূর্বে মাদক কারবারি ফারুক সস্ত্রীক ২৫ কেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার হয়েছে। এছাড়া লোকমান, জসিম, আক্তার ও রুবেল নামে ইয়াবা ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান চলছে।

এদিকে গত ২৪ জুলাই লকডাউনের মধ্যে কথিত বাউল শিল্পী স্বপন ও সীমা নামের দুই মাদক বিক্রেতাকে পঞ্চবটির এক বাসা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার কাছে ৩ হাজার ৮০০ পিস ইয়াবা পাওয়া গেছে। ৩০ জুলাই ভাষানিয়া ইউনিয়নের চন্ডিরচর নয়াকান্দি থেকে আধাকেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়েছে। এতে ২ জনের বিরুদ্ধে মাদক মামলা হয়েছে।

হোমনা সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার স্পীনা রানী প্রামাণিক জানান, মাদকের বিষয়ে জিরো টলারেন্স নীতি চলছে। কোনো ছাড় দেয়া হবে না। অভিযান অব্যাহত আছে।-যুগান্তর

পিএনএস/জে এ

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন