গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে সস্ত্রীক মার্কিন মেজর গ্রেফতার

  30-09-2022 02:54PM



পিএনএস ডেস্ক : মার্কিন সামরিক বাহিনীর মেজর পদমর্যাদার চিকিৎসক জেমি লি হেনরি ও তার স্ত্রী আনা গেব্রেলিয়ানের বিরুদ্ধে রুশ সরকারের কাছে তথ্যফাঁস করার অভিযোগ আনা হয়েছে।

অভিযুক্ত ওই চিকিৎসকের স্ত্রীও একজন চিকিৎসক এবং বেসামরিক হাসপাতালে কাজ করেন। তাদের আটক করে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দেশটির কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই।

শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মার্কিন সামরিক বাহিনীর ওই চিকিৎসকের নাম মেজর জেমি লি হেনরি। তিনি মূলত একজন ট্রান্সজেন্ডার। এছাড়া তার স্ত্রীর নাম আনা গ্যাব্রিলিয়ান। চিকিৎসক এই দম্পতির বিরুদ্ধে একটি সামরিক হাসপাতালে রোগীদের সম্পর্কে গোপনীয় তথ্য রাশিয়াকে দেওয়ার পরিকল্পনা করার অভিযোগ রয়েছে।

বিবিসি বলছে, এই দম্পতি যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (এফবিআই) একজন গোপন এজেন্টকে বলেছেন- তারা রাশিয়ার দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়েছেন। অবশ্য অভিযুক্ত এই দম্পতির প্রতিনিধিরা এখনও এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেননি।

এছাড়া রুশ কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকেও এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করা হয়নি।

মেরিল্যান্ডের বাল্টিমোরের একটি আদালতে দাখিল করা অভিযোগে এই দম্পতির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র এবং শনাক্তযোগ্য স্বাস্থ্য তথ্য প্রকাশের অভিযোগ আনা হয়। বৃহস্পতিবার তাদের গ্রেপ্তারের পরই এই তথ্য সামনে আসে।

প্রসিকিউটররা বলছেন, এই দম্পতি ‘মার্কিন সরকার এবং সামরিক বাহিনীর সাথে যুক্ত ব্যক্তিদের চিকিৎসার অবস্থা সম্পর্কে ভেতরের তথ্য পেতে’ রাশিয়ান সরকারকে সাহায্য করতে চেয়েছিলেন।

অভিযোগে বলা হয়েছে, ফোর্ট ব্র্যাগের হাসপাতাল থেকে ব্যক্তিগত মেডিকেল রেকর্ডে প্রবেশাধিকার পাওয়ার জন্য ৩৯ বছর বয়সী মেজর জেমি লি হেনরি তার নিরাপত্তা ছাড়পত্র ব্যবহার করার পরিকল্পনা করেছিলেন। মূলত এই হাসপাতালেই কাজ করতেন তিনি।

অন্যদিকে, ৩৬ বছর বয়সী ডা. আনা গ্যাব্রিলিয়ান বাল্টিমোরের জনস হপকিন্স হাসপাতালে চিকিৎসক হিসেবে কর্মরত ছিলেন বলে মনে করা হয়। ধারণা করা হচ্ছে- তিনি যেখানে কাজ করেছিলেন সেখান থেকে তথ্য পাচারের পরিকল্পনা করার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

এছাড়া ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসনের পর কয়েক মাস আগে তিনি ওয়াশিংটনে রুশ দূতাবাসকে সাহায্যের প্রস্তাব দিয়েছিলেন বলেও অভিযোগ রয়েছে।

তবে গত আগস্টের মাঝামাঝি সময়ে রাশিয়ান দূতাবাসের জন্য কাজ করার দাবি করে একজন ব্যক্তি ডা. আনা গ্যাব্রিলিয়ানের সাথে যোগাযোগ করেন। আসলে বাস্তবে এই ব্যক্তি ছিলেন এফবিআই এজেন্ট।

অভিযোগে বলা হয়েছে, সাক্ষাতের সময় মার্কিন সামরিক বাহিনীর ওই চিকিৎসক এফবিআই এজেন্টকে বলেছিলেন, ‘তিনি রাশিয়ার প্রতি দেশপ্রেমে অনুপ্রাণিত হয়েছেন। এ কারণে রাশিয়াকে তিনি যেকোনো সহায়তা প্রদান করতে প্রস্তুত। এমনকি চাকরি থেকে বরখাস্ত হওয়া বা জেলে যেতে হলেও তিনি রাশিয়াকে সহায়তা করতে প্রস্তুত।’

এছাড়া তার বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে, তিনি তার স্ত্রীকে (সঙ্গী) এই পরিকল্পনায় যুক্ত করার প্রস্তাব দেন এবং এজেন্টকে বলেন, তার চিকিৎসা সংক্রান্ত তথ্যভান্ডারে প্রবেশাধিকার রয়েছে এবং ইউক্রেনে সহায়তা প্রদানের জন্য মার্কিন সামরিক বাহিনীকে কীভাবে প্রশিক্ষণ দিচ্ছে সে সম্পর্কে সঠিক ও গভীর উপলব্ধি রয়েছে তার।

একইদিন পৃথক আরেকটি সাক্ষাতে হেনরি ওই এজেন্টকে বলেন, তিনি রাশিয়ার প্রতি অনুগত এবং স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে রাশিয়ান সেনাবাহিনীতে যোগদানের কথা বিবেচনা করছেন। তিনি স্পষ্ট করেই বলেন, হেলথ ইন্স্যুরেন্স পোর্টেবিলিটি অ্যান্ড অ্যাকাউন্টিবিলিটি অ্যাক্ট (এইচআইপিএএ) লঙ্ঘন করার বিষয়ে তার আপত্তি রয়েছে, যা এই দম্পতির বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে।

কিন্তু ডা. গ্যাব্রিলিয়ানের এমন কোনো উদ্বেগ ছিল না বলেই অভিযোগ রয়েছে এবং আগস্টের পরে কিছু তথ্য তারা হস্তান্তর করেন।

অভিযোগে বলা হয়েছে, এই দম্পতি রাশিয়ানদের সাহায্য করার জন্য তাদের ইচ্ছা এবং গোপন তথ্যে তাদের প্রবেশাধিকারের মাত্রা প্রমাণ করার জন্য মেডিকেল রেকর্ড হস্তান্তর করার পরিকল্পনা করেছিলেন।

দোষী সাব্যস্ত হলে ষড়যন্ত্রের জন্য আসামিদের সর্বোচ্চ পাঁচ বছরের কারাদণ্ড এবং প্রকাশ করা স্বাস্থ্য বিষয়ক প্রতিটি তথ্যের জন্য ১০ বছরের কারাদণ্ডের সম্মুখীন হতে হবে।

বিবিসি বলছে, মার্কিন সামরিক বাহিনীর প্রথম চাকরিরত কর্মকর্তা হিসেবে ট্রান্সজেন্ডার হন মেজর হেনরি। মার্কিন সেনাবাহিনী আনুষ্ঠানিকভাবে তার নাম এবং লিঙ্গ পরিবর্তন করার অনুমতি দেওয়ার পর ২০১৫ সালে আনা গ্যাব্রিলিয়ানকে বিয়ে করেন মেজর জেমি লি হেনরি।

পিএনএস/আলাউদ্দিন

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন