জুয়ার অভিযোগে বিদ্ধ বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাকের দল

  21-06-2024 12:41PM



পিএনএস ডেস্ক: আগামী ৪ই জুলাই বৃটেনের জাতীয় নির্বাচনের তারিখ নিয়ে বাজি ধরতে গিয়ে কেউ যদি অভ্যন্তরীণ তথ্য ব্যবহার করে থাকে তবে তাকে কনজারভেটিভ পার্টি থেকে বহিষ্কার করা হবে বলে সাফ জানিয়ে দিলেন বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক। তিনি বিবিসিকে জানিয়েছেন, কনজারভেটিভ রাজনীতিবিদরা নির্বাচনের তারিখ নিয়ে বাজি ধরেছেন এমন অভিযোগ জানতে পেরে তিনি রাগান্বিত, ক্ষুব্ধ। নিয়ম ভঙ্গের সঙ্গে জড়িত যে কারোর বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জানা গেছে, বৃটেনে নির্বাচন কবে হবে তা নিয়ে জুয়া খেলতেন অভিযুক্তরা। সেই অভিযোগেই গ্রেপ্তার হয়েছেন আধিকারিকরা। কনজারভেটিভ পার্টির প্রার্থী ক্রেগ উইলিয়ামস এবং লরা সন্ডার্সের উপরেও একই কারণে নজরদারি চালাচ্ছে মেট্রোপলিটান পুলিশ। সাধারণ নির্বাচনের দুই সপ্তাহ আগে সুনাকের জন্য এটি একটি অস্বস্তিকর পরিস্থিতি। যার কারণে কনজারভেটিভ পার্টি ভোটের আগে অনেক জরিপে প্রধান বিরোধী লেবার পার্টি থেকে ২০ পয়েন্ট পিছিয়ে রয়েছে।

এর আগে, যুক্তরাজ্যের জুয়া কমিশন নির্বাচনের সময় বাজির জন্য কনজারভেটিভ প্রার্থীদের বিরুদ্ধে তদন্ত করছে। এমন প্রতিবেদন সম্পর্কে জানতে চাইলে আবাসন মন্ত্রী মাইকেল গোভ বিবিসিকে বলেছিলেন যে, কেউ যদি বাজির জন্য ভিতরের তথ্য ব্যবহার করে তবে এটি ‘বড় ভুল’ হবে।

যুক্তরাজ্যের নির্বাচনী আইন অনুযায়ী, প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতা আছে আগের নির্বাচন সংঘটিত হবার পাঁচ বছরের মধ্যে নতুন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করার। সুনাকের দলের অনেক সদস্য বলেছেন যে তিনি খুব শীঘ্রই নিবাচন ঘোষণা করেছেন। কারণ তার কাছে ২০২৫ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত সময় ছিলই।

কমিশনের তদন্ত নিয়ে কনজারভেটিভ পার্টির তরফে জানানো হয়, হাতেগোনা কয়েকজন নেতার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ উঠেছে।

বিশদে কিছু বলা হয়নি দলের তরফে। তবে সুনাকের দলকে তোপ দেগেছেন বিরোধীরা। অনেকেই বলছেন, তড়িঘড়ি নির্বাচন ঘোষণার নেপথ্যে কি জুয়াড়িদের হাত রয়েছে? পিএ নিউজ এজেন্সি এবং বিবিসিসহ বৃটিশ মিডিয়া জানিয়েছে, টোরি প্রার্থী লরা সন্ডার্স, যিনি কনজারভেটিভ পার্টির প্রচারণার পরিচালক টনি লিকে বিয়ে করেছেন, তিনি বাজি ধরার অভিযোগে কমিশন তদন্তের মুখোমুখি হচ্ছেন। যদিও সন্ডার্সের অ্যাটর্নি বলেছেন, তার মক্কেল কমিশনের তদন্তে সহযোগিতা করবেন।

এর পাশাপাশি গত সপ্তাহে সুনাকের সহযোগী ক্রেগ উইলিয়ামস, যিনি সংসদে পুনঃনির্বাচিত হতে চলেছেন, তিনি স্বীকার করেছেন যে তারিখ ঘোষণার আগেই জুলাইয়ের নির্বাচনে ১০০ পাউন্ড বাজি রাখার জন্য জুয়া কমিশন তার তদন্ত করছে। যুক্তরাজ্যে বেটিং বেশ জনপ্রিয়। খেলাধুলা থেকে শুরু করে নির্বাচন পর্যন্ত সব কিছুতেই বুকিরা বাজি ধরে। তবে অভ্যন্তরীণ তথ্যকে কাজে লাগিয়ে প্রতারণা একটি ফৌজদারি অপরাধ।সূত্র : বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড


পিএনএস/আনোয়ার


@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন