নারী সহকর্মীর সঙ্গে হোটেলে ধরা, ডিএসপি থেকে কনস্টেবলে পদাবনতি

  23-06-2024 11:08PM


পিএনএস ডেস্ক: ভারতের উত্তর প্রদেশ পুলিশের ডেপুটি সুপারিনটেনডেন্ট (ডিএসপি) কৃপা শংকর কানৌজিয়াকে কনস্টেবল পদে পদাবনতি দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। একজন নারী কনস্টেবলের সঙ্গে হোটেলে বিব্রতকর অবস্থায় ধরা পড়ার তিন বছর পর তাকে এই শাস্তি দেওয়া হলো।

রোববার (২৩ জুন) এক প্রতিবেদনে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডে জানায়, উত্তর প্রদেশের উন্নাওয়ের বিঘাপুরের সার্কেল অফিসার (সিও) পদে ছিলেন কৃপা শংকর। তাকে পদাবনতি দিয়ে রাজ্যের গোরখপুরের ২৬তম প্রাদেশিক আর্মড কনস্ট্যাবুলারি (পিএসি) ব্যাটালিয়নে নিযুক্ত করা হয়েছে।

প্রতিবেদন মতে, ২০২১ সালের জুলাইয়ে কৃপা শংকর পারিবারিক কারণ দেখিয়ে ছুটি নেন। তবে ছুটি নিয়ে তিনি বাড়ি না গিয়ে ‘নিখোঁজ’ হন। কৃপা শংকরের হঠাৎ ‘নিখোঁজ’ হওয়ায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন তার স্ত্রী। স্বামীর খোঁজ পেতে তিনি উন্নাওয়ের এসপির সঙ্গে যোগাযোগ করেন।


ঘটনার বিবরণে বলা হয়েছে, পুলিশ কর্মকর্তা কৃপা শংকর ছুটি নিয়ে গিয়েছিলেন রাজ্যের কানপুরের একটি হোটেলে। হোটেলে তার সঙ্গে ছিলেন এক নারী কনস্টেবল। হোটেলে ওঠার সময় কৃপা শংকর তার ব্যক্তিগত ও অফিসিয়াল দুটি মোবাইল নম্বরই বন্ধ করে রাখেন। আর তার স্ত্রীর ‘নিখোঁজ’ অভিযোগের বিষয়ে রাজ্য পুলিশের একটি নজরদারি দল উদ্ঘাটন করে, কানপুরের হোটেলটিতে পৌঁছানোর পর কৃপা শংকরের মোবাইল নেটওয়ার্ক বন্ধ হয়ে যায়।

উন্নাওয়ের পুলিশ তার মোবাইল নেটওয়ার্ককে কাজে লাগিয়ে দ্রুত হোটেলটিতে যায়। এরপর তারা হোটেলটিতে কৃপা শংকর ও এক নারী কনস্টেবলকে একসাথে দেখতে পায়। কৃপা শংকর ও নারী কনস্টেবলের হোটেলে প্রবেশের দৃশ্য সিসিটিভি ক্যামেরায়ও ধরা পড়ে।

পরে পুলিশ তদন্ত শেষে সরকারের কাছে প্রতিবেদন দাখিল করে। প্রতিবেদন পর্যালোচনার পর কৃপা শংকরকে কনস্টেবল পদে পদাবনতির সুপারিশ করে সরকার। পুলিশের এডিজি (প্রশাসন) অবিলম্বে এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে একটি আদেশ জারি করেন। ফলে রাজ্যের ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা থেকে কৃপা শংকর এখন কনস্টেবল।


এমএইউ

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন