আত্মসমর্পণ করে জামিন পেলেন নাহিদ সুলতানা যুথি

  12-05-2024 06:44PM

পিএনএস ডেস্ক: সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনকেন্দ্রিক সহিংসতার ঘটনায় শাহবাগ থানায় করা মামলায় জামিন পেয়েছেন স্বতন্ত্র সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী ও যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশের স্ত্রী অ্যাডভোকেট নাহিদ সুলতানা যুথী।

রোববার ঢাকার মেট্রোপলিটন মাহবুব আহমেদ আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন যুথী। শুনানি শেষে আদালত তার জামিন মঞ্জুর করেন।

যুথীর আইনজীবী এহসানুল হক সমাজী জামিনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে গত ২০ মার্চ বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমান ও বিচারপতি এসএম মাসুদ হোসেন দোলনের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ তাকে আট সপ্তাহের আগাম জামিন দেন। জামিনের মেয়াদ শেষ হতে যাওয়ায় এদিন তিনি আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন।

গত ৮ মার্চ রাতে সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির ২০২৪-২৫ সালের নির্বাচনে ভোট গণনাকে কেন্দ্র করে হট্টগোল, হাতাহাতি ও মারামারির ঘটনায় রাজধানীর শাহবাগ থানায় মামলা করা হয়। মামলায় স্বতন্ত্র থেকে সম্পাদক প্রার্থী অ্যাডভোকেট নাহিদ সুলতানা যুথী ও বিএনপির প্যানেলের সম্পাদক প্রার্থী ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজলসহ ২০ জনকে আসামি করা হয়।

সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল সাইফুর রহমান চৌধুরী সাইফ তাকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে বাদী হয়ে এ মামলা করেন।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, মামলার অন্য আসামিরা নাহিদ সুলতানা যুথীর নির্দেশে এবং প্রত্যক্ষ নেতৃত্বে বাকি আসামিরা সুপ্রিমকোর্ট বার সমিতির নিচতলার শহিদ শফিউর রহমান মিলনায়তনের দরজা খুলে অস্ত্র হাতে জোর করে প্রবেশ করেন। এ সময় তারা অকথ্য ভাষায় বাদীসহ নির্বাচন সাব-কমিটির অন্যান্য সদস্যদের গালিগালাজ করে। আসামিদের হাতে থাকা লোহার রড দিয়ে বাদীকে হত্যার উদ্দেশ্যে মাথার মাঝ বরাবর আঘাত করলে বাধা দিতে গিয়ে আহত হন। অন্যান্য আসামিরা কাঠের লাঠি, কাঠের ও প্লাস্টিকের চেয়ার দিয়ে অতর্কিতভাবে মারপিট করে ও পা দিয়ে আঘাত করে বাদীর শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম করে এবং তার পরিহিত কাপড় ছিঁড়ে ফেলে।

এসএস

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন