পরকীয়ার জেরে সামাদকে রড-লাঠির আঘাতে হত্যা

  08-12-2021 04:47PM

পিএনএস ডেস্ক: নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলায় প্রতিবেশীর স্ত্রীর সঙ্গে নিঃসন্তান আব্দুস সামাদের (৬৫) পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে ওঠে। মাস তিনেক আগে আব্দুস সামাদকে বিয়ে করার উদ্দেশ্যে এহিয়ার স্ত্রী তাকে তালাক দেন। পরে সামাজিকভাবে বিষয়টির নিষ্পত্তি করে পুনরায় এহিয়ার সঙ্গে তাকে বিয়ে দেওয়া হয়।

পরকীয়ার ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে এহিয়া আব্দুস সামাদের জমির লিজ মূল্যের ৫০ হাজার টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানান। এ নিয়ে উভয়পক্ষে উত্তেজনায় খুন হন আব্দুস সামাদ।

বুধবার (৮ ডিসেম্বর) ভোরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান। পরকীয়ার জেরে আব্দুস সামাদকে লোহার রড ও লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে হত্যা করা হয় বলে জানান স্থানীয়রা। নিহত আব্দুস সামাদ উপজেলার বনপাড়া পৌরসভার গুনাইহাটি গ্রামের মৃত বাছের প্রামাণিকের ছেলে।

স্থানীয় ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, গুনাইহাটি গ্রামের মৃত মহির উদ্দিনের ছেলে এহিয়া প্রতিবেশী আব্দুস সামাদের জমি লিজ নিয়ে চাষাবাদ করতেন। এ সুযোগে এহিয়ার স্ত্রীর সঙ্গে নিঃসন্তান আব্দুস সামাদের পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে ওঠে। মাস তিনেক আগে আব্দুস সামাদকে বিয়ে করার উদ্দেশ্যে এহিয়ার স্ত্রী তাকে তালাক দেন। পরে সামাজিকভাবে বিষয়টির নিষ্পত্তি করে পুনরায় এহিয়ার সঙ্গে তাকে বিয়ে দেওয়া হয়। পরকীয়ার ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে এহিয়া আব্দুস সামাদের জমির লিজ মূল্যের ৫০ হাজার টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে উভয়পক্ষে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়।

গত সোমবার সকালে আব্দুস সামাদ বাজার করার উদ্দেশ্যে বনপাড়ায় যাচ্ছিলেন। পথে বাড়িসংলগ্ন পুকুরপাড়ে একা পেয়ে এহিয়া ও তার ছেলে জাহাঙ্গীর লাঠি ও লোহার রড দিয়ে তাকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে জখম করে।
পরে খবর পেয়ে স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে বড়াইগ্রাম হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকরা তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য অন্যত্র স্থানান্তরের পরামর্শ দেন।

পরে বুধবার ভোর পৌনে ৪টার দিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্তরা পলাতক রয়েছেন বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে বনপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পরিদর্শক রাশেদুল ইসলাম বিশ্বাস বলেন, নিহতের শরীরের বিভিন্ন স্থানে কালশিরা দাগ রয়েছে। সকালে লাশের ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন।

পিএনএস/আইএইচ

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন