দিনাজপুরে গরমে জনজীবন বিপর্যস্ত

  21-04-2024 07:38PM

পিএনএস ডেস্ক: দিনাজপুরে গরম আর প্রখর রোদে ব্যাহত হচ্ছে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। দুপুরের প্রখর রোদে পায়ে হেঁটে চলা কষ্টকর হয়ে দাড়িয়েছে। তীব্র গরমে খেটে খাওয়া মানুষেরা পড়েছেন চরম ভোগান্তি ও ঝুঁকিতে। কর্মজীবীদের দুর্ভোগও বেশি। তাপমাত্রা ৩৫ থেকে ৩৭ ডিগ্রির মধ্যে ওঠানামা করছে। এরসঙ্গে যোগ হয়েছে প্রত্যন্ত অঞ্চলে লোডশেডিং। ফলে চরম দুর্ভোগে পড়েছে মানুষ। অসহনীয় গরমে বিপর্যস্ত দিনাজপুরের জনজীবন। তবে গরমকে কেন্দ্র করে জেলায় পানীয়, লেবুর শরবত, আখের রস, বেল, তরমুজ, ডাব বিক্রি বেড়েছে। অন্যদিকে এ গরমে দেখা দিয়েছে ডায়রিয়া, পেটের পীড়া, জ্বর-কাশি, নিউমোনিয়া, শ্বাসকষ্ট, পানিশূন্যতা ইত্যাদি। এ পরিস্থিতিতে সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে অসুস্থ, বয়স্ক ও শিশুরা। হাসপাতালে রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। এমন পরিস্থিতিতে প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে বের না হওয়ার পাশাপাশি প্রচুর পরিমাণ বিশুদ্ধ পানি ও তরল খাবার গ্রহণের পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকেরা।

রবিবার দুপুর ৩টায় দিনাজপুরে ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। গরম আর প্রখর রোদে ব্যাহত হচ্ছে স্বাভাবিক জীবন যাত্রা। তীব্র গরমকে আরও অসহনীয় করে তুলছে লোডশেডিং। গরম যেন কমছেই না দিনাজপুরে। অতিরিক্ত তাপপ্রবাহে নাজেহাল হয়ে পড়ছে মানুষ।

গরম থেকে পরিত্রাণ পেতে শহরের বিভিন্ন স্থানে গাছের ছায়ায় রিকশা ও অটোচালকদের বিশ্রাম নিতে দেখা যায়। সদর হাসপাতালে ভাড়া নামিয়ে রিক্সার উপর একটু আরাম করতে দেখা যায় রিক্সাওয়ালা আনোয়ারকে। তিনি জানান, গরমে ভালো লাগছে না, তাই ভাড়া যাওয়া বাদ দিয়ে ছায়ায় বসে বিশ্রাম নিচ্ছি। রোদ আর গরমে কোনোভাবেই টিকে থাকা যাচ্ছে না।

সুস্থ থাকতে চিকিৎসকরা বলছেন, বেশি বেশি বিশুদ্ধ পানি, খাবার স্যালাইনসহ তরল খাবার খেতে হবে। কারণ গরমে শরীর থেকে প্রচুর পরিমাণ পানি বের হয়ে যাচ্ছে। রোদে ছায়ার মধ্যে থাকতে হবে। প্রয়োজনে বের হলে সঙ্গে ছাতা নিতে হবে।

দিনাজপুর আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.তোফাজ্জল হোসেন বলেন, রবিবার দুপুর ৩টায় দিনাজপুরে ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। বাতাসে জলীয় বাষ্পের আদ্রতা ৪৪ শতাংশ এবং বাতাসেন গড় গতিবেগ ৯ কিলোমিটার। এ অবস্থা থাকবে আরও কিছুদিন। বরং তাপমাত্রা বাড়তে পারে। আপাতত দিনাজপুরে বৃষ্টিপাতের কোনো সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে না।

এসএস

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন