টাঙ্গাইলে শাল গজারি গাছ কেটে উজার করা হচ্ছে বন

  22-05-2024 08:45PM

পিএনএস ডেস্ক: টাঙ্গাইলের সখীপুরে প্রাকৃতিক ভাবে গড়ে উঠা শাল গজারি গাছ কেটে উজার হয়ে হচ্ছে বন। বনের জমি ব্যক্তি দখলে নিতে রাতারাতি এই শাল গজারি গাছ কাটছে একটি দুর্বত্তরা।

উপজেলার বড়চওনা ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী চাটারপাড় ও ধলাপাড়া বিটের এলাকায় মোতালেব মাস্টারের চালা থেকে শাল গজারি গাছ কাটছে দুর্বৃত্তরা। স্থানীয় বন প্রহরী ও বিট কর্মকর্তাদের যোগসাজেসেই শাল গজারি গাছ কেটে বন উজার হচ্ছে বলে স্থানীয়দের অভিযোগ।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শাল গজারির বনের ভেতর থেকে বড় গাছ গুলো কেটে নিয়ে গেছে কে-বা কারা। শুধু পড়ে আছে কিছু গাছের গোড়া। কিছু দিন পর সেই গোড়া গুলো তুলে লাকরি হিসেবে বিক্রি করবে। তারপর একটি মহল উজার হওয়া সেই বনের জমি দখলে নিতে ঘর বাড়ি তুলবে বলে জানায় এলাকাবাসী।

বন বিভাগ সূত্রে জানায় যায়, সখীপুরের চারটি রেঞ্জের ১৩ টি বিটের বিভিন্ন এলাকায় প্রায় ১৫ হাজার একর জমিতে শাল-গজারি বন রয়েছে। ঘাটাইল উপজেলার ধলাপাড়া বিটের আওতায় সখীপুরের সীমানায় প্রায় ৩০-৩৫ একর জমিতে শাল গজারির বন রয়েছে। প্রাকৃতিক ভাবে গড়ে উঠা সেই বনায়ন রক্ষায় বন কর্মকর্তারা কাজ করে যাচ্ছে।

চাটারপাড় এলাকার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি জনায়, বনের জমি ব্যক্তি দখলে নিতে প্রথমেই বড় গজারি গাছ গুলো কাটা হয় তারপর ছোট গাছ। না হলে বিট অফিসার মামলা দিয়ে দিবে। গাছ গুলো কাটার কয়েক দিনের মধ্যেই গাছের গোড়া তুলে ফেলা হয় যাতে কেউ কোনও চিহ্ন খুঁজে না পায়।

স্থানীয়রা জানায়, রাতের আঁধারে কে-বা কারা বনের ভেতর থেকে গাছ কেটে নিয়ে যায়। তাদের কোনও হদিস পাওয়া যায় না। এ ভাবে শাল গজারি গাছ কেটে ফেললে একটা সময় এই এলাকা থেকে শাল গজারি বিলুপ্ত হয়ে যাবে।

ধলাপাড়া বিট কর্মকর্তা আ. কদ্দুস মিয়া বলেন, জায়গাটা ধলাপাড়া বিটের সীমানায় পড়েছে কিনা জানা নাই। তবে খোঁজ নিয়ে এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এসএস

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন