দিনাজপুরে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হলো কিশোরী

  13-06-2024 05:10PM

পিএনএস ডেস্ক: প্রেমের ফাঁদে ফেলে দিনাজপুরের বীরগঞ্জে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছে এক কিশোরী। এ ব্যাপারে ৩ জনকে আসামি করে বীরগঞ্জ থানায় বুধবার (১২ জুন) মামলা দায়ের করেছে কিশোরীর বড়বোন। ঘটনার পর কিশোরীর ডাক্তারী পরীক্ষা শেষে আদালতে জবানবন্দি গ্রহণ করা হয়েছে এবং ঘটনার পর থেকে আসামিরা পলাতক রয়েছে বলে পুলিশ জানায়।

মামলার আসামিরা হলেন বীরগঞ্জ উপজেলার সাতোর ইউনিয়নের মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে মো. সবুজ ইসলাম (৩০), একই ইউনিয়নের প্রাণনগর দক্ষিণ রাজবাড়ী গ্রামের মৃত রফিকুল ইসলামের ছেলে রাকিব হোসেন (৩৫) এবং বীরগঞ্জ পৌর শহরের ৪নং ওয়ার্ডের ফুহাব মাষ্টারের ছেলে মো. রিসান আলী (৩২)।

বীরগঞ্জ থানার ওসি মজিবুর রহমান জানান, বীরগঞ্জের বাসিন্দা এক কিশোরীর সাথে দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে মামলার প্রধান আসামি মো. সবুজ ইসলামের। এরপর তারা নিয়মিত বিভিন্ন জায়গায় যায়। এরই ধারাবাহিকতায় গত ১১ জুন দুপুরে মো. সবুজ ইসলাম বীরগঞ্জ পৌর শহরের ২ নং ওয়ার্ডের গোপালগঞ্জ সড়কে তার ভাড়া বাড়িতে কিশোরীটিকে নিয়ে যায়। সেখানে তারা শারীরিক সম্পর্কে মিলিত হয়। পরে মো. সবুজ ইসলাম কিশোরীটিকে ঘরে রেখে পানি নিয়ে আসার কথা বলে কৌশলে বাড়ীর বাইরে চলে যায়। এসময় পাশের রুমে পূর্ব থেকে অবস্থান নেওয়া মো. সবুজ ইসলামের বন্ধু রাকিব হোসেন এবং রিসান আলী কিশোরীটিকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। সবুজ ইসলাম ফিরে এলে কিশোরী ঘটনাটি তাকে জানায়। বিষয়টি দেখবো বলে আশ্বস্ত করে কিশোরীকে

মোটরসাইকেলে করে রাস্তায় নামিয়ে দিয়ে চলে যায় সবুজ ইসলাম। পরে মেয়েটি থানায় এসে মৌখিকভাবে অভিযোগ করে। তার অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযানে নামে পুলিশ। ঘটনার সত্যতা খুঁজে পাওয়ার পর ১২ জুন ৩ জনকে আসামি করে থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করে কিশোরীর বড়বোন। ঘটনার পর থেকে আসামিরা পলাতক রয়েছে। তাদের গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান অব্যাহত রেখেছে বলে তিনি জানান।

এসএস

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন