ব্যাংকের সুুদের হার ৯ শতাংশে নামিয়ে আনার নির্দেশ

  

পিএনএস ডেস্ক :দেশের সকল ব্যাংককে আগামী দুই মাসের মধ্যে সুদের হার একক ঘরে (নয় শতাংশ) নামিয়ে আনার নির্দেশনা দিয়েছে সরকারি প্রতিষ্ঠান সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি।

সংসদ সচিবালয়ের সভাকক্ষে সরকারি প্রতিষ্ঠান সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে সোমবার এ সুপারিশ করা হয়।

কমিটির সভাপতি আ স ম ফিরোজের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটি সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান, নারায়ণ চন্দ চন্দ্র, মো. মাহবুবউল-আলম হানিফ, মির্জা আজম ও মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম অংশ নেন।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি আ স ম ফিরোজ বলেন, ‘বেসরকারি ব্যাংকগুলো বলেছিল, সরকারি টাকার ৫০ ভাগ আমানত জমা পেলে তারা একক ডিজিটে সুদ হার বাস্তবায়ন করতে পারবে। কিন্তু দুঃখের বিষয়, তারা সেই সুবিধা নিলেও এখনো সুদের হার একক সংখ্যায় আনতে পারেনি। এজন্য আমরা বাংলাদেশ ব্যাংককে বলে দিয়েছি, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী আগামী দুই মাসের মধ্যে ব্যাংক ঋণের সুদের হার একক সংখ্যায় আনতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘ব্যাংক ঋণে উচ্চ হারে সুদের কারণে ঋণখেলাপি হয়। ব্যাংকগুলো চক্রবৃদ্ধি হারে সুদ নিয়ে থাকে। ব্যবসায়ীদের পক্ষে সেই সুদের হার মেটানো অসম্ভব হয়ে যায়। কাজেই আমরা নির্দেশনা দিয়েছি, আগামী এক বা দুই মাসের মধ্যে সব ব্যাংককে নয় শতাংশ হারে সুদ নির্ধারণ করতে হবে।’

বৈঠকে বেসরকারি ব্যাংক অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিনিধিদের ডাকা হলেও তাদের কেউ বৈঠকে অংশ নেননি। বৈঠকে আসবেন বলে জানালেও শেষ পর্যন্ত আসেননি তারা। এ নিয়ে কমিটিতে ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

কমিটি বাংলাদেশ ব্যাংক ও তফসিলি ব্যাংকের মাধ্যমে একক সংখ্যায় ব্যাংক ঋণের সুদের হার বাস্তবায়নের জন্য কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়ারও সুপারিশ করেছে।

বৈঠকে বলা হয়, রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংক ও বিশেষায়িত ব্যাংকগুলোর সুদ মওকুফের ক্ষেত্রে সরকারের নীতিমালা জারি করা হয়েছে। নীতিমালার ফলে অনেক রুগ্ন শিল্প প্রতিষ্ঠান, বন্ধ ও অচল মিল কারখানা সুদ মওকুফ সুবিধা পেয়েছে। ফলে ওই সব প্রতিষ্ঠানের অবশিষ্ট অনাদায়ী/শ্রেণিকৃত ঋণ আদায় সহজ হয়েছে।

বৈঠকে বাংলাদেশ বাংকের ডেপুটি গভর্নর, রাষ্ট্রায়ত্ত বিভিন্ন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রধানসহ জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech