ইসলাম

পবিত্র শবে বরাত আজ

  

পিএনএস ডেস্ক: পবিত্র শবে বরাত আজ । হিজরি সালের শাবানের ১৪ তারিখ রাতটি মুসলিম উম্মাহ সৌভাগ্যের রজনী হিসেবে পালন করে। অনেকের মতে, মহিমান্বিত এ রাতে মহান আল্লাহ তাঁর বান্দাদের ভাগ্য নির্ধারণ করেন। মুসলমানরা এ রাতে মহান আল্লাহর রহমত ও নৈকাট্য লাভের আশায় নফল নামাজ, কোরআন তিলাওয়াত, জিকিরসহ বিভিন্ন ইবাদত-বন্দেগির মাধ্যমে অতিবাহিত করেন।অতীতের গুনাহের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা এবং ভবিষ্যৎ জীবনের কল্যাণ কামনা করে মোনাজাত করবেন। প্রতি বছর এ রাত্রিতে ইবাদত-বন্দেগির পাশাপাশি বাড়ি বাড়ি হালুয়া, ফিরনি, রুটিসহ

আল্লাহ চান বান্দা যেন নিজের চেষ্টাটুকু করে

  

পিএনএস ডেস্ক: বিশ্বব্যাপী মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েছে নভেল-১৯ করোনাভাইরাস। এ ভাইরাস ঠেকাতে ব্যর্থ হয়ে পড়েছেন চিকিৎসা বিজ্ঞানীরাও। এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ৮২ হাজারের অধিক মানুষ মৃত্যু বরণ করেছেন। একে আল্লাহর গজব হিসেবেই মনে করছেন ধর্মীয় প্রবক্তারা। কোরআনের বিভিন্ন আয়াত ও হাদিস এ কথাই প্রমাণ করে। তবে এ ভাইরাসে আমাদের করণীয় কি? আল্লাহর গজব মনে করে তাকদিরের ওপর ছেড়ে দেয়া নাকি পাশাপাশি সতর্কও থাকতে হবে? অনেকেই বিষয়টিকে শুধু তাকদিরের ওপর ছেড়ে দিয়ে অবহেলায় জীবন যাপন করছে। ইতোমধ্যেই

করোনায় কেয়ামতের আলামত!

  

পিএনএস ডেস্ক: গত ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের উহানে প্রথম শনাক্ত হওয়া করোনাভাইরাস (কভিড-১৯) এখন বৈশ্বিক মহামারি। বিশ্বের প্রায় ২০০টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে এ ভাইরাসটি। বাংলাদেশে এ ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে গত ৮ মার্চ। করোনার বিস্তাররোধে দেশের সব স্কুল-কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় এবং সব প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে সভা-সমাবেশ ও গণজমায়েতের ওপর। করোনাভাইরাস এক অজানা আতঙ্ক। বিশ্বনবী রাসূলুল্লাহ (সা.) মানবজাতিকে সতর্ক করে বলেছেন- অন্যায়, জুলুম ও অশ্লীলতার কারণে আল্লাহ তায়ালা জালেম

পবিত্র কাবা শরীফে আবারও তাওয়াফ চালু

  

পিএনএস ডেস্ক:মরণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস (কভিড-১৯) প্রাদুর্ভাবের মধ্যে আবারও চালু করা হলো পবিত্র কাবা শরিফের তাওয়াফ। তবে পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়া পর্যন্ত সীমিত আকারে চালু থাকবে এটি। মসজিদুল হারামের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটের বরাতে জিয়ো নিউজ উর্দূ এ তথ্য জানিয়েছে।সৌদি সরকার করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ২৩ মার্চ থেকে ২৩ দিনের জন্য আংশিক কারফিউ ঘোষণা করেছে।এর আগে, সুরক্ষা ব্যবস্থার অংশ হিসেবে মসজিদুল হারাম এবং মসজিদে নববীর অভ্যন্তরীণ ও বহির্মুখী পুরো মসজিদে সাধারণ মানুষের জমায়েত সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ

পবিত্র শবে বরাত ৯ এপ্রিল

  

পিএনএস ডেস্ক : বুধবার সন্ধ্যায় দেশের আকাশে কোথাও পবিত্র শাবান মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। এজন্য আগামীকাল বৃহস্পতিবার রজব মাসের ৩০ দিন পূর্ণ হচ্ছে। আগামী শুক্রবার থেকে শাবান মাস গণনা শুরু হবে। সেই হিসেবে আগামী ৯ এপ্রিল দিবাগত রাতে পবিত্র শবে বরাত পালিত হবে।আজ সন্ধ্যায় বায়তুল মোকাররমে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক আনিস মাহমুদ।পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

আজ পবিত্র শবে মেরাজ

  

পিএনএস ডেস্ক: আজ রোববার পবিত্র শবে মেরাজ। ইতিহাসের এই দিন রাতে মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) আল্লাহর সঙ্গে সাক্ষাত করতে আরশে আজিমে যান। এ কারণেই হিজরি রজব মাসের ২৬ তারিখের রাতটি মুসলমানদের কাছে অত্যন্ত মহিমাপূর্ণ ও তাৎপর্যবহ।মেরাজ অর্থ ঊর্ধ্বগমন। পরিভাষায় মেরাজ হলো, মহানবী হজরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কর্তৃক সশরীরে সজ্ঞানে জাগ্রত অবস্থায় হজরত জিবরাইল (আ.) ও হজরত মিকাইলের (আ.) সঙ্গে বিশেষ বাহন বোরাকের মাধ্যমে মসজিদুল হারাম থেকে মসজিদুল আকসা হয়ে প্রথম আসমান থেকে একে একে সপ্তম

করোনা প্রতিরোধে যেভাবে চলছে পবিত্র কাবার তাওয়াফ

  

পিএনএস ডেস্ক: প্রাণঘাতী নোভেল করোনাভাইরাস তথা কোভিড-১৯ থেকে প্রতিরোধে এবং পবিত্র কাবাকে মুক্ত রাখতে কিছুদিন মূল চত্বরে তাওয়াফ বন্ধ ছিল। সে সময় বিশেষ জীবাণুনাশক স্প্রে দিয়ে তাওয়াফের প্রাঙ্গণ পরিচ্ছন্ন করা হয়। এবার সৌদি সরকার করোনামুক্ত রাখতে তাওয়াফ চত্বরে বিশেষ ব্যবস্থা নিয়েছে।জীবাণুনাশক দিয়ে তাওয়াফের প্রাঙ্গণ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হচ্ছেআরব নিউজে প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানা যায়, ‘কাবা শরিফ থেকে নির্ধারিত দূরত্বে দুই স্তরের নিরাপত্তা ব্যারিকেড তৈরি করে মূল তাওয়াফ চত্বরে পরিবর্তন আনা

জুমার নামাজ পড়তে না পারলে যা করবেন

  

পিএনএস ডেস্ক: প্রিয়নবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) ইরশাদ করেছেন, জুমা হচ্ছে শ্রেষ্ঠ দিবস। পবিত্র কোরআনে সূরা আল জুমায় ইরশাদ করা হয়েছে, يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا إِذَا نُودِي لِلصَّلَاةِ مِن يَوْمِ الْجُمُعَةِ فَاسْعَوْا إِلَى ذِكْرِ اللَّهِ وَذَرُوا الْبَيْعَ ذَلِكُمْ خَيْرٌ لَّكُمْ إِن كُنتُمْ تَعْلَمُونَ‘মুমিনগণ, জুমার দিনে যখন নামাজের আজান দেয়া হয়, তখন তোমরা আল্লাহর স্মরণের পানে ত্বরা কর এবং বেচাকেনা বন্ধ কর। এটা তোমাদের জন্যে উত্তম যদি তোমরা বুঝ।’ (সূরা: আল জুমা, আয়াত: ৯)জুমার

যার যার ভাষা বিষয়ে ইসলামের নির্দেশনা

  

পিএনএস ডেস্ক: মানুষের মনের ভাব প্রকাশ করার একটি মাধ্যম হলো ভাষা। কখনো কখনো ভাষা হয়ে ওঠে সবচেয়ে বড় হাতিয়ার। যে শিশুটি নিজ হাতে খাওয়ার শক্তি রাখে না, এমনকি শক্ত খাবার গ্রহণ করার ক্ষমতা রাখে না, আধো আধো বুলি দিয়ে সে শিশুই খুব দ্রুত ভাষাকে রপ্ত করে ফেলে। তার মধুমাখা ভাঙা ভাঙা শব্দে জয় করে কঠিন যোদ্ধার মন। মহান আল্লাহ তাঁর এই আমূল নিয়ামতের কথা পবিত্র কোরআনে ইরশাদ করেছেন। তিনি বলেন—অর্থ : ‘পরম করুণাময়, তিনি শিক্ষা দিয়েছেন কোরআন, তিনি সৃষ্টি করেছেন মানুষ, তিনি তাকে শিখিয়েছেন ভাষা।’ (সুরা :

জুমার দিনে গোসলের গুরুত্ব ও ফজিলত

  

পিএনএস, নিজস্ব প্রতিবেদক : ইসলাম ধর্মে পবিত্র জুমার দিনকে ঈদুল আজহা ও ঈদুল ফিতরের চেয়েও বেশি মর্যাদাপূর্ণ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। আর এ জুমার দিনে গোসল করার গুরুত্বও অপরিসীম। নবী করিম (সা.) বলেছেন, ‘প্রতিটি প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির ওপর জুমার দিন গোসল করা ওয়াজিব (আবশ্যক)। (বুখারী-মুসলিম)। হাদিসে ওয়াজিব বলে, গুরুত্ব বোঝানো হয়েছে। গোসল না করলে গুনাহ হবে বিষয়টি এমন নয়। কিন্তু নবীজি (সা.) প্রতি জুমার দিনেই গোসল করেছেন। সামাজিকভাবেও এ গোসলের গুরুত্ব বোঝা যায়। এদিন মসজিদে অন্যদিনের তুলনায় মানুষ বেশি হয়।