অর্থনীতি

সাত বছরে ১৭,১৪০ মিলিয়ন ডলার বৈদেশিক সাহায্য গ্রহণ

  

পিএনএস, এবিসিদ্দিক: সরকার গত সাত বছরে (২০০৯-১০ থেকে ২০১৫-১৬ অর্থবছরের ফেব্রুয়ারী মাস পর্যন্ত) ১৭,১৪০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশি বৈদেশিক সাহায্য গ্রহণ করেছে। যদিও একই বৈদেশিক সাহায্যের প্রতিশ্রুতি ছিল ৩২,৩৯৮ মিয়িলন ডলারের বেশি। উল্লেখিত সময়ে ঋণ প্রাপ্তির প্রতিশ্রুতি ছিল ২৭,৮৯৭ দশমিক ৮৫ মিলিয়ন ডলারের আর পাওয়া গেছে ১২,৮৫৭ দশমিক ৭২ মিলিয়ন ডলার। অনুদান প্রতিশ্রুতি ছিল ৪,৫০০ মিলিয়ন ডলার যার বিপরীতে পাওয়া গেছে ৪,২৮৩ দশমিক ২৫ মিলিয়ন ডলার। অপরদিকে গত অর্থবছরে ২৬ টি উন্নয়ন সহযোগী সংস্থা ও

ব্যাংকে ঋণ জালিয়াতি চলছেই সেই সাথে বাড়ছে খেলাপির পরিমাণ

  

পিএনএস, এবিসিদ্দিক: ব্যাংকগুলোতে দুর্নীতি আর জালিয়াতি চলছেই। সেই সাথে বাড়ছে ঋণ অবলোপন যা ইতো মধ্যে প্রায় ৪৫ হাজার কোটি টাকায় পৌছেছে। কোম্পানির নামে ব্যাংক ঋণ নিয়ে লাপাত্তা হয়ে যান এর মালিকরা। ভুয়া কোম্পানির কাগজপত্র তৈরি করে ঋণ নিচ্ছেন একশ্রেণির নামসর্বস্ব শিল্পপতি। ব্যাংকের পর্ষদ সদস্য, কর্মকর্তাদের যোগসাজশে এসব কোম্পানির কোনো সরেজমিন পরিদর্শন ছাড়াই ঋণ পাস হয়ে যাচ্ছে। ঋণ দেওয়ার পর দেখা যায়, ঠিকানা ব্যবহার করা হয় সেখানে কিছুই নেই। এমনকি যার নামে ঋণ নেওয়া হয়েছে ওই নামেই কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়

একসাথে এতো সৎ মানুষের সমন্বয় আমি জীবনে দেখিনি : আরাস্তু খান

  

পিএনএস ডেস্ক : ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের নতুন চেয়ারম্যান আরাস্তু খান বলেছেন, আমি অনেক অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠান ও ব্যাংকে দায়িত্ব পালন করেছি কিন্তু এতো সৎ লোকের সাথে আমি জীবনে পূর্বে কখনো কাজ করার সুযোগ পাইনি। এক সাথে এতো সৎ মানুষের সমন্বয় দেখে আমি অভিভূত।শুক্রবার সকালে মানিকগঞ্জ ইসলামী ব্যাংক কমিউনিটি হাসপাতালের কনসালটেন্টদের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি এসব কথা বলেন।তিনি বলেন, মানুষ সম্পূর্ণ সততার সাথে হাসিমুখে, তুলনামূলকভাবে কম বেতনে এভাবে তখনই কাজ করতে পারে যখন

গরুর মাংস ৫০০ টাকা কেজি, বাড়ছে মুরগির দাম

  

পিএনএস ডেস্ক: রাজধানীতে গত রোববার থেকে চলছে মাংস ব্যবসায়ীদের ডাকা ধর্মঘট। ফলে সব মাংসের দোকানেই ঝুলছে তালা। অলস সময় পার করছেন বিক্রেতারা। কোথাও গরু-মহিষ কিংবা খাসি-ভেড়ার মাংস না থাকায় বিপাকে পড়েছেন নগরবাসী। অনেকে গরুর মাংস কিনতে এসে বাসায় ফিরছেন মুরগি নিয়ে। আর এ সুযোগে প্রতিদিনই বাড়ছে মুরগির দাম। আগের তুলনায় কেজিতে ১৫ থেকে ২০ টাকা বেশি রাখা হচ্ছে। রাজধানীর বাজার ঘুরে দেখা গেছে, দেশি গরুর মাংস প্রতি কেজি ১০০ টাকা বেড়ে ৫০০ টাকা বিক্রি করছে, খাসির মাংস বিক্রি করছে ৭০০ টাকায়।বাজারে গরু ও খাসির

বিশ্ব ব্যাংকের সমালোচনায় আর্থিক সহায়তার নেতিবাচক প্রভাব পড়বে নাতো?

  

পিএনএস, এবিসিদ্দিক: পদ্মা সেতু ইস্যুতে বিশ্ব ব্যাংকের প্রতি সরকার আবারোও ক্ষুব্ধ হয়ে হয়ে উঠেছে। পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতি হয়নি, এই মর্মে কানাডার আদালতে রায় হওয়ার পরই সরকার বিশ্ব ব্যাংকের সমালোচনা শুরু করে। অপরদিকে বিশ্ব ব্যাংক বাংলাদেশ সরকারকে চলতি অর্থবছরে আর্থিক সাহায্য বাড়ানোর প্রতিশ্রুতিও দিয়েছে। গত অক্টোবর মাসে বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্ট মিঃ জিম ইয়ং কিম ঢাকা সফরকালে বাংলাদেশকে ঋণ বাড়ানোর কথা বলেন। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সাথে বৈঠককালে বলেন, “বিশ্ব ব্যাংক বিভিন্ন দেশে ঋণ

ব্যাংকে রাখলে টাকা কমবে!

  

জমানো অথবা পেনশনের টাকা ব্যাংকে আমানত হিসেবে রেখে তার সুদ বাবদ আয় দিয়ে সংসার চালাবেন, সেই দিন আর নেই! বছর পাঁচেক আগেও এক লাখ টাকা ব্যাংকে রাখলে সেখান থেকে মাসে হাজার টাকার বেশি সুদ পাওয়া যেত। কারও কাছে টাকা আছে জানলেই ব্যাংকের কর্মকর্তারা গিয়ে হাজির হতেন, যাতে গ্রাহক সেই টাকা তাঁর ব্যাংকে আমানত হিসেবে রাখেন।আর এখন ব্যাংকগুলো লাখ টাকার বিপরীতে মাসে ৫০০ টাকার বেশি সুদ দিতে চায় না। সঙ্গে থাকে মেয়াদ দীর্ঘ হওয়ার শর্ত। আর ছোট ও স্বল্পমেয়াদি আমানতকারীদের কোনো কদরই ব্যাংকে নেই।এ পরিস্থিতিতে

গত অর্থবছরে ভারতে সাথে বাণিজ্য ঘাটতি ছিল ৬০০ কোটি ডলার

  

পিএনএস, নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ থেকে বার্ষিক পণ্য রফতানির মাত্র দুই শতাংশ হয় ভারতের বাজারে। অপরদিকে বাংলাদেশ পণ্য আমদানির দ্বিতীয় স্থানে ভারত। অর্থাৎ চীনের পরেই ভারত থেকে সবচেয়ে বেশি পণ্য আমদানি করা হয়। আর বাংলাদেশের সব চেয়ে বেশি বাণিজ্য ঘাটতি ভারতের সাথে। ২০০৫-২০০৬ অর্থবছরে ভারতের সাথে বাংলাদেশের বাণিজ্য ঘাটতি ছিল ১৬০ কোটি ৬৫ লাখ ডলার। ১০ বছরের ব্যবধানে ২০১৪-১৫ অর্থবছরে এসে ঘাটতির এ পরিমাণ দাঁড়ায় ৫৯৭ কোটি ৩০ লাখ ডলার আর গত অর্থবছরে এই ঘাটতির পরিমাণ দাড়ায় প্রায় ৬০০ কোটি ডলারে। বাংলাদেশ

গত ৫ বছরে বৈদেশিক সহায়তার অর্ধেক ছাড় পাওয়া গেলো

  

পিএনএস, নিজস্ব প্রতিবেদক: গত ৫ বছরে(২০১১-১২ থেকে ২০১৫-১৬ অর্থবছ) বৈদেশিক সাহায্যের প্রতিশ্রুতি পাওয়া গিয়েছিল ২৮ দশমিক ৭২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। আর একই সময়ে ১৪ দশমিক ০১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। প্রতি বছর গড়ে প্রতিশ্রুতি ছিল ৫ দশমিক ৭৪ বিলিয়ন ডলার আর প্রতিবছর গড়ে ছাড় পাওয়া গেছে ২ দশমিক ৯ বিলিয়ন ডলার। বাংলাদেশ সরকার দ্বিপাক্ষিক চুক্তির মাধ্যমে সাহায্য বেশি পেয়ে থাকে। গত ৫ বছরে দ্বিপাক্ষি সাহায্যের প্রতিশ্রুতি ছিল ৬৩ দশমিক ৯ আর বহুপাক্ষিক ছিল ৩৬ দশমিক ১ শতাংশ। গত ২০১৫-১৬ অর্থবছরের ছাড় ছিল ঋণ বাবদ

একনেক সভায় অনুমোদিত প্রকল্প ৭৩৩, প্রাক্কলিত ব্যয় ৭ লক্ষ ৬৩ হাজার কোটি টাকা

  

পিএনএস : জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির(একনেক) সভায় ৩ হাজার ৬৮৪কোটি ৫০ লক্ষ টাকার প্রাক্কলিত ব্যয় সম্বলিত ১১টি নতুন ও সংশোধিত প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে | এর মধ্যে জিওবি ২ হাজার ৬৪১ কোটি ৯৯ লাখ টাকা | সংস্থার নিজস্ব তহবিল ৮৮কোটি ৪৩ লক্ষ টাকা এবং প্রকল্প সাহায্য ৯৫৪ কোটি ৮ লক্ষ টাকা| আজ ঢাকায় শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেল কেন্দ্রে প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপার্সন শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেক সভায় এ অনুমোদন দেয়া হয় ।একনেক সদস্যবৃন্দ,মন্ত্রিপরিষদ সচিব, প্রধানমন্ত্রীর মূখ্য সচিব,

যে কারণে রেমিটেন্স কমছে

  

পিএনএস, নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ থেকে বিদেশে শ্রমিক যাচ্ছে বেশি আর রেমিটেন্স আসছে কম। প্রকৃতপক্ষে রেমিটেন্স বেশি আসছে ঠিকই তবে অবৈধ পথে। গত ২০১৬ সালে বিদেশে শ্রমিক গেছে ৭ লাখ ৫৭ হাজার ৭৩১ জন, আর রেমিটেন্স এসেছে ১ লাখ ৭ হাজার ২৯৪ কোটি ৬০ লাখ টাকা। ২০১৫ সালে শ্রমিক গেছে ৫ লাখ ৫৫ হাজার ৮৮১ জন আর রেমিটেন্স এসেছে ১ লাখ ১৯ হাজার ৩৬৩ কোটি ৬০ লাখ টাকা। ২০১৪ সালে শ্রমিক গেছে ৪ লাখ ২৫ হাজার ৬৮৪ জন আর রেমিটেন্স এসেছে ১ লাখ ১৫ হাজার ৯৬৯ কোটি ৬০ লাখ টাকা। ২০১৩ সালে শ্রমিক গেছে ৪ লাখ ৯ হাজার ২৫৩ জন আর

Developed by Diligent InfoTech