আজ রোহিঙ্গা শরণার্থীদের নিয়ে শুনানি সুপ্রিম কোর্টে

  


পিএনএস ডেস্ক: রোহিঙ্গা শরণার্থী ইস্যুতে আজ শুক্রবার শুনানি হবে সুপ্রিম কোর্টে। কেন্দ্রের বিরোধী দলগুলি মায়ানমারের রোহিঙ্গাদের মানবিকতার খাতিরে আশ্রয় দিতে চাইলেও তাতে সায় নেই কেন্দ্রের। জাতীয় নিরাপত্তার কারন দেখিয়ে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের ভারতে থাকতে দিতে নারাজ মোদী সরকার।

ইতিমধ্যেই ভারতে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের অনুপ্রবেশ রুখতে বিশেষ ব্যবস্থা নিল কেন্দ্র সরকার। মায়ানমার এবং বাংলাদেশ সীমান্তে মোতায়েন করা হল বাড়তি সেনা। মূলত এই দুই দেশের সীমান্ত দিয়েই ভারতে প্রবেশ করেছে রোহিঙ্গা শরণার্থীরা।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফ থেকে এক জানানো হয়েছে যে, ভারতে মায়ানমার থেকে আগত রোহিঙ্গা শরণার্থীদের অনুপ্রবেশ রুখতে সীমান্তে অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ রুখতে বিএসএফ এবং অসম রাইফেলসের সেনা জওয়ানদেরকেই নিযুক্ত করা হয়েছে। ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের ৪০৯৬ কিমি সীমানা রয়েছে। আর মায়ানমারের সঙ্গে ভারতের সীমান্তের দৈর্ঘ্য ১৬৪৩ কিমি। এই বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে বিপুল পরিমাণ সেনা মোতায়েন করেছে দিল্লি। যদিও অতিরিক্ত কত জন সেনা মোতায়েন করা হয়েছে তা পরিষ্কার করে বলেনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক।

চলতি বছরের অগাস্ট মাসে সরকারের পক্ষ থেকে সংসদে বলা হয় যে ভারতে রাষ্ট্রসংঘের পরিচয়পত্র নিয়ে ১৪ হাজার রোহিঙ্গা বাস করছে। ছাড়পত্র ছাড়া সেই সংখ্যাটা ৪০ হাজারেরও বেশি। মায়ানমারের রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সঙ্গে পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআইয়ের যোগসূত্র রয়েছে বলে সাংসদে দাবি করেছিল কেন্দ্র। একইসঙ্গে জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের সঙ্গেও রোহিঙ্গাদের যোগ রয়েছে বলে দাবি করে ভারত সরকার। আজ শুক্রবার রোহিঙ্গা শরণার্থীদের নাগরিকত্ব নিয়ে শুনানি হবে দেশের সর্বোচ্চ আদালতে।সূত্র: kolkata24x7

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech