‘ভারতে মুসলমানদের সংখ্যা বৃদ্ধি জাতীয় স্বার্থের পরিপন্থী’

  


পিএনএস ডেস্ক: ভারতে মুসলমানদের সংখ্যা বৃদ্ধি জাতীয় স্বার্থের পরিপন্থী বলে মন্তব্য করেছেন কট্টর হিন্দুত্ববাদী বিজেপি নেতা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিং। তিনি বলেন, বিশ্বের বৃহত্তম গণতান্ত্রিক দেশের গণতন্ত্র সুরক্ষিত রাখতে হিন্দুদের সংখ্যাগুরু থাকাটা একান্তই দরকার।

ভারতের জনঘনত্বের পরিবর্তন জাতীয়তাবাদের পক্ষে অত্যন্ত বিপজ্জনক বলে দাবি করেন মোদী সরকারের এই মন্ত্রী। তার কথায়, দেশের সংখ্যাগুরু সম্প্রদায় সংখ্যালঘু হওয়ার পথে হাঁটলে সামাজিক ঐক্য ও জাতীয় উন্নয়ন থমকে যাবে।

মন্ত্রী গিরিরাজ সিং বলেন, ‘জাতীয় স্বার্থে এখনই পরিবার পরিকল্পনা আইন প্রণয়ন করা হোক। দেশভাগের পর এ দেশে মুসলমানদের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে অথচ পাকিস্তানে কার্যত নিশ্চিহ্ন হিন্দুরা।’

মুসলমানদের সংখ্যা বৃদ্ধি দেশের পক্ষে বিপজ্জনক বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। এ বিষয়ে গিরিরাজ সিং বলেন, ‘উত্তরপ্রদেশ, আসাম, পশ্চিমবঙ্গ ও কেরলের ৫৪টি জেলায় হিন্দুরা সংখ্যালঘু। এই বৈপরীত্য দেশের একতা এবং অখণ্ডতাকে সঙ্কটে ফেলবে।’

একইসঙ্গে তার আরো দাবি, ‘ভারতের সকল জায়গায় হিন্দুদের সংখ্যা কমেছে, সেখানেই সামাজিক ঐক্যের ক্ষয় হয়েছে, সঙ্কটে পড়েছে জাতীয়তাবাদ।’

অযোধ্যার বিতর্কিত ভূখণ্ডে রাম মন্দির নির্মাণের বিষয়ে গিরিরাজ বলেন, ‘অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের বিষয়ে সহমত পোষণ করেছে মুসলিম শিয়া সম্প্রদায়। খুব শীঘ্রই সুন্নিরাও একমত হবে বলে আমি বিশ্বাস করি। কারণ শিয়া, সুন্নি এবং হিন্দু সকলেই রামচন্দ্রের বংশধর।’

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech