‘সম্মেলন থেকে শুরু হবে আগামী জাতীয় নির্বাচনের প্রস্তুতি’

  

পিএনএস ডেস্ক : আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন থেকে আগামী জাতীয় নির্বাচনের প্রস্তুতি গ্রহণ করার জন্য দলীয় নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়-সংলগ্ন একটি কমিউনিটি সেন্টারে জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র শহীদ শেখ রাসেলের জন্মদিন উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যদানকালে এ আহ্বান জানান।

ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগ যৌথভাবে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন থেকে শুরু হবে আগামী জাতীয় নির্বাচনের প্রস্তুতি’। তিনি বলেন, নির্ধারিত সময় শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনে আগামী জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, এ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিজয় নিশ্চিত করার জন্য নতুন যারা নির্বাচিত হবেন তাদের তৃণমূল নেতাদের সাথে ঘনিষ্টভাবে কাজ করতে হবে।

ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ কে এম রহমতউল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, আবু সাঈদ আলম মাহমুদ স্বপন, আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাত, সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান, আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য সুজিত রায় নন্দী, আমিনুল ইসলাম আমিন, আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক মারুফা আক্তার পপি, দেলোয়ার হোসেন ও ইসকান্দার মির্জা শামীম।

মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, বঙ্গবন্ধু পরিবারের অবশিষ্ট সদস্যদের নিশ্চিহ্ন করতে প্রকাশ্যে হুমকি না থাকলেও ষড়যন্ত্র চলছে। ১৫ আগস্টের মতো আর যেন কোনো ঘটনা ঘটতে না পারে সে জন্য আওয়ামী লীগের প্রত্যেক নেতা-কর্মীকে সতর্ক থাকতে হবে।

বিশ্ব ব্যাংকের প্রেসিডেন্টের বাংলাদেশ সফরের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, নিজেদের অর্থায়নে কিভাবে পদ্মাসেতু নির্মিত হচ্ছে তা দেখতে বিশ্ব ব্যাংকের প্রেসিডেন্ট ঢাকায় এসেছেন।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, পদ্মাসেতু প্রকল্পে কোথায় ও কিভাবে দুর্নীতি হয়েছে সেটা প্রমাণ করতে না পারলে বিএনপি নেতাদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যাকারীদের মধ্যে যারা এখনো বিদেশে পালিয়ে রয়েছে তাদের ফিরিয়ে আনতে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, যারা পালিয়ে রয়েছে তাদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করে জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করা হবে।

বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া সম্পর্কে আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় থাকার সময় বেগম খালেদা জিয়া যে পরিমাণ দুর্নীতি করেছেন তার দু’একটি ঘটনার মাত্র বিচার হচ্ছে। এ বিষয়ে তিনি আরও বলেন, বেগম খালেদা জিয়া দোষী সাব্যস্ত হলে আগামী নির্বাচনে যোগ্যতা হারাবেন বলে বিএনপি নেতারা নানা উল্টাপাল্টা কথা বলছেন।
সূত্র : বাসস

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech