সিইসিকে জামায়াতের চিঠি

  

পিএনএস ডেস্ক: অন্যান্য নিবন্ধিত দলের মতো বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীকে নির্বাচন কমিশনের সাথে সংলাপে অংশগ্রহণের সুযোগ দেয়ার জন্য প্রধান নির্বাচন কমিশনারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে চিঠি দিয়েছে দলটি।

বৃহস্পতিবার জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা এটিএম মাসুম নির্বাচন কমিশনের ই-মেইলে এ চিঠিটি পাঠান।

চিঠিতে তিনি বলেন, জামায়াতে ইসলামী জাতীয় সংসদে প্রতিনিধিত্বকারী বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ রাজনৈতিক দল। দেশের প্রায় প্রতিটি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জামায়াত অংশগ্রহণ করেছে। অতীতের প্রত্যেক সংসদে জামায়াতের প্রতিনিধিত্ব ছিল। সিটি করপোরেশন, পৌরসভা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পরিষদ তথা স্থানীয় সরকার নির্বাচনে জামায়াত সমর্থিত উল্লেখযোগ্য সংখ্যক প্রার্থী বিজয় লাভ করেছে। জামায়াত সমর্থিত প্রার্থীরা বিপুল সংখ্যক ভোট পেয়েছে। অতীতে বিভিন্ন নির্বাচনে জামায়াতের প্রাপ্ত ভোটের ভিত্তিতে এটা প্রতিষ্ঠিত, জামায়াত দেশের তৃতীয় বৃহৎ রাজনৈতিক দল। জামায়াত সব গণতান্ত্রিক আন্দোলনে নিয়মতান্ত্রিক পন্থায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে।

তিনি আরো বলেন, জামায়াত একটি নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল। সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে জামায়াতের নিবন্ধন বিষয়ের মামলাটি বিচারাধীন আছে। স্বাভাবিকভাবেই জনগণের প্রতিনিধিত্বকারী দল হিসেবে নির্বাচন কমিশনের সংলাপে অংশগ্রহণ করার অধিকার জামায়াতের রয়েছে। দেশের একটি বৃহৎ গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল হিসেবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে গ্রহণযোগ্য ও নিরপেক্ষভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে নির্বাচন কমিশন আয়োজিত সংলাপকে অর্থবহ করে তোলার জন্য সংলাপে জামায়াতে ইসলামীর অংশগ্রহণের সুযোগ থাকা বাঞ্ছনীয়। আমরা আশা করি আগামী নির্বাচনে জনগণের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে এবং যথাযথ প্রতিনিধিত্বের স্বার্থে জামায়াতে ইসলামীকে সংলাপে অংশগ্রহণের সুযোগ দেয়ার ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

নেতাদের মুক্তি দাবি: জামায়াতে ইসলামীর আমির মকবুল আহমাদসহ গ্রেফতারকৃত কেন্দ্রীয় নেতাদের অবিলম্বে মুক্তির দাবি জানিয়ে দলটির ভারপ্রাপ্ত আমির ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান এক বিবৃতিতে বলেছেন, সরকার আমিরে জামায়াতকে নিয়ে এক জঘন্য ষড়যন্ত্র করছে। তিনি আমির নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে তার বিরুদ্ধে ১৯৭১ সালে ফেনীতে সংঘটিত ঘটনায় তাকে সম্পৃক্ত করে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় জড়ানোর ষড়যন্ত্র করছে সরকার। পত্রিকায় তার বিরুদ্ধে এক কাল্পনিক চিঠি ছাপানো হয়। আমিরে জামায়াত মকবুল আহমাদ স্বয়ং নিজে ওই চিঠির প্রতিবাদ জানিয়ে প্রদত্ত
বিবৃতিতে বলেছেন, ‘ওই চিঠি তার লেখা নয় এবং স্বাক্ষরও তার নয়।’ অথচ সরকার ওই চিঠির কথা উল্লেখ করে তাকে মামলায় জড়ানোর চেষ্টা করছে। দু’একটি অনলাইন পত্রিকার খবরে বলা হয়েছে, মকবুল আহমাদের বিরুদ্ধে ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার। আমরা সরকারের এ জঘন্য ষড়যন্ত্রের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। আমরা স্পষ্টভাবে উল্লেখ করতে চাই আমিরে জামায়াতের বিরুদ্ধে এ ধরনের কোনো ষড়যন্ত্র দেশবাসী মেনে নিবে না।

তিনি সব ষড়যন্ত্র বন্ধ করে অবিলম্বে মকবুল আহমাদসহ জামায়াতের গ্রেফতারকৃত সব নেতা-কর্মীর নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন। (বিজ্ঞপ্তি)।

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech