অবশেষে জাহাঙ্গীর শিকদারের বহিষ্কার প্রত্যাহার, সক্রিয় হচ্ছে জাসাস

  

পিএনএস : দীর্ঘদিন নিস্ক্রিয় ছিলো বিএনপির সহযোগী সংগঠন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী সামাজিক সাংস্কৃতিক সংস্থা জাসাস। কিন্তু জাসাস কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক যুগ্মসম্পাদক ও জাসাস ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাবেক সভাপতি জাহাঙ্গীর শিকদারের বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহার করার পর আবারো সক্রিয় হচ্ছে জাসাস। জাসাসের কয়েকজন নেতাকর্মীর সঙে কথা বলে জানা গেছে।

খোজ নিয়ে জানা গেছে, জাসাস কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক যুগ্মসম্পাদক ও জাসাস ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাবেক সভাপতি জাহাঙ্গীর শিকদারের নেতৃত্বে সংগঠণটি ছিলো চাঙা। বিএনপির আহবানে সব ধরনের কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করতো জাসাস।

অন্যসংগঠনের মত সরকার বিরোধী আন্দোলনে রাজপথে ছিলো সরব উপস্থিতি। একইসাথে সভা সেমিনার চালিয়ে যেত। হঠাৎ জাহাঙ্গীর শিকদারকে বহিস্কার করা হয়। এরপরেই জাসাস নেতারাও আস্তে আস্তে নিষ্ক্রিয় হয়। জাসাসের অনেক সিনিয়র নেতা দলীয় কর্মকান্ড থেকে মুখ ফিরিয়ে নেয়। মুখ থুবড়ে পড়ে সংগঠনের কর্মকান্ড।

দীর্ঘদিন পর জাহাঙ্গীর শিকদারের বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহার করায় সারাদেশের জাসাস নেতাকর্মীদের মধ্যে প্রাণচাঞ্চলতা দেখা দিয়েছে। নিষ্ক্রিয় নেতাকর্মীরা আবারো সক্রিয় হওয়ার জন্য ইতোমধ্যে কাজ শুরু করেছেন।

এবিষয়ে জানতে চাইলে জাসাস কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক যুগ্মসম্পাদক ও জাসাস ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাবেক সভাপতি জাহাঙ্গীর শিকদার বলেন, দল আমার বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহার করেছে। এজন্য দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া,ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব রুহুল কবির রিজভীকে সংগ্রামী শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদ। দলের জন্য কাজ করার সুযোগ করে দেয়ার জন্য আমি কৃতজ্ঞ। আমার নেত্রীকে কারামুক্তি করার জন্য আন্দোলন সংগ্রামে নিজেকে নিবেদিত করবো।

তিনি আরো বলেন, আমার বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহার করার পর জাসাসের শীর্ষনেতাসহ সারাদেশের নেতাকর্মীরা আমার সাথে যোগাযোগ করেছে। আমিও তাদের সাথে যোগাযোগ করছি। তবে এতদিন যারা নিস্ক্রিয় ছিল, তারা আগামী দিনের আন্দোলন সংগ্রামে মাঠে থাকার জন্য প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। অতীতের ব্যথা বেদনা ভুলে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করে সামাজিক সাংস্কৃতিক আন্দোলন আরো জোড়দার করবো।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী সামাজিক সাংস্কৃতিব সংস্থা জাসাস-এর কেন্দ্রীয় নেতা একুশে পদকপ্রাপ্ত ছড়াকার আবু সালেহ বলেন, জাহাঙ্গীর শিকদার এমন একজন সংগঠক যাকে সামনে রেখে এগিয়ে যেতে নিজেকে নিরাপদ মনে হয়। তার তাকে দলে ফিরিয়ে নেয়ায় আগামী দিনে জাসাস আরো সুসংঘঠিত হবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

জাসাস কেন্দ্রীয় নেতা ও গণসঙ্গীত শিল্পী জাকির হোসেন আখের বলেন, জাহাঙ্গীর শিকদার জাসাসে এসেছেন। এবার সাংস্কৃতিক আন্দোলন চাঙা হবে। এই আন্দোলনে আমরাও মাঠে থাকবো ইনশাআল্লাহ।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech