টকশোতে ঝগড়াঝাটি, শেষে কোলাকুলি!

  

পিএনএস ডেস্ক : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুরের একটি অডিও ফাঁস হওয়ার পর তার ডাকসু থেকে তার পদত্যাগের দাবিতে যখন ডাকসুর সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীদের পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন চলছে তখন তাদের দুজনের হাস্যোজ্জ্বল কোলাকুলি করা একটি ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

গত রোববার দিনের বেলায় গোলাম রাব্বানী ও নুরুল হক নুর একে অপরের পক্ষে-বিপক্ষে বক্তব্য দিয়েছিলেন। পরে রাতেই বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের আই-এর একটি টকশোতে অংশ নিয়ে তারা একে একে অপরের প্রতি দোষারোপ করেন, উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় করেন। এমনকি একে অপরকে মূর্খ্য বলতেও শোনা গেছে। টকশো শেষে তারা একে অপরকে হাসতে হাসতে জড়িয়ে ধরেন। তাদের ছবিটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে যায়।

ছবিটি ফেসবুকে বিভিন্ন জন বিভিন্ন টাইটেল দিয়ে পোস্ট করছে। কেউ লিখছে ওপর দিয়ে বিরোধ থাকলেও আসলে তারা এক। কেউ কোরো শত্রু নয়। আবার কেউ লিখছেন রাজনৈতিক বিরোধ থাকতেই পারে, ব্যক্তিগত সম্পর্ক এমনই হওয়া উচিত।

ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগ ওঠার পর নিজ থেকে অব্যাহতি নিয়েছেন বলে গতকাল রোববার দাবি করেছেন তিনি। তাকে অনুসরণ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের ভিত্তিতে তাকেও পদত্যাগ করার আহবান জানান ডাকসুর জিএস গোলাম রাব্বানী।

ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুরের টেন্ডারবাজি, তদবির বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক লেনদেনের প্রতিবাদে নিন্দাজ্ঞাপন, ভিপি পদ থেকে নুরকে পদত্যাগের আহবান এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ কর্তৃক আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন এমন দাবি করেন ডাকসুর ২৫ সদস্যের ২৩ জন। সেখানে রাব্বানী ওই আহবান জানান।

এর জবাবে ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুর গতকাল বলেন, ‘ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার হয়ে ডাকসু জিএস লজ্জায় এতদিন ডাকসুতে আসেননি। রাতের অন্ধকারে দু-একদিন এসেছেন। আজ এসেছেন। তারা ভেবেছে ভিপিকে ঠেকাতে ছাত্রলীগকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ছাত্রলীগের মধ্যে তো বিভেদ রাখা যাবে না। তখন তারা ঘর থেকে জিএসকেও নিয়ে এসে সংবাদ সম্মেলন করেছে। ছাত্রলীগের মিথ্যা অভিযোগে আমি পদত্যাগ করবো না।’

ওই ছবি ফেসবুকে পোস্ট করে ছাত্রদলের প্যানেল থেকে জিএস প্রার্থী হিসেবে ডাকসু নির্বাচনে অংশ নেয়া আনিসুর রহমান খন্দকার অনিক লিখেছেন, ‘তারা হাসেন, মানুষকে হাসান এবং আলোচনায় থাকেন। দুজনই সাবেক ছাত্রলীগ নেতা এবং মিডনাইটের কলঙ্কিত ডাকসুর তথাকথিত ভিপি জিএস।

আলমগীর শাহরিয়ার নামে একজন লিখেছেন, ‘আপনার আমার সব দেখা সত্য নয়, সব জানাও সত্য নয়। আপনি-আমি দেখি টেলিভিশন আর ফোনের সুসজ্জিত পর্দা। এর নেপথ্যে আরো অনেক কলাকুশলী থাকে। পর্দার অন্তরাল চিরকাল এই ছবির মতই।

সজীব নামে এক সাংবাদিক লিখেছেন, তাদের মধ্যে কতো মিল! দুইজনের বিরুদ্ধেই দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। এ জন্য ডাকসু থেকে দু্জনই দুজনের পদত্যাগ চায়। বিরোধী বক্তব্য দেয়। আবার একে অপরকে হাসতে হাসতে জড়িয়ে ধরে। বাহ কি চমৎকার।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন