পাঠকের চিঠি

মুহিতের দেখানো পথেই হাঁটছেন কামাল

  

পিএনএস ডেস্ক: অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল গত বৃহস্পতিবার যে বাজেটটি উপস্থাপন করেছেন, সেটি বলতে গেলে সদ্য সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের বাজেটেরই ধারাবাহিকতা, কিন্তু এবারের বাজেট বক্তৃতাটি বেশি সংক্ষিপ্ত ও প্রযুক্তিনির্ভর করতে গিয়ে মুস্তফা কামাল ও তাঁর মন্ত্রণালয়ের টিম খুব মুনশিয়ানার পরিচয় দিতে পারেনি। আমরা যারা বাজেট বক্তৃতা থেকে আগামী অর্থবছরের অর্থনীতির সম্ভাব্য গতি–প্রকৃতি সম্পর্কে প্রয়োজনীয় তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করতে অভ্যস্ত, তঁাদেরও বেশ অতৃপ্ত থাকতে হয়েছে বাজেট বক্তৃতার দুর্বল

নুরের মার খাওয়া, অজ্ঞান হওয়া সবই নাটক?

  

পিএনএস ডেস্ক : ডাকসু ভিপি নুরকে মারছে ছাত্রলীগ, যেখানে পাওয়া যাচ্ছে বা মারতে ইচ্ছে করছে, সেখানেই মারছে।আমার ধারণা, তাঁকে মারা হচ্ছে সর্বোচ্চ কর্তৃপক্ষের অনুমোদনেই। কারণ তাঁকে মার দেওয়ার প্যাটার্নটা মোটামুটি একরকম। প্রথমে পুলিশ অনুমতি দেবে না, তা ইফতার হোক, সংবাদ সম্মেলন বা যে-কোনো জমায়েত। তারপর ছাত্রলীগের কর্মী-নেতারা এসে তাঁকে মেরে-ধরে উঠিয়ে দেবে বা শুইয়ে দেবে। পরে বলবে, হালকা ধাক্কাধাক্কি বা সাজানো নাটক। নুরের মার খাওয়া, অজ্ঞান হওয়া সবই নাটক!মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আমার খুব জানতে ইচ্ছে

গরীব’ বলে দীর্ঘ যাত্রায় ঠাই মিললো মেঝেতেই!

  

পিএনএস ডেস্ক: কর্মস্থল ৬৫ কিলোমিটার দূরে হওয়ায় প্রতিদিন আমাকে দূরপাল্লার বাসে যাতায়াত করতে হয়। আজ সকালে যখন বাসে উঠেছি তখন ভালো কোন সিট না পেয়ে ড্রাইভারের পাশের সিটে সংকুচিত হয়ে বসেছিলাম।কিছুক্ষন পর খেয়াল করলাম, বাসের সামনের সিটে দু জন মহিলা বসা, একজন মাঝ বয়সী আরেক জন উনার মা হবে সম্ভবত। মাঝ বয়সী মহিলাটির চুলে কৃত্তিম লালচে রং করা হয়েছে। জামা পড়েছে কমলা রঙ্গের এবং কি পায়ের নখের কালার ও করেছে জামার সাথে ম্যাচ করে কমলা রঙ্গের ই।মহিলা দু জনের পোষাকে মনে হলো বেশ বিত্তশালী। পায়ের কাছে

‘ক্ষমতার রাজনীতি নয় জনগণের ভালবাসা অর্জনই সর্বোত্তম রাজনীতি’

  

পিএনএস (আক্তারুজ্জামান বাচ্চু) : আমাদের দেশটি আয়তনে ছোট হলেও এদেশের মানুষকে ছোট করে দেখার কোনও সুযোগ নেই। এদেশের মানুষ স্বাধীনতার জন্য, ভাষার জন্য রক্ত দিয়েছে ; তবুও মাথা নত করেনি ।স্বাধীনতার ৪৮ বছর হয়েছে । ইতিমধ্যে পৃথিবীতে অনেক প্রযুক্তিগত উন্নতি, আর্থ সামাজিক ও রাজনৈতিক পট পরিবর্তন হলেও স্বাধীন দেশটিতে একনায়কতান্ত্রিক রাজনীতি ও দূর্নীতিগ্রস্ত রাষ্ট্রযন্ত্রের কারণে আমরা ক্রমান্বয়েই পিছিয়ে পড়ছি । রাষ্ট্র আজ ভয়াবহভাবে একনায়কবাদী, বাক স্বাধীনতা হরণকারী ও সত্যকে নিষ্ঠুরভাবে দমনকারীর ভূমিকায়

আহা রে! জায়ান কত যন্ত্রণা পেয়ে মরেছে

  

পিএনএস ডেস্ক: সাহরি খেলাম, এক ঘণ্টা ঘুমাবো ভাবছিলাম। কিন্তু ঘুম আসছে না কি কারণে ছোট্ট শিশু জায়ানকে জীবন দিতে হলো? পৃথিবীকে আজ কারা অবাসযোগ্য করে তুলছে? কি চায় তারা? কেন এত রক্তপাত? মানুষ মেরে একদল ধর্মের কাজ করছে বলছে? কেউ হোটেল গির্জায় বোমা মারছে, কেউ একজন জনপ্রতিনিধি হয়ে বাবরি মসজিদ ভাঙ্গার শরীক হতে পেরে গর্বিত হচ্ছে। যারা পৃথিবীকে আজ নরক বানাচ্ছে তাদের তো ঐক্যবদ্ধ হয়ে রুখতে হবে বিশ্বের শান্তি কামনার মানুষদের। মা-বাবা পরিবার কি করে সহ্য করবে? আহা রে কত কষ্ট পেয়েছে নিষ্পাপ

ফরজ নামাজের গুরুত্ব বেশি, নাকি শবে বরাতের?

  

পিএনএস (মো. সোলাইমান) : প্রত্যেক বছর আরবি শাবান মাসের ১৪ তারিক (দিবাগত) রাতকে শব-ই-বরাত বা লাইলাতুল বরাত পালন করা হয়। আজ রবিবার (২১ এপ্রিল) পবিত্র শব-ই-বরাত বা লাইলাতুল বরাত। এই রাতে ধর্মপ্রিয় মুসলমাগন মহন আল্লাহর সন্তুষ্ঠি অর্জনের জন্য ফরজ নামাজের পর নফল ইবাদাত বন্দেগী করে থাকেন। এই রাতের ইবাদাতের ফজিলত অন্যান্য রাতের চেয়ে অনেক বেশি। হাদিস : হজরত আয়েশা (রা.) বর্ণিত, এক রাতে রাসূল (সা.) ঘুম থেকে উঠে নামাজে দাঁড়িয়ে গেলেন, এতে এতো দীর্ঘ সময় ধরে সিজদা করলেন যে, আমার ভয় হলো তিনি মারাই

এই ধরেন ভালো লাগে, ঘোরেতে, ঠেলায়

  

পিএনএস : খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বাক্সবন্দী ক্যান্সার নির্ণয়ের মেশিন। আজ থেকে সাত বছর আগে এ মেশিন কেনা হয়। এখন পর্যন্ত ব্যবহারের জন্য খোলা হয়নি। মেশিন কিনতে লেগেছে ২০ কোটি টাকা। তার পরও সে মেশিনের বাক্স খোলা হয়নি। মেশিন নষ্ট না ভালো, তাও কেউ জানে না। বড় অদ্ভুত আমাদের স্বাস্থ্যব্যবস্থা। এ মেশিন কেনার দায় অন্য কোনো সরকারের ওপর চাপানো সম্ভব নয়। কারণ বর্তমান সরকারের প্রথম মেয়াদে এটি কেনা হয়েছিল। জেনে-শুনে আমাদের মাননীয় মন্ত্রীরা সায় দিয়েছেন স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের যৌথ প্রযোজনায়। স্বাস্থ্যসেবার

সংস্কৃতির আত্মানুসন্ধানে পহেলা বৈশাখের অগ্রযাত্রা

  

পিএনএস : বাংলা পঞ্জিকার ১ম মাস বৈশাখের ১ তারিখেই হয় ‘পয়লা বৈশাখ’ বা ‘পহেলা বৈশাখ’। বাংলা সনের এ দিনটিকেই বলা হয় বাংলা ‘নববর্ষ’। এমন দিনটিকেই বাংলাদেশের মানুষ খুব উৎসবের সঙ্গেই পালন করে আসছে। শুভ ‘নববর্ষ’ উদযাপনে সকল শ্রেণি-পেশার মানুষ জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে অংশ গ্রহণ করে থাকে। বাঙালি মেয়েরা ঐতিহ্যবাহী পোশাক শাড়ী এবং পুরুষেরা পাজামা-পাঞ্জাবি পরিধানে খুব বিনোদনপূর্ণ ভাবে এ দিনটি উৎযাপন করে। আবার প্রত্যেক ঘরে ঘরেই বিশেষ ধরণের খাবার তৈরি হয়। যেমন: পান্তা-ইলিশ এবং নানা রকমের পিঠাপুলির ব্যবস্থা

জ্ঞানহীন মানুষের হাতেই শুরু শিক্ষা ও সাক্ষরতা

  

পিএনএস, নজরুল ইসলাম তোফা : প্রস্তর যুগের আদিম মানুষ তাদের ক্রিয়াকলাপ, দেবতাকুলের শক্তি এবং লীলা বৈশিষ্ট্যের উপরেই যেন অন্ধবিশ্বাস ছিল, তখন ছিল না মনের ভাব প্রকাশের কোনো "ভাষা"। ঋতু চক্রের পরিবর্তনে জীবনকর্মের প্রয়োজনের তাগিদেই ধীরে ধীরেই নিরক্ষর মানুষ জাতিরাই সৃষ্টি করা শিখ ছিল ''ভাষা''। দীর্ঘ পথের পরিক্রমায় এমন নিরক্ষর মানব জাতি ভাষার সহিত অক্ষর আবিষ্কার করতে শিখে।এই মানব সমাজের উন্নয়ন বা অগ্রগমনের ইতিহাস যেমন বহুধা বিচিত্র। আবার সে উন্নয়নের পশ্চাতেই ক্রিয়াশীল শিক্ষার ইতিহাসও তেমনি "বিচিত্র

একটু দাঁড়াবে

  

পিএনএস (মাহতাব আব্দুল্লাহ মঞ্জুর) : একটু দাঁড়াবে!তাকাবে পেছন ফিরে খেয়ালের ভুলে!গোলাপ বাগানে সাজানো গোলাপগুলোর থেকে সবচেয়ে লাল-সজীব গোলাপটা এনেছি।ফুলের প্রণয় বাঁধবো তোমার দীঘল চুলে!একটু দাঁড়াবে!তোমার স্নিগ্ধ-কোমল- সূর্যদীপ্ত মুখটা দেখার বাকি!সহস্র ক্রোশ পথ দিয়েছি পাড়ি,শ্বাপদসংকুল পথে পা বাড়িয়েছি স্বেচ্ছায়!তোমায় কিছু বলার ছিল বাকি।একটু দাঁড়াবে!মন চায় ঐ কোমলে স্পর্শগুলো রাখি!ওই আদরের চাতক আমি উড়ছি সুদীর্ঘ কাল ধরে,ভোরের নরম আলোর মত কাছে আসবে নাকি?একটু

Developed by Diligent InfoTech