বেরোবিতে পদোন্নতিতে উপেক্ষিত নয় শিক্ষক

  

পিএনএস, বেরোবি প্রতিনিধি : রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে বেরোবি) আপগ্রেডেশন বোর্ডের সুপারিশকৃত ২৯ শিক্ষকের ২০ জনকে পদোন্নতি দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে নীলদল ও প্রগতিশীলের নয় শিক্ষকের পদোন্নতি স্থগিত করেছে সিন্ডিকেট। গত ৩ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫৪ তম সিন্ডিকেটে এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

আপগ্রেডেশন বোর্ড এবং প্লানিং কমিটি সুপারিশের পর পদোন্নতি না পাওয়ায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন কয়েকজন শিক্ষক। পদোন্নতি বঞ্চিতদের মধ্যে নীলদল ও প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের বেশ কয়েকজন প্রভাবশালী শিক্ষকও রয়েছেন বলে জানা গেছে।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, পদোন্নতিপ্রাপ্ত ২৯ শিক্ষকের মধ্যে বাংলা বিভাগের শিক্ষক ড, পরিমল চন্দ্র বর্ম্মণ সহযোগী অধ্যাপক থেকে অধ্যাপক ও গণিত বিভাগের শিক্ষক ড. মো. রুহুল আমিন সহকারি অধ্যাপক থেকে সহযোগী অধ্যাপ ও বাকী ১৮ জন শিক্ষক প্রভাষক থেকে সহকারি অধ্যাপকে পদোন্নতি পেয়েছেন।

এ বিষয়ে আজ রবিবার জানতে চাইলে রেজিষ্ট্রার ও সিন্ডিকেট সদস্য মুহাম্মদ ইব্রাহীম কবীর বলেন, শিক্ষকদের আপগ্রেডেশনের জন্য সাবেক উপাচার্য ড. এ কে এম নূর-উন-নবী’র সময়ে যে বোর্ড গঠন করা হয়েছিলো সে বোর্ডের সুপারিশপ্রাপ্তদের মধ্য থেকে সিন্ডিকেট সভায় পুনরায় যাচাই- বাছাই করে নিয়মানুযায়ী শিক্ষকদের আপগ্রেডেশন দেওয়া হয়েছে।

তবে বাকী নয় শিক্ষকের পদোন্নতি স্থগিতের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘তাঁদের আপগ্রেডেশনের রেয়াত (মেয়াদ) কম হওয়ায় পদোন্নতি স্থগিত রয়েছে।‘আপগ্রেডেশন বোর্ড তাঁদের সুপারিশ করেছে কেন, এ ব্যাপারে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, সেটা আপগ্রেডেশর বোর্ড-ই জানে।

এ দিকে পদোন্নতি না পাওয়া শিক্ষকরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। বিনা কারনেই তাঁদেরকে পদবঞ্চিত করা হয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছেন এসব শিক্ষক।

এ ব্যাপারে শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. তুহিন ওয়াদুদ বলেন, ‘উপাচার্য ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ রংপুরের বাইরে রয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ে আসলে সেটি নিয়ে আলোচনা করবো।’

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল



 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech