জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হলো তাদের

  

পিএনএস ডেস্ক : বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের আত্মহত্যার পরই মাদককাণ্ডে উঠে আসে তার প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীর নাম। এবার সেই মাদককাণ্ডে নাম জড়াল ইন্ডাস্ট্রির আরও চার অভিনেত্রীর। বিষয়টি নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দীপিকা পাড়ুকোন, সারা আলি খান, শ্রদ্ধা কাপূর ও রাকুল প্রীত সিংহকে তলব করেছে ভারতের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো (এনসিবি)। আগামী তিন দিনের মধ্যে এই চার অভিনেত্রীকে তাদের দপ্তরে উপস্থিত হওয়ার নির্দেশ দিয়েছে এনসিবি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস’র প্রতিবেদনে বলা হয়, দীপিকা এই মুহূর্তে গোয়া রাজ্যে পরিচালক শকুন বাত্রার একটি ছবির শুটিংয়ে রয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার পর্যন্ত শুটিং হলেও আজ বুধবার থেকে আপাতত স্থগিত রয়েছে। দীপিকার পাশপাশি গতকালই তার ম্যানেজার কারিশ্মা প্রকাশকে ডেকে পাঠিয়েছে এনসিবি। তবে শারীরিক অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে আপাতত এনসিবির কাছ থেকে কিছু দিন সময় চেয়েছেন কারিশ্মা। কয়েকটি সূত্র বলছে, দীপিকা ও কারিশ্মা এই মুহূর্তে একসঙ্গে গোয়া রাজ্যেই রয়েছেন।


প্রতিবেদনে বলা হয়, সোমবার রাতেই বেশ কয়েকজন বলেউড তারকার হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট এনসিবির হাতে আসে। চ্যাটটি বেশ পুরোনো, ২০১৭ সালের। সেই চ্যাটে দেখা যায়, ‘ডি’ ও ‘কে’ নামে দুই ব্যক্তির মধ্যে মাদক প্রসঙ্গে একাধিকবার কথা চালাচালি হয়েছে। কখনো ‘ডি’, ‘কে’-কে গাঁজা আছে কি না জিজ্ঞাসা করছেন। আবার কখনো বা ‘কে’ তাকে (ডি’কে) গাঁজার হদিস দিচ্ছেন।

বলিউডের একাংশের দাবি, এই ‘ডি’ হলেন দীপিকা পাড়ুকোন। আর ‘কে’ অর্থাৎ কারিশ্মা দীপিকার ম্যানেজার। এই বিষয়টিই খতিয়ে দেখছে এনসিবি। পাশাপাশি এনসিবির নজরে রয়েছে বছর তিনেক আগে দীপিকাসহ বলিউডের বেশ কয়েকজন নামজাদা অভিনেতার ক্লাব ‘কোকো’তে একটি পার্টির ঘটনা। বলিউডের ভেতর মহলের খবর, ওই পার্টির জন্যই ‘ডি’, ‘কে’-কে গাঁজার খবর জানতে চাইছিলেন।

কারিশ্মা কাজ করেন ‘কওয়ান ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্ট এজেন্সি’তে। সেই এজেন্সির কর্ণধার মধু মন্টেনাকে আজ জেরা করেছে এনসিবি। কারিশ্মা আবার সুশান্তের প্রাক্তন ম্যানেজার জয়া সাহারও ঘনিষ্ঠ বন্ধু। এই জয়ার সঙ্গেই রিয়া চক্রবর্তীর মাদক সংক্রান্ত চ্যাট কিছু দিন আগেই ফাঁস হয়েছিল। জয়া রিয়াকে লিখেছিলেন, ‘সুশান্তের চায়ে চার ফোঁটা মিশিয়ে দিও। ৩০/৪০ মিনিটের মধ্যেই ফল টের পাবে।’

গত তিন ধরেই জয়াকে নিয়মিত তাদের দপ্তরে ডেকে পাঠাচ্ছে এনসিবি। শোনা যাচ্ছে, জয়া ও কারিশ্মাকে মুখোমুখি বসিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। এনসিবি সূত্রে জানা যাচ্ছে, মঙ্গলবার জয়া সাহা জিজ্ঞাসাবাদের সময় এনসিবিকে জানান, রিয়া, শ্রদ্ধা ও সুশান্তের জন্য তিনিই সিবিডি অয়েল (ক্যানাবিডিয়ল) কিনে দিয়েছিলেন। সিবিডি আদপে গাঁজা থেকে তৈরি এক ধরনের তেল জাতীয় পদার্থ।

এনসিবি সূত্রে আরও জানা যাচ্ছে, রাকুল ও সারার নাম বয়ানে উল্লেখ করেন মাদককাণ্ডে অন্যতম অভিযুক্ত রিয়া চক্রবর্তী। রিয়ার বয়ান অনুযায়ী, ‘কেদারনাথ’ ছবির শুটিংয়ের সময় থেকেই মাদকাসক্ত হয়ে পড়েন সুশান্ত। ওই ছবিতে সুশান্তের কো-স্টার ছিলেন সারা। সে সময় সম্পর্কেও ছিলেন তারা। কিছু দিন আগেই সারা এবং সুশান্তের একটি পুরোনো ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল। সেই ভিডিওতে দেখা গিয়েছিল সারা-সুশান্ত একসঙ্গে ধূমপান করছেন।

এদিকে রিয়া এনসিবিকে জানিয়েছেন, সুশান্তের সিগারেটে গাঁজা ভরে খাওয়ার অভ্যাস ছিল। আর সেই অভ্যাস নাকি হয়েছিল ‘কেদারনাথ’ শুটের সময়েই। সুশান্তের মতো সারাও মাদকে আসক্ত কি না, সেই বিষয়টিই খতিয়ে দেখবে এনসিবি।

তবে এখনো পর্যন্ত সারা, দীপিকা, রাখুল বা শ্রদ্ধা কেউই এ বিষয়ে কোনো প্রতিক্রিয়া দেননি। তবে বলিউডের প্রথম সারির অভিনেতাদের নাম হঠাৎ-ই মাদক মামলায় জড়িয়ে যাওয়ায় আপাতত স্তম্ভিত বলিউড। শোনা যাচ্ছে, এখানেই শেষ নয়। এনসিবির নজরে আরও বেশ কয়েকজন বলিস্টার। এরপর কার ডাক পড়বে এখন সেটাই দেখার পালা।

পিএনএস /জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন