টক তেঁতুলের মিষ্টি গুণ

  

পিএনএস ডেস্ক: তেঁতুল পছন্দ করে না বা এর লোভনীয় স্বাদের কথা মনে পড়লে যে জিভে জল আসে না, তেমন লোক বোধহয় খুঁজে পাওয়া কঠিন। বিশেষ করে তরূণী বা মহিলাদের খাবারের তালিকায় তেঁতুল উপরের সারিতেই থাকবে। তবে আপনি পুরুষ হোন বা মহিলা, যদি জানেন টক স্বাদের এই ফলটির গুণাগুণ তাহলে হয়ত তেঁতুলকে মিষ্টি মনে করেই খাওয়া শুরু করবেন! আজ জানবো, স্বাদে টক তবে গুণে মিষ্টি ফল তেঁতুলের স্বাস্থ্য উপকারিতা সম্পর্কে...

৥ ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণে: আজকাল ডায়বেটিস রুগির সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলছে। এ রোগ থেকে পরিত্রাণ পেতে কত কিছুই না করছে রোগীরা। তবে আপনি জানেন কি, তেঁতুলের বীজ ডায়বেটিস কন্টোল করতে সক্ষম? হ্যাঁ, তেঁতুল রক্তে চিনির মাত্রাও ঠিক রাখে। এতে উপস্থিত এক ধরণের এনজাইম যার নাম রক্তে চিনির মাত্রা কমায়। ফলে রোগটিও থাকে কন্ট্রোলে।

৥ ক্যান্সার রোধে: তেঁতুলে উচ্চ পরিমাণে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট আছে যা কিডনি ফেলিওর এবং ক্যান্সার রোধ করতে সাহায্য করে। ফলে ভেবে দেখুন তেঁতুল খাবেন কিনা!

৥ উচ্চ রক্তচাপ উপশম: কাঁচা অথবা পাকা তেঁতুল খেলে উচ্চ রক্তচাপ বা হাইপ্রেসার তাৎক্ষণিকভাবে উপশম হয়। এছাড়া রক্তে কোলস্টেরল কমানোর কাজে আধুনিক কালে তেঁতুল ব্যবহার হচ্ছে। জ্বরে আক্রান্ত রোগীর জ্বর কমানোর জন্য এ ফল ব্যবহৃত হয়।

৥ লিভার সুরক্ষিত রাখে: তেঁতুল আমাদের লিভার বা যকৃতকেও ভালো রাখে। গবেষণায় দেখা গেছে যে, নিয়মিত তেঁতুল পাতা ব্যবহার করে উচ্চ মাত্রায় মদ্যপানের ফলে ড্যামেজড লিভার অনেকটা সেরে উঠেছে।

৥ স্থূলতা হ্রাসে: স্থূলতার সঙ্গে হার্ট, লিভার, কিডনি এবং কিছু পেটের অসুখের সংযুক্ত রয়েছে। গবেষণায় দেখা গেছে, তেঁতুল ওজন কমাতে সহায়তা করে এবং স্থূলতা কমিয়ে দেয়। এছাড়া, তেঁতুল খেলে ক্ষতিকর কোলেস্টেরল ধ্বংস হয় এবং উপকারী কোলেস্টেরল বাড়িয়ে দেয়।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন