ভারত-আমেরিকাকে জবাব দিতে চীনের সামরিক মহড়া

  

পিএনএস ডেস্ক: শুধু সামরিকভাবে দেশকেই শক্তিশালী করা নয়, প্রতিবেশী দেশগুলিকে কড়া ভাষায় জবাব দিতে সবথেকে বড় সামরিক মহড়া দিল চীন। প্রতিবেশী দেশকে জবাব দেওয়ার পাশাপাশি গোটা এলাকাজুড়ে যাতে একটা আতংকের পরিবেশ তৈরি করা যায় সেই লক্ষ্যেই এই মহড়া দিল চীনা সেনারা। খবর কলকাতানিউজ টোয়েন্টিফোর সেভেনের।

সামরিক পর্যবেক্ষকদের মতে, আমেরিকা এবং ভারত এই দুই দেশ আগামীতে চীনের কাছে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে। মূলত এই দুই দেশকে চাপে রাখতেই চীন এই সামরিক মহড়া দিল বলে মনে করা হচ্ছে। এই মহড়ায় চীনের নবগঠিত রকেট ফোর্সসহ তিন বাহিনী অংশ নেয়। অন্তত্য গোপনে এই মহড়া চালানো হয়।

জানা যায়, চীনের এই মহড়ায় ১০০টি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়া হয়। শুধু মহড়া দেওয়াই নয়, একইসঙ্গে চীনের সামরিক ক্ষেত্রে বিরাট পরিবর্তনও আনা হয়। এই মহড়ার মাধ্যমে চীনের অত্যাধুনিক রকেট ফোর্সসহ তিন বাহিনীকে কার্যত ঢেলে সাজানো হয়।

চীনের সরকারি সংবাদসংস্থা জিনহুয়া জানিয়েছে, চীনা সেনাদের ১৫টি বিগ্রেড প্রায় ১০০টি মহড়া দেয়। বিমানসেনার ৬টি ইউনিটকে নামানো হয়। পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগর এবং বিতর্কিত দক্ষিণ চীন সাগরে এই মহড়া চলে। রকেট ও ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়ার জন্য রকেট ফোর্সের সেনাদের আরও পারদর্শী করে তোলা হয়। এই মহড়া থেকে কমপক্ষে ১০০টি ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়া হয়। নৌবাহিনীর ২০টি জাহাজ এই মহড়ায় অংশ নেয়।

গোপন এই মহড়ার কথা প্রকাশ্যে আসতেই চূড়ান্ত সতর্কতা জারি করল প্রতিবেশি দেশগুলি। কারণ যেভাবে নিয়মকে পাত্তা না দিয়ে একসঙ্গে ১০০টি মিসাইক ছুড়েছে চীন, তাতে যে কোনও সময়ে আঘাত-পেতে পারে প্রতিবেশি দেশগুলিও। সেজন্যেই এই নিরাপত্তা প্রতিবেশি দেশগুলির।

পিএনএস/আলআমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech