কাশ্মীরে বাস খাদে পড়ে ১৬ অমরনাথ তীর্থযাত্রী নিহত

  


পিএনএস ডেস্ক: কয়েকদিন আগেই অস্ত্রধারীদের হামলায় ৮ অমরনাথ তীর্থযাত্রী প্রাণ হারিয়েছিলেন। এবার জম্মু-কাশ্মীরের রম্বান জেলায় সেই অমরনাথ তীর্থযাত্রী বোঝাই বাস গিয়ে পড়ল একশো ফুট গভীর খাদে।

রবিবার দুপুরে জেলার বানিহালের কাছে নাচিলানা এলাকার ঐ দুর্ঘটনায় ১৬ জনের মৃত্যু হয়। এ সময় আহত হয়েছেন অন্তত ৩০ জন।

বাসটি খাদে পড়ে যাওয়ার প্রচণ্ড আওয়াজ পেয়ে স্থানীয়রাই প্রথমে ছুটে আসেন। সেনা, সিআরপিএফ ঘটনাস্থলে পৌঁছনোর আগেই দড়ির সাহায্যে খাদে নেমে ভাঙাচোরা বাস থেকে বের করে আনেন বহু যাত্রীকে।

বানিহালের এক পুলিশ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, জম্মু থেকে শ্রীনগর যাচ্ছিল স্টেট রোড ট্রান্সপোর্টের বাসটি। পহেলগাম বেস ক্যাম্প থেকে প্রায় একশো কিলোমিটার দূরে নাচিলানায় একটি গভীর বাঁকে আচমকা নিয়ন্ত্রণ হারান চালক। বাসটি সোজা গিয়ে পড়ে খাদে। দুর্গম ঐ রাস্তায় আহতদের হাসপাতালে পৌঁছতে যথেষ্ট বেগ পেতে হয়েছে। প্রথমে খোলা আকাশের নীচেই আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়। পরে হেলিকপ্টারে তাদের অন্যত্র সরানো হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, ১৯ জন গুরুতর আহতকে জম্মু এবং বাকি পাঁচ জনকে সৌরার এসকেআইএমএসে ভর্তি করানো হয়েছে। বানিহালের হাসপাতালে রয়েছেন দু’জন। বাসের চালক ও খালাসির কী অবস্থা, তা এখনো জানাতে পারেনি পুলিশ।

সে দিনের হামলার পরে সরকার বারবার অমরনাথ যাত্রীদের নিরাপত্তা বাড়ানোয় গুরুত্বের কথা বলেছে। তার পরেও আজকের দুর্ঘটনা প্রশ্ন তুলে দিল পুণ্যার্থীদের সুরক্ষা নিয়ে। যদিও আজকের দুর্ঘটনার পিছনে এখনো নাশকতার গন্ধ পায়নি পুলিশ।

পাহাড়ি ঐ রাস্তায় সাধারণত দক্ষ চালকেরাই বাস চালান। তবে আজ কী করে চালক নিয়ন্ত্রণ হারালেন? পুলিশের একাংশের ধারণা, সম্ভবত টায়ার ফেটেই বিপত্তি ঘটে। পাহাড়ি সরু রাস্তায় চালক আর সামলাতে পারেননি।

পুলিশ জানায়, বাসটিতে মোট ৪৩ জন তীর্থযাত্রীর পাশাপাশি কয়েকজন স্থানীয় বাসিন্দাও ছিলেন। রাত পর্যন্ত মৃতদের পরিচয় জানাতে পারেনি পুলিশ। শুধু জানা গিয়েছে, মৃতদের দু’জন রাজস্থানের বাসিন্দা। সূত্র: আনন্দবাজার

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech