ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে তুরস্কের অবস্থানকে ‘অনন্য’

  

পিএনএস ডেস্ক: মার্কিন দূতাবাস তেল আবিব থেকে জেরুজালেমে স্থানান্তরে ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে তুরস্কের অবস্থানকে ‘অনন্য’ বলে মন্তব্য করেছেন হামাসের মুখপাত্র সামি আবু জুহুরি।

মঙ্গলবার তুর্কি রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম আনাদুলো এজেন্সিকে তিনি এই কথা বলেন।

সামি আবু জুহুরি বলেন, ‘তুর্কি কর্তৃপক্ষের এই অনন্য অবস্থান এবং মহান তুর্কি জনগণ হচ্ছেন এই নেতৃত্বের প্রতিফলন।’

তিনি বলেন, আমেরিকার এই পদক্ষেপ অত্যন্ত গুরুতর এবং এর মাধ্যমে মুসলিম বিশ্বাস ও পবিত্র স্থানগুলোকে টারগেট করা হয়েছে।

বুধবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিতে যাচ্ছেন বলে হোয়াইট হাউজের একজন সিনিয়র কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

একই সঙ্গে তেল আবিব থেকে মার্কিন দূতাবাস জেরুজালেমে সরিয়ে নেয়ার জন্য দীর্ঘ প্রক্রিয়া শুরু করতে স্টেট ডিপার্টমেন্টকে নির্দেশ দিয়েছেন বলে তিনি জানিয়েছেন।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের এই পরিকল্পনার বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি দেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান। ট্রাম্পের এই ধরণের পদক্ষেপ মুসলিমদের জন্য একটি ‘রেড লাইন’ বলে তিনি সর্তক করে দেন।

ট্রাম্পের এই পদক্ষেপের প্রতিক্রিয়ায় মঙ্গলবার পার্লামেন্টে দেয়া বক্তৃতায় এরদোগান বলেন, এমনটা করলে এ বিষয় নিয়ে আমরা ইসরাইলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক পর্যন্ত ছিন্ন করতে পারি।

তিনি ট্রাম্পকে সতর্ক করে বলেন, জেরুজালেমকে স্বীকৃতি দিতে ট্রাম্পের যে কোনো পদক্ষেপের বিরোধিতা করার জন্য আমি ইসলামি সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) দেশগুলোর একটি শীর্ষ সম্মেলন আহ্বান করব।

এদিকে জেরুজালেমকে ইহুদি রাষ্ট্র ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প একতরফাভাবে ঘোষণা দিতে পারেন—এমন সম্ভাবনায় ‘উদ্বেগ’ প্রকাশ করেছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাখোঁ। মাখোঁ বলেন, তিনি মার্কিন প্রেসিডেন্টকে তাঁর এ উদ্বেগের কথা জানিয়েছেন।

গত রবিবার ওয়াশিংটনের ব্রুকিংস ইনস্টিটিউট আয়োজিত এক ফোরামে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের জামাতা ও মধ্যপ্রাচ্যের শান্তিপ্রক্রিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের দূত জ্যারেড কুশনার বলেন, ট্রাম্প জেরুজালেমের মর্যাদা প্রশ্নে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে আসতে পারেননি।

জেরুজালেমকে রাজধানী দাবি করে আসছে ইসরাইল। তবে পূর্ব জেরুজালেমকে ভবিষ্যত ফিলিস্তিনি রাষ্ট্রের রাজধানী হিসেবে দেখতে চায় দেশটির জনগণ।

ইহুদি-খ্রিস্টান ও মুসলিম; তিন সম্প্রদায়ের মানুষের জন্য পবিত্র ধর্মীয় স্থান জেরুজালেম। তেল আবিব থেকে মার্কিন দূতাবাস জেরুজালেমে সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণে ৪ ডিসেম্বর সময়সীমা পার হয়ে গেছে।

সোমবার দূতাবাস সরিয়ে নেওয়ার ঘোষণা না দেওয়ায় দেশটির আইন অনুযায়ী আরও ছয় মাসের মধ্যে দূতাবাস সরছে না। দূতাবাস সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত আপাতত স্থগিত করলেও আশঙ্কা রয়েছে জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা করতে পারেন ট্রাম্প।

চলমান উত্তেজনার মধ্যেই ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসকে ফোন করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু ও জর্ডানের বাদশা আব্দুল্লাহ’র সঙ্গেও কথা বলেছেন অথবা বলবেন ট্রাম্প।

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech