মালদ্বীপে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন: নিজেকে বিজয়ী দাবি সলিহ’র

  


পিএনএস ডেস্ক: মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সম্মিলিত বিরোধী জোটের প্রার্থী ইব্রাহিম মোহাম্মদ সলিহ জয়ের দাবি করেছেন। জোটের কর্মকর্তা ও একটি নিরপেক্ষ পত্রিকা জানায়, ৯০ ভাগ ভোট গণনা শেষে সলিহ ৫৮ ভাগ ভোট পেয়ে এগিয়ে রয়েছেন। আর বর্তমান প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিন পেয়েছেন ৪২ ভাগ ভোট। তবে এ ব্যাপারে ইয়ামিন বা নির্বাচন কমিশন কোনো মন্তব্য করেনি। খবর আলজাজিরা ও বিবিসির

চার দলীয় জোটের প্রার্থী সলিহ রবিবার টেলিভিশন বক্তৃতায়ও জয়ের দাবি করেছেন। তিনি মালেতে বলেন, আমরা এই নির্বাচনে সহজ জয় পেয়েছি। এখন আনন্দের সময়। এখন আশা সময়। এটি ইতিহাসের মুহূর্ত। আমরা ন্যায়সঙ্গত ও শান্তিপূর্ণ মালদ্বীপ গড়ে তুলব। আমি সকল মালদ্বীপবাসীর প্রেসিডেন্ট হবো।

তিনি বলেন, আমি আবদুল্লাহ ইয়ামিনকে বলব, জনগণের রায়কে মেনে নিয়ে দ্রুত ক্ষমতা হস্তান্তর করতে।

মালদ্বীপের বিতর্কিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট প্রদানের সময় তিনঘণ্টা বৃদ্ধি করে দেশটির নির্বাচন কমিশন। ভোটকেন্দ্রে উচ্চহারে ভোটারদের উপস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে নির্বাচন কমিশন এ সিদ্ধান্ত নেয়। স্থানীয় সময় সকাল ৮ টার আগেই ভোট দেয়ার উদ্দেশ্যে ভোটকেন্দ্রগুলোতে ভোটারদের লম্বা লাইন পড়ে। কোথাও কোথাও ভোটাররা ছয়ঘণ্টার বেশি সময় লাইনে দাঁড়িয়ে ভোট দেন।

জাতীয় নির্বাচন কমিশনের উপপ্রধান আহমেদ আকরাম বলেন, ভোটারদের বিপুল উপস্থিতির কারণে দেশের ভেতরে ও বাইরে সবগুলো ভোটকেন্দ্রে ভোট গ্রহণের সময় তিনঘণ্টা বৃদ্ধি করা হয়েছে। কারণ, সব ভোটকেন্দ্রেই ভোটাররা লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছিলেন। ফলে সকাল ৮টায় শুরু হওয়া ভোটগ্রহণ সমাপ্ত হয় স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টায়, যা পূর্বে বিকেল ৪টায় শেষ হওয়ার কথা ছিল।

এবারের নির্বাচনটিকে গণতন্ত্রের ওপর গণভোট হিসেবে দেখা হচ্ছে। এর মাধ্যমেই ভোটাররা নির্বাচন করবেন, সমস্যাসঙ্কুল এ দ্বীপরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিন দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় থাকবেন, না নতুন কেউ ক্ষমতায় আসবেন। এবারের নির্বাচনে বর্তমান প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিনের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বিরোধী দলীয় নেতা ও দীর্ঘ দিনের পার্লামেন্ট সদস্য ইবরাহিম মোহাম্মদ সালিহ।

কিছু কিছু দ্বীপাঞ্চলে ভোটাররা সারারাত ধরে লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছিলেন। তাদেরই একজন ২০ বছর বয়সী আজকা আদিল প্রথমবারের মতো ভোট দিতে এসে নার্ভাস অনুভব করছিলেন। তারপরও তিনি আগে থেকেই লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছিলেন, কারণ তার আশঙ্কা ভোট কারচুপি হতে পারে। সাড়ে তিন লাখ জনসংখ্যার দেশ মালদ্বীপে ভোটাধিকার রয়েছে আড়াই লাখেরও বেশি মানুষের। ২০১২ সালে তৎকালীন প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাশিদকে ক্ষমতাচ্যুত করার পর এটিই প্রথম গণতান্ত্রিক নির্বাচন। রবিবার মধ্যরাতের মধ্যে ভোটের ফল পেয়ে যাওয়ার কথা।

এ নির্বাচনের প্রধান প্রার্থী আবদুল্লাহ ইয়ামিন ২০১৩ সালে বিতর্কিত এক নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় আসেন। তার বিরুদ্ধে বিরোধী দলীয় সদস্যদের নির্বাসন, জেল দেয়া, আন্দোলন নিষিদ্ধ করা, পার্লামেন্ট ভেঙে দেয়া এবং পাঁচ বছরের মধ্যে দুইবার জরুরি অবস্থা জারির অভিযোগ রয়েছে।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech