সৌদিতে খুনের দায়ে মাথা কাটা গেলো দুই ভারতীয়’র

  

পিএনএস ডেস্ক : খুনের অভিযোগে সৌদি আরবে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হল দুই ভারতীয়কে। বুধবার ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এই খবর নিশ্চিত করেছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম। ওই দুই ভারতীয়’র গলা কেটে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

জানা গেছে, চণ্ডীগড়ে হোশিয়ারপুরের বাসিন্দা সতীন্দর কুমার ও লুধিয়ানার হরজিত সিংয়ের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ উঠেছিল। তাই তাঁদের শাস্তি দেওয়া হয়েছে। চলতি বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারি তাদের ওই শাস্তি দেওয়া হয়।

তবে নিয়ম অনুযায়ী, রিয়াদের ভারতীয় দূতাবাসকে এই ঘটনার কথা জানায়নি সৌদি প্রশাসন। এমনকি পরিবারের হাতে মৃতদেহও ফেরানো হয়নি। সৌদি আইনি প্রক্রিয়ার জন্য আটকে দেওয়া হয় মৃতদেহ।

কিছু লুটের টাকা নিয়ে ইমামুদ্দিন নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে ঝামেলা হয় হরজিত ও সতীন্দরের। তাদের হাতেই খুন হয় ইমামুদ্দিন। ঘটনার কয়েকদিন পর দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের সঙ্গে খুনের সংশ্লিষ্টতা প্রমাণিত হয়। তাদের দু’জনকে রিয়াদের জেলে রাখা হয়েছিল।

সতীন্দরের স্ত্রী সীমা রানি স্বামীর অবস্থার কথা জানতে চেয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন জানিয়েছিল। এরপরই খোঁজখবর নেওয়া হয়। গত সোমবার সীমা রানির কাছে একটি চিঠি এসেছে, তাতে জানানো হয়েছে যে ২০১৫-র ৯ ডিসেম্বর আরিফ ইমামুদ্দিনকে খুনের অভিযোগে হরজিত ও সতীন্দরকে গ্রেফতার করা হয়।

তাদের রিয়াদ জেলে আনার পর জেরায় তারা খুনের কথা স্বীকার করে। ২০১৭ সালের ৩১ মে সেই মামলার শুনানি হয়। এরপরই দেওয়া হয় মৃত্যুদণ্ড। দূতাবাসকে না জানিয়েই শিরশ্ছেদ করে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়।

পিএনএস/মো: শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech