অন্তর্বাসে ৪ লাখ টাকা লুকিয়েও ধরা খেলেন সিনেটর

  

পিএনএস ডেস্ক: পুলিশি অভিযানের সময় অন্তর্বাসের ভেতরে টাকা লুকিয়েও রেহাই পাননি ব্রাজিলের কট্টর ডানপন্থী প্রেসিডেন্ট জইর বলসোনারোর মিত্র দেশটির পার্লামেন্টের একজন সিনেটর।

এএফপির প্রতিবেদনের তথ্যমতে, মহামারি করোনা মোকবিলায় সরকারি তহবিল তছরূপের অভিযোগের তদন্তে ওই সিনেটরের বাসায় অভিযান চালায় পুলিশ। এসময় তার অন্তর্বাসের ভেতরে লুকিয়ে রাখা ৩০ হাজার ব্রাজিলীয় রিয়াল (বাংলাদেশি প্রায় ৪ লাখ ৫৩ হাজার ৩২২ টাকা) উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সরকারের ঘনিষ্ঠ এই সিনেটরকে অন্তর্বাসের ভেতরে রাখা অর্থসহ হাতে-নাতে ধরার ঘটনা দেশটির প্রথম সারির সব গণমাধ্যমে ফলাও করে প্রচার করা হয়েছে।

স্থানীয় গণমাধ্যম বলছে, দুর্নীতির অভিযোগের তদন্তের অংশ হিসেবে বুধবার দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ রোরাইমায় সিনেটর চিকো রদ্রিগেজের বাসায় তল্লাশি অভিযান পরিচালনা করেছেন ফেডারেল কর্মকর্তারা।

এসময় তারা রদ্রিগেজের অন্তর্বাসের ভেতরে দুই নিতম্বের মাঝ থেকে নগদ ৩০ হাজার রিয়াল উদ্ধার করেন। তদন্ত কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে দেশটির প্রধান সংবাদমাধ্যম ও গ্লোবো, ফোলহা ডে সাওপাওলো এবং এসতাদাও ভিন্ন ভিন্ন প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

রোরাইমা প্রদেশে করোনার প্রাদুর্ভাব মোকাবিলায় সরকারের গঠিত তহবিল থেকে অর্থ লুটপাটের চেষ্টা নস্যাৎ করতে ওই অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে বলে ফেডারেল পুলিশ কর্মকর্তারা ফরাসী বার্তাসংস্থা এএফপিকে নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে, সিনেটর রদ্রিগেজ এক বিবৃতিতে তার বাসায় পুলিশের তল্লাশি অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তবে সেখান থেকে পুলিশের অর্থ উদ্ধারের ব্যাপারে কোনও তথ্য বিবৃতিতে উল্লেখ করেননি তিনি।

সিনেটর রদ্রিগেজের বাসায় পুলিশি অভিযানের ঘটনাকে সরকারের দুর্নীতির প্রতিচ্ছবি হিসেবে গণমাধ্যম তুলে ধরছে বলে অভিযোগ করেছেন ব্রাজিল প্রেসিডেন্ট জইর বলসোনারো।

তিনি বলেছেন, আমার সরকারে যে কোনও দুর্নীতি নেই; এই অভিযানটি তার আদর্শ উদাহরণ। আমরা দুর্নীতি প্রতিরোধ করছি, তা এর সঙ্গে যেই জড়িত থাকুক না কেন।

দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ২০১৮ সালে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন বলসোনারো। কিন্তু ক্ষমতায় আসার পর তিনি বেশ কয়েকটি দুর্নীতি কেলেঙ্কারির মুখোমুখি হয়েছেন। এমনকি তার ছেলে ফ্লাভিওর বিরুদ্ধে একটি দুর্নীতির মামলার তদন্ত চলছে। বলসোনারো রিও ডি জেনেরিও রাজ্যের বিধায়ক থাকাকালীন ছেলে ফ্লাভিও সরকারি তহবিলের অর্থ লুটপাট করেছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন