৩ মাসের মধ্যে সব নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করতে হবে যুক্তরাষ্ট্রকে ইরান

  

পিএনএস ডেস্ক:পরমাণু সমঝোতায় আমেরিকার ফিরে আসার জন্য নতুন করে কোনো আলোচনার প্রয়োজন নেই বরং ওয়াশিংটন এই সমঝোতায় নিজের দেওয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করলেই তার ফিরে আসার পথ সুগম হবে বলে জানিয়েছে ইরান।

জাতিসংঘে নিযুক্ত ইরানের স্থায়ী প্রতিনিধি মাজিদ তাখতে রাভানচি বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) রাতে আলজাজিরাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, আগামী তিন মাসের মধ্যে তেহরানের ওপর আরোপিত সব নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করতে হবে। আর আমেরিকা তা করলেই ইরান নিজের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে পুরোপুরি ফিরে যাবে।

সংসদে পাস হওয়া আইন অনুযায়ী ইরান সম্প্রতি এনপিটি চুক্তির সম্পূরক প্রটোকল বাস্তবায়ন স্থগিত করে দিয়েছে। এর ফলে এখন থেকে আর আইএইএ’র বিশেষজ্ঞরা পূর্ব ঘোষণা ছাড়া ইরানের পরমাণু স্থাপনাগুলো পরিদর্শন করতে পারবেন না। তবে ওই সংস্থার প্রধান রাফায়েল গ্রোসির সাম্প্রতিক তেহরান সফরে অর্জিত সমঝোতা অনুযায়ী, আইএইএ’র বিশেষজ্ঞরা আগামী তিন মাস আগে থেকে ঘোষণা দিয়ে ইরান সফরে যেতে পারবেন।

তাখতে রাভানচি দৃশ্যত এই তিন মাসের মধ্যে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের জন্য আমেরিকাকে সময়সীমা বেধে দিলেন।

২০১৮ সালের মে মাসে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে তার দেশকে বের করে নিয়ে তেহরানের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন। ইরানও এর প্রতিক্রিয়ায় পরমাণু সমঝোতায় নিজের দেয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন কমিয়ে দিতে শুরু করে এবং বর্তমানে শতকরা ২০ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করছে তেহরান।

নয়া মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তার দেশের পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসার জন্য এখন ইরানকে আগে তার প্রতিশ্রুতিতে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানাচ্ছেন। কিন্তু তেহরান বলছে, আগে আইন লঙ্ঘন করেছে বলে আমেরিকাকেই আগে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে সদিচ্ছার পরিচয় দিতে হবে এবং তারপর তেহরান তার প্রতিশ্রুতিতে পুরোপুরি ফিরে যাবে।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন