ইংল্যান্ডে কন্ডোমের স্তূপে বন্ধ নালা!

  

পিএনএস ডেস্ক: ব্যবহৃত কন্ডোমের স্তূপে আবদ্ধ নিকাশি ব্যবস্থা। নালার মুখ বন্ধ হয়ে শৌচাগারে দেখা দিল অকাল সুনামি, দুর্গন্ধে ভরে উঠল গোটা মহল্লা। এদেশ নয়, সম্প্রতি এমন সমস্যায় ভুগছে ইংল্যান্ড।

নিকাশি সমস্যায় জর্জরিত ইংল্যান্ড। নাগরিক সচেতনার অভাবে নিকাশি নালা বেয়ে হাইড্র্যান্টে জমা হচ্ছে ব্যবহৃত কন্ডোম, স্যানিটারি ন্যাপকিন, ওয়েট ওয়াইপস ও ফেলে দেওয়া চর্বির দলা। সব রকম জঞ্জাল মিলেমিশে তৈরি হচ্ছে বিশাল চটচটে বুদবুদ। বেলুনের মতো ফুলে উঠে তা আটকে দিচ্ছে গৃহস্থবাড়ির নিকাশিমুখ। ফলে শৌচাগার ও রান্নাঘরে উল্টো স্রোতে হুড়মুড় করে ঢুকে পড়ছে দুর্গন্ধযুক্ত ময়লা তরল, ঠাট্টা করে যার নাম দেওয়া হয়েছে poo-nami।

সাফাই সংস্থা অ্যাংলিয়ান ওয়াটার প্রকাশিত ছবিতে দেখা গিয়েছে, শৌচাগারের নানান বর্জ্য জমে নিকাশি নালার ভিতরে তৈরি হয়েছে জঞ্জালের বিশাল বুদবুদ যাকে স্থানীয়রা হিমশৈলের অনুকরণে ডাকেন 'জনিবার্গ' নামে। চলতি বছরের গোড়ার দিকে ট্র্যানজিট ভ্যানের আকারের এমনই এক বিশাল জনিবার্গ হাইড্র্যান্টের মুখ আটকে ময়লা জল যাওয়ার পথ রুখেছিল। শেষ পর্যন্ত তা সাফ করতে একদন ইঞ্জিনিয়ারকে নিয়োগ করতে বাধ্য হয় অ্যাংলিয়ান ওয়াটার। আঠালো সেই বুদবুদ ফাটাতে শেষ পর্যন্ত শরণাপন্ন হতে হয় জলকামানের। বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, শৌচাগার ও রান্নাঘরের বর্জ্য জমেই তা সৃষ্টি হয়েছিল।

প্রশাসনের তরফে বার বার প্রচার করা সত্ত্বেও কমোডে ব্যবহৃত কন্ডোম, স্যানিটারি ন্যাপকিন ও ওয়েট ওয়াইপস ফেলে ফ্লাশ করার অভ্যাস ছাড়েননি অধিকাংশ ব্রিটিশ নাগরিক। একই ভাবে কিচেন সিঙ্কে মাংসের অিরিক্ত চর্বি ধুয়ে ফেলা হচ্ছে। একই ভাবে বেশ কয়েকটি রেস্তোরাঁ থেকেও রোজ নিষিদ্ধ বর্জ্য ফেলা হচ্ছে নিকাশি নালায়। সম্প্রতি লিঙ্কন শহরের নিকাশি নালার ভিতরে মিলেছে ২১ টন ওজনের বিশাল আবর্জনার চাঁই। প্রতি সপ্তাহে পূর্ব ইংল্যান্ডে কন্ডোম ও স্যানিটারি ন্যাপকিন তেকে তৈরি আবর্জনার দলার ওজন দাঁড়িয়েছে ৮০০ টন।

জানা গিয়েছে, দলা পাকানো জঞ্জালের বিশাল স্তূপ সরাতে মোটা খরচ বহন করতে হচ্ছে প্রশাসনকে। এর জন্য বছরে ব্যয় হচ্ছে ৯০ কোটি পাউন্ড। শুধু তাই নয়, বর্জ্য থেকে ছড়াচ্ছে তীব্র দূষণ, যার জেরে বিপন্ন হচ্ছে কচ্ছপের মতো বহু বিরল সামুদ্রিক প্রাণী।


পিএনএস/আলআমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech