বাংলাদেশে বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গার সংখ্যা ৯,২৬,৪৩১

  


পিএনএস, কক্সবাজার: বাংলাদেশে ৯ লাখ ২৬ হাজার ৪৩১ জন বাস্তুচ্যুত মিয়ানমারের নাগরিক বসবাস করছে। কক্সবাজার জেলা প্রশাসন এক হিসাবে এমন তথ্য দিয়েছে। জেলা প্রশাসনের হিসাবে বলা হয়েছে, ২০১৬ সালের আগের কয়েক বছরে ৩-৫ লাখ মিয়ানমার নাগরিক বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

এ সংখ্যা দিন দিন বেড়েছে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সর্বশেষ হিসাবে জানা গেছে, কক্সাবাজর ও বান্দরবান জেলার ১৮টি ক্যাম্পে পাঁচ লাখ ৩৭ হাজার মিয়ানমারের রোহিঙ্গা বসবাস করছে।

এর মধ্যে কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং রেজিস্টার্ড ক্যাম্পে ১৬ হাজার, কুতুপালং অস্থায়ী ক্যাম্পে এক লাখ ৮২ হাজার, বালুখালী অস্থায়ী ক্যাম্পে ৭০ হাজার, ময়নার ঘোনায় ৫৮ হাজার, তাসনিমার খোলায় ২৫ হাজার, জামতলী বাঘঘোনায় ১৮ হাজার, শফিউল্লা কাটায় ১৪ হাজার, হাকিমপাড়ায় ৪৪ হাজার এবং উখিয়া উপজেলার আশপাশের গ্রামগুলোয় ৫ হাজার জন বসবাস করছে। এছাড়া কক্সবাজার জেলার টেকনাফের শামলাপুর অস্থায়ী ক্যাম্পে ১৪ হাজার, টেকনাফ উপজেলার আশপাশের গ্রামে ৮ হাজার, নয়াপাড়া রেজিস্টার্ড ক্যাম্পে ১৫ হাজার, লেদা অস্থায়ী ক্যাম্পে ১৫ হাজার, উনচিপ্রাংয়ে ৩০ হাজার এবং কক্সবাজারের অন্যান্য স্থানে তিন হাজার মিয়ানমারের নাগরিক রোহিঙ্গারা বসবাস করছে।

কক্সবাজার জেলা ছাড়াও বান্দরবানের দুটি স্থানে ২০ হাজার রোহিঙ্গা বসবাস করছে। এর মধ্যে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির কোনারপাড়ায় (ঘুমঘুম) ১০ হাজার ও চাকডালায় ১০ হাজার রোহিঙ্গারা বসবাস করছে। এদিকে ১৯৯১- ৯২ সালে বাংলাদেশে আসা মিয়ানমার রোহিঙ্গা নাগরিকদের প্রত্যাবাসনের পর বাকি ৩৩ হাজার ৫৪২ জন নিবন্ধিত শরণার্থী কক্সবাজার জেলার উখিয়া উপজেলার কুতুপালং ও টেকনাফ উপজেলার নয়াপাড়া ক্যাম্পে বসবাস করছে।

এছাড়া ক্যাম্পের বাইরে অনেকে বসবাস করছে। এদিকে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গাদের স্রোত এখনও থামছে না। গেল শুক্রবারের পর গত কয়েক দিনে প্রায় ১০ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে এসেছে। সরকারের ঊর্ধ্বতন মহল মনে করছে, অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গাদের মোট সংখ্যা ১০ লাখ ছাড়িয়ে যেতে পারে।

পিএনএস/আনোয়ার




 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech