‘হুজুর মাথায় টুপি দেখতেছি, কিন্তু মাথায় হেলমেট পরেননি কেন?’

  

পিএনএস ডেস্ক: দুপুর পৌনে ১টার দিকে মানিক মিয়া এভিনিউয়ে যাচ্ছিল সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের গাড়িটি। হঠাৎ গাড়ি থেকে নেমে পড়েন মন্ত্রী। নেমে এক মোটরসাইকেল চালককে দাঁড় করিয়ে বলেন, এই হুজুর আপনাকে তো দেখে ঈমান আমনেওয়ালা মনে হচ্ছে। মাথায় টুপিও দেখতেছি, কিন্তু আপনি মোটরসাইকেল চালাচ্ছেন...মাথায় হেলমেট পরেননি কেন?

মন্ত্রীর প্রশ্নে যেন দিশেহারা মধ্যবয়সী মোটরসাইকেল চালক। উত্তরে বলেন, স্যার হেলমেট আছে তো! এমন উত্তরে হেসে ফেলেন মন্ত্রী। বলেন, আপনি মরলে আমার কি হবে! ক্ষতি যা হবার তো আপনার পরিবারের। হেলমেট আছে কিন্তু মাথায় দিবেন না এটা ঠিক নয়। মাথায় দিন। নিরাপদে চলাচল করুন।

বৃহস্পতিবার(২৪ মে) এভাবেই মানিকমিয়া এভিনিউতে হেলমেটবিহীন চালকদের আটকে প্রশ্ন করেন ও বিআরটিএ কর্তৃক সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

পরে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে ওবায়দুল কাদের বলেন, রমজান মাসে মানুষ যাতে আইন মানে সেজন্য অভিযান চলছে। অভিযানে নেমে দেখছি, নিয়ম লঙ্ঘন করা বেড়েছে বলেই মনে হচ্ছে। দুঃখের বিষয় হচ্ছে রাজনৈতিক দল ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরাই বেশি ট্রাফিক আইন লঙ্ঘন করছে।

তিনি বলেন, মোটরসাইকেলে সর্বোচ্চ দুইজন উঠতে পারার নিয়ম। দ্বিতীয়জনকেও হেলমেট পড়ার নিয়ম। কিন্তু অভিযানে দেখছি, কোনও কোনও চালকের হেলমেট থাকলেও দ্বিতীয় যাত্রীর হেলমেট নেই।

মোটরসাইকেলে তৃতীয় যাত্রী ওঠার কোনো সুযোগই নেই আইনে। অথচ সেটাও দেখতে হচ্ছে রাস্তায় এসে। আর এসব করছে বেশি রাজনৈতিক কর্মীরা। দুঃখের বিষয় সাধারণ মানুষ কিন্তু ট্রাফিক আইন মোটামুটি মেনে চলে। কিন্তু যখনই ধরি, তিনজন উঠছে, কারো হেলমেট নেই, শুনি পলিটিক্যাল। তারা রাজনৈতিক কর্মী। অথচ সাধারণর এই ধৃষ্টতা কমই দেখান। আইনের প্রতি অন্তত ভয়ে শ্রদ্ধা দেখান।

পিএনএস/আলআমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech