হিমালয় কি টপকাতে পারবেন সাবিনা-মৌসুমীরা?

  

পিএনএস ডেস্ক: লড়াইটা শুরু হয়েছিল ৬ দেশের। ইতিমধ্যে ছুটি হয়েছে ভুটান ও মালদ্বীপের। নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ এখন চার দলের টক্কর-বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল ও শ্রীলঙ্কা। চার দলই নিশ্চিত করেছে সেমিফাইনাল খেলা। সেমিফাইনালের আগে বাকি শুধু গ্রুপসেরা হওয়ার লড়াই। সে লড়াইয়ে শনিবার মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ-নেপাল। পরের দিন ভারত-শ্রীলঙ্কা।

নারীদের সাফ মানেই ভারতের রাজত্ব। আগের চার আসরের চারটিরই শিরোপা। বাংলাদেশ সর্বশেষ আসরের রানার্সআপ। ওই একবারই ফাইনাল খেলেছে লাল-সবুজ জার্সিধারীরা। এবার কী পারবে লড়াইয়ের শেষ মঞ্চে যেতে?

হিসাবটা পরিষ্কার। বাংলাদেশকে ফাইনালে যাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি করতে সেমিফাইনালে এড়াতে হবে ভারতকে। তাহলেই শিরোপা লড়াই পর্যন্ত টিকে থাকার সম্ভাবনা থাকবে বাংলাদেশের। তার আগে বাধা হিমালয়ের দেশের মেয়েরা। শনিবার বাংলাদেশ সময় বিকেলে সোয়া ৩ টায় নেপালের বিরাটনগরের শহীদ রঙ্গশালা শুরু হবে বাংলাদেশ ও নেপালের মধ্যে গ্রুপসেরা হওয়ার লড়াই।

মেয়েদের ফুটবলে নেপাল বাংলাদেশের শক্ত প্রতিপক্ষ। সাফে এখনো নেপালের কাছে হার এড়াতে পারেনি বাংলাদেশ। ২০১০ সালে কক্সবাজারে ও ২০১৪ সালে ইসলামাবাদে সেমিফাইনালে মুখোমুখি হয়ে হেরেছিল লাল-সবুজ জার্সিধারীরা। তবে গত নভেম্বরে মিয়ানমারে অলিম্পিক বাছাই ফুটবলে নেপালের সঙ্গে ড্র করেছিল বাংলাদেশ।

নেপাল প্রথম ম্যাচে ভুটানকে হারিয়েছে ৩-০ গোলে। বাংলাদেশ হারিয়েছে ২-০ গোলে। দুই দলের পয়েন্ট সমান হলেও গোলগড়ে এগিয়ে নেপাল। তাই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে বাংলাদেশের প্রয়োজন জয়, নেপালের ড্র। ঘরের মাঠে নেপাল ফেভারিট। বাংলাদেশ কী পারবে হিমালয়কন্যাদের হারিয়ে গ্রুপসেরা হতে?

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech