এবার ধর্ষণের দায়ে জেলে গেলেন প্রোটিয়া ক্রিকেটার

  

পিএনএস ডেস্ক : পেশাদার ক্রিকেট ছেড়ে ধর্ষকের ভূমিকায় হয়ে জেলে গেলেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রাক্তন ক্রিকেটার৷ ১০ বছর ধরে এক মহিলাকে কমপক্ষে ১৫০ বার ধর্ষণ করার দায়ে ১৮ বছরের জেল হল ডিঅন টালজার্ডের৷ ৪৭ বছরের প্রাক্তন এই পেসারকে অভিযুক্ত করে এই সাজা দেয় ম্যাঞ্চেস্টারের মিনশাল স্ট্রিট ক্রাউন কোর্ট৷

১৭ বছর আগে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ইংল্যান্ডে চলে আসেন ৬ ফুট ২ ইঞ্চির এই প্রোটিয়া পেশাদর৷ দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ডার টিমের হয়ে ১৯৯৩ থেকে ২০০০ পর্যন্ত সাত বছরে ২৫টি প্রথমশ্রেণির ম্যাচ খেলেছেন টালজার্ড৷ কিন্তু ক্রিকেটের পাঠ চুকিয়ে ধর্ষণে মাতেন তিনি৷ ইংল্যান্ডে চলে আসার পর ভয় দেখিয়ে এক মহিলাকে ১০ বছর (২০০০-২০১২) ধরে কমপক্ষে ১৫০ বার ধর্ষণ করেন এই ক্রিকেটার৷ শেষ পর্যন্ত সমস্ত ভয় উপেক্ষা করে ২০১৫ সালে পুলিশের কাছে টালজার্ডের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করেন ওই মহিলা৷

সরকারি পক্ষের আইনজীবী নিকোলাস ক্লার্ক আদালতকে জানান, অভিযুক্ত বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই সোমবার মদ্যপান করে ধর্ষণ করত৷ সরাসরি ওই মহিলা যৌন মিলনের প্রস্তাব দেওয়া হত৷ রাজি না-হলেও জোর করে অর্থাৎ ধর্ষণ করত৷

বিচারক অভিষুক্তকে ১৮ বছরের জেলের সাজা দিয়ে বলেন, তুমি ওই মহিলাকে ভয় দেখিয়ে বছরের পর বছর ধর্ষণ করেছ৷ টেক্ট মেসেজ করে শাসিয়েছ৷ তোমার প্রতি ও এতটাই ভীত ছিল যে, একাবর ও মিসিং হয়ে গিয়েছিল৷ ওকে খোঁজার জন্য পুলিশকে হেলিকপ্টার ব্যবহার করতে হয়েছিল৷ ওই মহিলা একবার আত্মহত্যাও করতে গিয়েছিল৷ এ সব কিছুই তোমার জন্য৷’

এই খবর প্রকাশিত হওয়ার পর স্তম্ভিত হয়ে যান সেই সব ক্রিকেটার, যাঁরা টালজার্ডের সঙ্গে ড্রেসিংরুম শেয়ার করেছেন৷ ক্লাব স্তর থেকে শুরু করে প্রায় ২০বছর ক্রিকেট খেলেছেন টালজার্ড৷

তবে নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছেন প্রাক্তন এই প্রোটিয়া ক্রিকেটার৷ আদালতে শুনানির সময় উপস্থিথ থাকা টালজার্ডের বান্ধবী বিচারককে বলেন, ‘ঘটনাটি সাজানো৷ টালজার্ডের প্রাক্তন স্ত্রী ওকে ফাঁসিয়েছে৷ যে টালজার্ডের তিন সন্তানকে দেখাশোনার অনুমতি আমাকে দেয়নি৷ এই ঘটনাটা ও মহিলায় ঘটিয়েছে, কারণ এটাতেই ও অভ্যস্ত৷ আমরা এর বিচার চাই৷ ও একজন সুন্দর ও পরিশ্রমী মানুষ, যে অন্যের জন্য সব কিছু করতে তৈরি৷’

পিএনএস/জে এ /মোহন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech