প্রধান শিক্ষক যখন অফিস সহকারি

  

পিএনএস,লালমনিরহাট : জেলার বহুল আলোচিত সাবেক ছিটমহল তিন বিঘা করিডোরের দহগ্রাম ইউনিয়নের দহগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়টি সরকারিকরণ করা হয়েছে নয় মাস আগে। সেই থেকে নয় জন শিক্ষক ও কর্মচারি নিয়মিত বেতন পাচ্ছেন সরকারি তহবিল থেকে।

কিন্তু বিদ্যালয়টি সরকারিকরণ হওয়ায় বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষকের কপাল পুড়েছে। প্রধান শিক্ষক মীর জুমলার শিক্ষাজীবনের প্রতিটি ডিগ্রি তৃতীয় বিভাগের হওয়ায় প্রধান শিক্ষক পদে তার বিল হয়নি। আর এ কারণে তাকে অফিস সহকারি/ উচ্চমান সহকারি পদে দেখানো হয়েছে।

স্কুলটি সরকারিকরণের চূড়ান্ত পর্যায়ে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা কোন উপায় না পেয়ে মীর জুমলাকে অফিস সহকারি পদে দেখিয়ে চূড়ান্ত রিপোর্ট দাখিল করেন। পরে মীর জুমলার বেতন কাঠামো হয় অফিস সহকারি মানের। সাবেক ওই প্রধান শিক্ষক বর্তমানে অফিস সহকারির বেতন নিচ্ছেন বলে জানান দহগ্রাম সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক তবিবর রহমান।


পিএনএস/মো: শ্যামল ইসলাম রাসেল


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech