বিধ্বস্ত ভেড়িবাঁধ উন্নয়নে প্রভাবশালী ঘের মালিকদের ষড়যন্ত্র

  

পিএনএস, পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি : সিডর ও আইলা বিধ্বস্ত পানি উন্নয়ন বোর্ডের বিধ্বস্ত ভেড়িবাঁধ উন্নয়নে প্রভাবশালী ঘের মালিকদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ উঠেছে। সরকার বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে ভেড়িবাঁধ উন্নয়ন প্রকল্প ফেজ-১ প্রাথমিক কাজ খুলনার পাইকগাছায় ১৬ ও ২৩ নং পোল্ডারে কর্তৃপক্ষ সার্ভেয়ার শুরু করেছে।

এদিকে উন্নয়ন প্রকল্প ব্যাহত করতে প্রভাবশালী লবণ পানির ঘের মালিকরা একাট্টা হয়ে ষড়যন্ত্র করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে পোল্ডারের ৯৭ ভাগ জনগণ উন্নয়ন প্রকল্পের সাথে একমত পোষণ করেছে। জনগণ প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত এ প্রকল্প বাস্তবায়নের সরকারের উর্ধতন মহলের জোর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, জলবায়ু পরিবর্তনজনিত পরিস্থিতির ক্ষয়-ক্ষতির মোকাবেলায় জান-মাল রক্ষার জন্য সিডর, আইলায় ব্যাপক প্রাণহানী, ক্ষয়-ক্ষতির অভিজ্ঞতা থেকে সরকার বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নে দেশের উপকূলীয় জেলা সমূহের মধ্যে পাইকগাছার ১৬ ও ২৩ নং পোল্ডারে প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য নেদারল্যান্ডের রয়েল হ্যাসকিন, ডেপকন, আইজিএম, ডিপিএম, ডিএইচআই সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সহায়তায় ৫ বছর মেয়াদের এ প্রকল্প এলাকায় পাউবো’র ভেড়িবাঁধে ৭০ ফুট তলা, ১৫ ফুট উচ্চতা ও ১৪ ফুট মাথা বিশিষ্ট মজবুদ ভেড়িবাঁধ তৈরী ও মৎস্যসহ খাদ্য উৎপাদন বাড়াতে পানি নিস্কাশনের জন্য পর্যাপ্ত স্লুইজ গেট নির্মাণের পরিকল্পনার কথা রয়েছে।

প্রকল্প ফিল্ড সুপারভাইজার মোঃ হুমায়ুন কবির ইতোমধ্যে প্রকল্প এলাকায় প্রাথমিকভাবে ওয়াপদার বাঁধের উপর ঘর-বাড়ি, বিভিন্ন অবকঠামো অপসারণের জন্য জরিপ সম্পন্ন করেছে। তিনি বাগেরহাটের সদর ও স্মরণখোলাসহ খুলনার দাকোপের চালনায় এ প্রকল্পের কাজ শেষ পর্যায়ে উল্লেখ করে ঐ এলাকায় দু’ধরণের চাষ পদ্ধতিতে ধান, মাছ দুটোই ভাল হচ্ছে বলে জানিয়েছেন।

এ দিকে এ প্রকল্পের বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে এলাকার প্রভাবশালী কিছু ঘের মালিক সম্প্রতি শিবসা ব্রিজের অপর প্রান্তে সোলাদানা ইউপির হরিখালী মৌজাস্থ পানি কমিটির অফিস কার্যালয়ে একত্রিত হয়ে এ প্রকল্প ঠেকানোর জন্য সভা করে স্থানীয়দের স্বাক্ষরসহ অর্থ সংগ্রহ করে আদালতে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছেন। ঐ মিটিংয়ের শেষ পর্যায়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এস এম এনামুল হক উপস্থিত হলেও তিনি মাছ চাষের পাশাপাশি ধান্য ফসল উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য অধিকাংশ মানুষ যেদিকে থাকবেন সেদিকে তিনি মতামত ব্যক্ত করেছেন। সূত্র জানিয়েছেন, চিংড়ি ঘের মালিক সাবেক ইউপি সদস্য মতিউর রহমান গাজী, আলহাজ্ব মজিদ সানার নেতৃত্বে ঘের মালিকরা একত্রিত হয়ে এ প্রকল্প ঠেকানোর জন্য বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করছেন বলে জানিয়েছেন।

সভায় উপস্থিত থাকার কথা জানিয়ে ঘের মালিক মতিয়ার গাজী বিশ্বব্যাংকের কার্যকলাপ সম্পর্কে আমরা কিছু ঘের মালিক এক জায়গায় হয়েছিলাম। কিন্তু প্রকল্প ঠেকানোর জন্য অর্থ সংগ্রহের বিষয়টি তিনি অস্বীকার করেন। এদিকে ঘের মালিকরা লাখ লাখ টাকা সংগ্রহ করে আদালতে যাওয়ার প্রস্তুতি ও সাধারণ মানুষদের ভুল বুঝিয়ে সাদা কাগজে স্বাক্ষরের কথা জানিয়ে সোলাদানা ইউপি সদস্য ঠাকুর দাশ সরদার, রাজেশ মন্ডল, আজিজুর রহমান লাভলু ও লস্করের আল-আমিন নার্সিং পয়েন্টের মালিক আজিজুর গাজী বলেন, ভাইরাসে ক্ষয়-ক্ষতিসহ প্রকৃতিই আজ লবণ পানির চিংড়ি ঘেরের বিরুদ্ধে গেছে। মানুষের নিরাপত্তায় ভেড়িবাঁধ ও ফসল উৎপাদনের জন্য বিশ্বব্যাংকের কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য সাধারণ মানুষের সাথে তারা জনমত গঠণে মাঠে নামবেন বলে জানিয়েছেন।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech