গাইবান্ধায় পানির চাপে সড়কে ধস এক শিশুর মৃত্যু, নিখোঁজ ১

  

পিএনএস,গাইবান্ধা :গাইবান্ধায় নদ-নদীগুলোর পানি অব্যাহতভাবে কমতে থাকার মুখেও রবিবার ঘাঘট নদীর পানির চাপে সুন্দরগঞ্জ উপজেলার বামনডাঙ্গা-নলডাঙ্গা সড়কে ধস নামে। সড়কের প্রায় ২০ ফুট অংশ ধসে গিয়ে সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। হুমকিতে রয়েছে নিকটবর্তী রেললাইন ও রেলসেতু। এদিকে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় বন্যার পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে এবং করতোয়া নদীতে গোসল করতে গিয়ে পানিতে ডুবে ৭ বছর বয়সী এক শিশু নিখোঁজ রয়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড জানায়, গত ২৪ ঘন্টায় তিস্তামুখঘাটে ব্রহ্মপুত্রের পানি ২৬ সেন্টিমিটার কমে বিপদসীমার ১৯ সেন্টিমিটার, ঘাঘট নদীর পানি শহর পয়েন্টে ৯ সেন্টিমিটার কমে বিপদসীমার ৪ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। করতোয়ার পানি ১ সেন্টিমিটার কমে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কাটাখালী পয়েন্টে বিপদসীমার ৭৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়।

ঘাঘট নদীর পানির চাপে সকালে বামনডাঙ্গা-নলডাঙ্গা সড়কের ২০ ফুট অংশ ধসে যায়। এতে সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। মারাত্মক হুমকিতে পড়ে লালমনিরহাট-ঢাকা রেললাইন ও রেলসেতু। তবে রেলওয়ের প্রকৌশল বিভাগ রেললাইন রক্ষায় কাজ শুরু করেছে। সুন্দরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম গোলাম কিবরিয়া বলেন, সড়কটির বেশ কিছু অংশ ভেঙে গেছে। ভাঙন ঠেকানো এবং সড়ক মেরামতের কাজ চলছে।

এদিকে গত শনিবার সন্ধ্যায় গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার শালমারা ইউনিয়নে বন্যার পানিতে ডুবে জাকির হোসেনের নয় বছর বয়সী মেয়ে আদুরী বেগম মৃত্যু হয়েছে। অন্যদিকে রবিবার দুপুর দুইটার দিকে উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়নের হাতিয়াদহ গ্রামে করতোয়া নদীতে তিন বান্ধবী গোসল করতে নেমে স্রোতের টানে ভেসে যায়। স্থানীয়রা দুজনকে উদ্ধার করতে পারলেও মিলা খাতুন (০৭) নামে শিশুটিকে উদ্ধার করতে পারেনি। ঘটনার দুইঘন্টা পর ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা উদ্ধার তৎপরতা শুরু করলেও এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তাকে উদ্ধার করা যায়নি।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল



 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech