ফুপাতো বোনকে ছুরিকাঘাত

  



পিএনএস ডেস্ক: বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ময়মনসিংহে ছুরিকাঘাতে গুরুত্বর আহত হয়েছে এক কলেজছাত্রী। সে বর্তমানে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

শুক্রবার বিকেলে ফারহানা আক্তার রিমা নামের ওই কলেজছাত্রীকে কৌশলে শহরের গাঙ্গিনারপাড় এলাকায় ডেকে এনে তাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। রিমা মুমিনুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজের অর্থনীতি বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্রী।

কাশেম নামে এক আত্মীয় (মামাতো ভাই) তাকে ছুরিকাঘাত করে বলে আহত ছাত্রী জানায়। কাশেম একটি গার্মেন্টেসে চাকরি করে। কাশেম রিমাকে কানের নিচে, হাতে এবং বুকে ছুরিকাঘাত করে বলে জানা গেছে।


আহত রিমার বাবা হোমিও চিকিৎসক হেলাল উদ্দিন ও স্বজনরা অভিযোগ করেন, রিমা পড়াশুনার জন্য ময়মনসিংহ শহরের গোলকি বাড়ি এলাকায় একটি ছাত্রী মেসে থাকতো। দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে তাদের আত্মীয় কাশেম উত্যক্ত করে আসছিলো।

বিভিন্ন সময় বিয়ের প্রস্তাবও দিতো। কিন্তু পরিবারের পক্ষ থেকে নাকচ করে দেয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে শুক্রবার বিকেলে ময়মনসিংহ শহরের গাঙ্গিনারপাড় এলাকায় ডেকে নিয়ে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়।

পরে বিষয়টি তার সহপাঠীদের মোবাইল ফোনে জানালে সন্ধ্যায় তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ফারহানা আক্তার রিমা জানান, তাদের আত্মীয় কাশেম দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিলো। এনিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই আতঙ্ক ছিলো সে। শুক্রবার বিকেলে কাশেম তাকে মোবাইল ফোনে জরুরি প্রয়োজনে ২শ টাকা ধার চেয়ে ডেকে আনে গাঙ্গিনারপাড় এলাকার একটি মার্কেটের দ্বিতীয় তলায়। সেখানে আকস্মিক সে বিয়ের প্রস্তাব দেয় এবং পাগলামি করতে থাকে। এতে রাজি না হলে ক্ষিপ্ত হয়ে তার ক্ষুর দিয়ে আঘাত করে পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে পুলিশ সুপার এসএ নেওয়াজী জানান, ওই শিক্ষার্থীকে ছুরিকাঘাতের খবর শুনে হাসপাতালে খোঁজখবর নিয়েছি। পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানান গেছে, এরা দুজনই পূর্ব পরিচিত। তাদের মধ্যে হয়তো সুসম্পর্ক ছিল।

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech