আলমডাঙ্গায় কথিত বন্দুকযুদ্ধে শীর্ষ মাদকব্যবসায়ী নিহত

  



পিএনএস, চুয়াডাঙ্গা এস এম শাফায়েত: চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গা রেল স্টেশনের পশ্চিম পাশের মাঠে মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে পুলিশের কথিত বন্দুকযুদ্ধে কামরুজ্জামান সাধু খাঁ (৪৫) নামের অপর এক শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন।

সোমবার দিবাগত রাত পৌনে ২টার দিকে আলমডাঙ্গা রেল স্টেশনের পশ্চিম পাশের মাঠে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল, ৩ রাউন্ড গুলি এবং ১ বস্তা ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে। বন্দুকযুদ্ধে আলমডাঙ্গা থানার ৪ পুলিশ সদস্য গুরুতর আহত হয়েছেন।

নিহত কামরুজ্জামান সাধু আলমডাঙ্গা উপজেলার হারদী থানাপাড়ার মৃত এমদাদুলের ছেলে। সে এতদাঞ্চলের শীর্ষ মাদকব্যবসায়ী; তার নামে আলমডাঙ্গা থানায় ১২টি মাদক মামলা রয়েছে।
পুলিশ জানায়, আলমডাঙ্গা স্টেশনের পশ্চিম দিকের একটি জঙ্গলের ভেতরে ৮/১০ জন মাদক বিক্রেতা অবস্থান করছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশের একটি দল ওই স্থানে অভিযান চালায়। রাত দেড়টার দিকে পুলিশের টহল দল ঘটনাস্থলে পৌঁছালে মাদক বিক্রেতারা পুলিশের ওপর গুলি চালায়। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। প্রায় আধা ঘণ্টাব্যাপী দুই পক্ষের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধ হয়। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় গুলিবিদ্ধ অবস্থায় কামরুজ্জামানের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এদিকে বন্দুকযুদ্ধের সময় আলমডাঙ্গা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জিয়াউর রহমান, সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আব্দুল হামিদ, কনস্টেবল মাসুদ রানা ও কনস্টেবল রাকিবুল হোসেন গুরুতর আহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে পুলিশ।

আলমডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু জিহাদ ফকরুল আলম খাঁন জানান, ঘটনাস্থল তল্লাশি করে একটি পিস্তল, তিন রাউন্ড গুলি ও এক বস্তা ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়েছে। কামরুজ্জামানের বিরুদ্ধে আলমডাঙ্গা থানায় মাদক পাচারসহ ১২টি মামলা রয়েছে। মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি। কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, নিহতের মাথায় ও বুকে একটি করে দু’টি গুলির চিহ্ন প্রাথমিক ভাবে নিশ্চিত হওয়া গেছে। এ থেকেই তার মৃত্যু হয়েছে।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech