সরাইলে স্কুল ছাত্রীকে মারধরের ঘটনায় দু'পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

  



পিএনএস, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা সরাইল উপজেলা সদর ইউনিয়ানে এক স্কুল ছাত্রীকে মারধরের ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু'পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এসময় ভাংচুর করা হয় দুইটি দোকান। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ১০ রাউন্ড ফাঁকাগুলি ছুড়ে।

সোমবার রাত ১০টার দিকে উপজেলা সদরের বিকাল বাজারের এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার মুগলটুলা এলাকার এক স্কল ছাএি (২৫) এর সাথে হাবলিপাড়ার হুমায়ূন মিয়ার ছেলে আরমানের সম্পর্ক ছিল। পরবর্তীতে তাদের সম্পর্ক নষ্ট হয়ে যায়। সোমবার সকালে স্কুল ছাএি তার দুই বান্ধবীকে নিয়ে বিকাল বাজারের হাজী মার্কেটে আসে বাজার করতে। এসময় আরমান স্কুল ছাএিকে দেখে কাছে এসে তার দেওয়া মোবাইল ফোন ও টাকা ফেরত চায়। এতে মাসুমা ক্ষিপ্ত হয়ে আরমানের সাথে খারাপ ব্যবহার করে। খারাপ ব্যবহারের কারণে আরমান মেয়েটিকে ৩/৪টি থাপ্পড় মারে।

এঘটনা দেখতে পেয়ে হাজী মার্কেটের দোকানদার তপু মেয়েটির পক্ষে প্রতিবাদ করে। তপু প্রতিবাদ করায় আরমান তার সহপাঠিদের নিয়ে তপুকে মারধর করে। তপুর দোকানে ভাংচুর করে চলে যায়। পুনরায় রাত ১০টার দিকে আরমান দলবল নিয়ে হাজী মার্কেটে হামলা করলে দোকানদারদের সাথে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। ভাংচুর করা হয় ২টি কাপড়ের দোকানে। আহত হয় ওই মার্কেটের দোকানদার বখতিয়ার ও সবুজ নামের দুই দোকানদার। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। পরে পুলিশ এসে ১০ রাউন্ড ফাঁকাগুলি করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মফিজ উদ্দিন ভূঁইয়া জানান, বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech