কচুয়ায় রাস্তা পাকাকরণ কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ

  

পিএনএস, আফাজ উদ্দিন মানিক (চাঁদপুর প্রতিনিধি) : চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার মনপুরা গ্রামের একটি কাঁচা রাস্তা পাকা করনের কাজে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

তথ্যমতে, মনপুরা গ্রামের একটি কাঁচা রাস্তা পাকা করনের কাজ শুরু হয় ২০১৫ সালে। সে কাঁচা রাস্তা খুঁড়ে খুঁড়ে ২০১৯ সালের মে মাসে পাকা কাজ শুরু হয়। গত মঙ্গলবার রাস্তাটি পাকা করনের ঢালাই দেওয়া হলেও বৃহস্পতিবার সকালে গ্রামবাসী এসে দেখেন পিচ ঢালাই রাস্তা কার্পেটের মত উঠে যাচ্ছে। এখন কাঁচা রাস্তা পাকা করনের দুই দিনে ফাঁকা হয়ে গেল। এ কাজের টেন্ডার নিয়েছিল ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান চাঁদপুর-৪আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ডঃ মোহাম্মদ শামছুল হক ভূঁইয়ার এপোলো কনস্ট্রাকশন । এই কাজটি ২০১৫ সালে টেন্ডার হওয়ার দীর্ঘ ৪বছর পর কাজটি শুরু হয় গত সপ্তাহে ।কাজটি প্রায় ১কোটি ১০লক্ষ টাকা বলে জানা গেছে ।এলাকাবাসী আজ দুপুরে মানব বন্ধন করেন ।

তবে বিষয়টি নিয়ে দ্বিমত পোষণ করেছেন কাজের দায়িত্বপ্রাপ্ত স্থানীয় ঠিকাদার মো. সুমন প্রধানীয়া। তিনি বলেন, এলাকার কিছু লোকজন হাত দিয়ে পিচ ঢালাই উঠিয়ে ফেলেছেন।

স্থানীয় বাসিন্দারা বলেন, কচুয়া-কাশিমপুর সড়কের মনপুরা গ্রামের ভিতরে ৪ কিলোমিটার রাস্তা পাকা করনের টেন্ডার হয় ২০১৫ সালে। শুরু থেকেই নানা অনিয়ম ও নিম্নমানের ইট সামগ্রী (উপকরণ) দিয়ে কাজ করে ঠিকাদার রাস্তা করে ফেলে রাখা হয়় প্রায় দুই বছর। এতে পথচারীরা চরম দুর্ভোগের শিকার হয়।

স্থানীয় অধিবাসী মোহাম্মদ সাকিব বলেন, মন্থর গতির এই কাজ ব্যবহৃত হয় ইট বালু পাথর- এগুলো সবই নিম্নমানের। রাস্তার দু’পাশের এজিন এর ক্ষেত্রে ১নম্বর ইট ব্যবহারের বদলে ব্যবহার করা হয় পিকেট,যা মাটি দিয়ে দাঁড় করিয়ে দেওয়া হয়।

তিনি আরো বলেন, পিচ ঢালাই দেয়ার আগে রাস্তা পাকা করনে বিটুমিন না দিয়ে পিচ ঢালাই দিয়ে যায় দায়িত্বপ্রাপ্ত ঠিকাদার। সড়কটির বিষয়ে বিস্তারিত জানতে একাধিকবার উপজেলা প্রকৌশলী সৈয়দ জাকির হোসেন এর মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হয়। প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত তার মুঠোফোনের সংযোগ দেওয়া সম্ভব হয়নি। তবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নীলিমা আফরোজ বলেন, বিষয়টি আমি জেনেছি। স্থানীয় প্রকৌশলীকে সরেজমিনে দেখে কাজ নিম্মমানের হলে কাজ বন্ধ করে দেয়ার নির্দেষ দিয়েছি।

যতদূর জানা গেছে, কচুয়া উপজেলার মনপুরা গ্রামের ভিতরে ৪ কিলোমিটার সড়কের প্রায় তিন কোটি টাকা ব্যয়ে ২০১৫-২০১৬ অর্থ বছরে বরাদ্দ দেয়া হয়।

এদিকে কচুয়ার মনপুরা গ্রামের নতুন নির্মানাধীর রাস্তার পিচ ঢালাই হাত দিয়ে উঠে যাওয়ার বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (ফেইছবুক) ভাইরালের ঘটনায় গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে কচুয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান শিশির ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং রাস্তা নির্মানের ( পাকাকরনের) বাস্তব চিত্র দেখেন ও এলাকাবাসীর সাথে কথা বলেন। তিনি বলেন, আমি প্রায় ১ কিলোমিটার রাস্তা ঘুরে দেখেছি। কাজ খুবই নিম্মমানের হওয়ায় পুনরায় এ কাজ করার জন্য কচুয়া উপজেলা প্রকৌশলীকে নিদের্শ দিয়েছি। এদিকে মনপুরা গ্রামে রাস্তা পাকাকরনে নিম্ম মানের কাজ হওয়ায় পূনরায় নতুন করে ভালোভাবে রাস্তা পাকাকরনের দাবী জানিয়েছেন, সচেতন এলাকাবাসী।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech