পাইকগাছায় তিন দিনের ব্যবধানে দু’প্রসুতির মৃত্যু

  

পিএনএস, পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি : খুলনার পাইকগাছায় শাপলা ক্লিনিকে তিন দিনের ব্যবধানে দু’প্রসুতি মায়ের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

জানা যায়, বুধবার (৯ অক্টোবর) রাত ১১ টায় গজালিয়ার আলমগীর ফকিরের স্ত্রী মারুফা খাতুন (২৯) নামে গৃহবধূ প্রসাব যন্ত্রণার কারনে শাপলা ক্লিনিকে ভর্তি হয়। রাত ১২ টার দিকে পাইকগাছা হাসপাতালের ডাঃ আব্দুর রব ও নীতিশ গোলদার তাকে সিজার করে রেখে যায়। পরবর্তীতে বৃহস্পতিবার তার শরীর থেকে রক্তক্ষরণ বন্ধ না হওয়ায় ডাক্তার ডেকে আনলে একই রোগীর আবারও অপারেশন করে জরায়ু ফেলে দেয়। এ সময় মারুফা খাতুন অসুস্থ হতে থাকলে ওই দিন সকাল ৯ টার দিকে খুলনার গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আইসিইউ তে প্রেরণ করে।

সেখানে শুক্রবার ভোররাতে তার মৃত্যু হয়। উল্লেখ্য গত মঙ্গলবার একই প্রতিষ্ঠানে গজালিয়ার মাসুম গাজীর স্ত্রীর নাছরিন আক্তার (২০) কে সিজার করলে তার পরের দিন একটি কন্যা সন্তান হয়।

পরবর্তীতে তার রক্তক্ষরণ বন্ধ না হওয়ায় তিনিও মারা যান। তিন দিনের ব্যবধানে দুই রোগীর মৃত্যু নিয়ে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। এলাকাবাসী দ্রুত এই মৃত্যুপুরী শাপলা ক্লিনিক বন্ধ সহ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করেছে। শাপলা ক্লিনিকের মালিক ক্লিনিক রেখে পালিয়েছে। ডাঃ আব্দুর রব জানান, রোগীর সিজার করেছি পরবর্তীতে রক্ত বন্ধ না হওয়ায় আরেকটি অপারেশন করতে হয়েছে। সে সুস্থ ছিল, পরে কিডনি ফেল করে খুলনা গাজী মেডিকেলে মারা গেছে।

পিএনএস/মো. শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech