আবর্জনার ভাগাড়ে শিবসা নদী

  

পিএনএস, পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি : খুলনার পাইকগাছা পৌরসভা ময়লা আবর্জনার ভাগাড় শিবসা নদী। প্রতিদিন ট্রাক ও ভ্যান গাড়ী করে মৃত প্রায় নদীতে ফেলা হচ্ছে পৌরসভার ময়লা আবর্জনা। পৌর সদরের পাশ দিয়ে বহমান এ নদী। বাজারে পাশে ফেলা ময়লা আবর্জনার বিষক্ত দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ ব্যবসায়ী সহ আগত সাধারন মানুষ। পৌর কর্তৃপক্ষ দেখেও না দেখার ভান করছে। মনে হচ্ছে, পৌরসভা ময়লা আবর্জনার স্তুপের নিচে চাপা পড়ে যাচ্ছে।

১৯৯৮ সালের ১লা ফেব্রুয়ারি জেলার একমাত্র প্রথম পৌরসভা পাইকগাছায় প্রতিষ্ঠিত হয়। সেই থেকে ধীরে ধীরে দ্বিতীয় ও পরবর্তীতে প্রথম শ্রেণিতে স্থান করে নিলেও বাস্তব চিত্র তৃতীয় রয়ে গেছে। নাগরিক সেবা নিয়ে পৌরবাসী এখন ক্ষুব্দ। এ নিয়ে পাইকগাছা নাগরিক অধিকার বাস্তবায়ন কমিটি একাধিকবার মানববন্ধনসহ পথ সভা করেছে।

পৌর সদর বাজারে দক্ষিণ পাশের্^ শিবসা নদীর পাড়ে গড়ে তোলা হয়েছে ময়লা আবর্জনার ভাগাড়। নদীর কোল ঘেষে রয়েছে কাঁচা বাজার, মুদি ব্যবসা, মাছ ও মাংস বাজার সহ অন্যান্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। পাশেই রয়েছে থানাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। কিন্তু দুঃখের বিষয় পৌরসভার পরিচ্ছন্নকর্মীরা বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে ময়লা আবর্জনা সংগ্রহ করে বাজার সংলগ্ন শিবসা নদীতে ফেলছে। গরু ছাগলের মল-মূত্র, হাঁস-মুরগীর আবর্জনা, মানুষের মলমূত্র সহ বিভিন্ন আবর্জনা ভ্যান অথবা ট্রাকে করে এনে নদীর তীরে আবর্জনা স্তুপ করা হচ্ছে। পাশে পৌরসভার বরাদ্দকৃত ইটের সলিং রাস্তা থাকলেও তা আবর্জনার নিচে ঢাকা পড়েছে। আবার বাজারে ব্যবসায়ীদের জেলা সদর থেকে ট্রলারযোগে আমদানী করা সকল মালামাল একই স্থান দিয়ে ওঠানামা করা হয়। অনেক সময় মালামাল ট্রলার থেকে নামিয়ে ময়লা আবর্জনা উপর রাখা হচ্ছে। সামান্য বৃষ্টি হলে ময়লা আবর্জনা ধূয়ে দূষিত দুর্গন্ধ পানি বাজার অভ্যন্তর প্লাবিত করছে। আর সে সময় ব্যবসায়ীসহ সকলকে বাজারে রাস্তায় বের হওয়া কষ্ঠ সাধ্য হয়ে পড়ে। আবার দক্ষিণা বাতাস এলে বিষক্ত দুর্গন্ধে মুখে কাপড় দিয়েও গন্ধ রোধ করা যায় না। ফলে নোংরা আবর্জনা আর দূষিত বায়ুতে পৌরবাসী স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে। পৌর কর্তৃপক্ষ অদ্যাবধি পর্যন্ত ময়লা আবর্জনা ফেলার কোনো নির্দিষ্ট স্থান তৈরী না করায় অপরিকল্পিতভাবে পৌর সদরকে দূষিত করে ফেলা হচ্ছে। এদিকে ময়লা আবর্জনায় শিবসা নদী ভরাট এর পাশাপাশি দূষিত হচ্ছে। আবার ময়লনা আবর্জনা ফেলার নির্দিষ্ট কোনো স্থান না থাকায় বাজারের কাঁকড়া ব্যবসায়ী, মৎস্য ব্যবসায়ীরা সহ বিভিন্ন ব্যবসায়ীরা তাদের প্রতিষ্ঠানের মরা কাঁকড়া, পঁচা মাছ সহ বিভিন্ন পচা দ্রব্যাদি একই স্থানে ফেলা হচ্ছে।

পৌর সদর পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখার দায়িত্বে নিয়োজিত বেতনভূক্ত পরিচ্ছন্নকর্মীরা খামখেয়ালীভাবে তাদের দায়িত্ব পালন করে চলেছে। পৌরকর্তৃপক্ষ সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কোনো মাথা ব্যাথা নেই। জনৈক পরিচ্ছন্নকর্মী জানান, আমরা পৌরসভা থেকে বেতন ভোগ করি। কর্তৃপক্ষ আমাদের যেখানে ময়লা আবর্জনা ফেলতে বলবেন সেখানেই ফেলব। নদীতে ফেলছি কোনোদিন নিষেধ করেনি।

জনৈক মাংস ব্যবসায়ী বলেন, খরিদদাররা নাকে রুমাল অথবা কাপড় বেঁধে এখানে আসেন। আমরা তো ব্যবসার স্বার্থে দুর্গন্ধ সহ্য করে নিয়েছি। বাজার ইজারাদারের সাথে যোগাযোগ করে পাওয়া যায়নি। এ প্রসঙ্গে পৌর মেয়র সেলিম জাহাঙ্গীর মন্তব্য করতে রাজী হয়নি।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech