নানার ধর্ষণে নাতনী অন্তঃসত্ত্বা!

  

পিএনএস ডেস্ক : শেরপুরের শ্রীবরদীতে ৬০ বছরের এক বৃদ্ধ নানা তেলপড়ার নামে নাতনীকে ধর্ষণে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার কাকিলাকুড়া ইউনিয়নের মলামারি পূর্বপাড়া গ্রামে। পুলিশ ধর্ষক বদর আলীকে (৬০) আটক করেছে। এ ব্যাপারে থানায় একটি মামলার প্রস্তুতি চলছে।

ভিকটিম ও তার মা মাজেদা বেগম জানান, ভিকটিম কাকিলাকুড়া বালিকা দাখিল মাদরাসায় অষ্টম শ্রেণিতে পড়ালেখা করে। ভিকটিমের নানার চাচাতো ভাই বদর আলী একই বাড়ির বাসিন্দা। বদর আলী ৩ ছেলে ২ মেয়ে। একই বাড়ির সুবাদে বদর আলী তাদের ঘরে যাতায়াত করে। প্রায় ৫/৬ মাস আগে ভিকটিমের সাথে তার প্রতিবেশী এক যুবকের সম্পর্ক চলছিল। এ সময় তার প্রেমিক তাকে বিয়ে করতে রাজী হয়নি।

এ নিয়ে তার নানা বদর আলী তাকে তার প্রেমিককে বিয়েতে রাজী করাতে তেলপড়া দেওয়ার কথা বলে কথা বলে তাকে তার গোয়াল ঘরে নিয়ে যায়। এ সময় তার নাকে মুখে তেলপড়া দিয়ে তাকে অচেতন করে ধর্ষণ করে। এভাবে কয়েকদিন ধর্ষণের পর বিষয়টি জানাজানির হলে হয়তো তার প্রেমিক তাকে বিয়ে করবে না এ ভয়ে সে ঘটনাটি গোপন রাখে। এতে ভিকটিম অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। পরে তার শারীরিক অবস্থার পরিবর্তন দেখে তার পরিবার তাকে ডাক্তারি পরীক্ষা করান। এতে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা রিপোর্ট পেলে ঘটনাটি জানাজানি হয়।

এ নিয়ে আজ মঙ্গলবার শালিস বৈঠক বসার আয়োজন করে ভিকটিমের পরিবার। এ নিয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য মিস্টার মিয়া জানান, তারা শালিসের কথা বলেছে। যেহেতু এটা শালিস যোগ্য না এ জন্য শালিসে যাইনি। এ ব্যাপারে শালিস বৈঠকে কেউ না আসায় ভিকটিমের পরিবারের অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ধর্ষক বদর আলীকে আটক করেছে। এ সময় ভিকটিমকে উদ্ধার করে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্যে জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ রুহুল আমিন তালুকদার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ ব্যাপারে থানায় একটি মামলার প্রক্রিয়া চলছে। ঘটনাটি নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন