মিরপুর ইংলিশ ভার্সন স্কুল এন্ড কলেজে শহীদ দিবস পালিত

  

পিএনএস : ভাষা সাহিত্য-সংস্কৃতির মাধ্যম, ইতিহাস-ঐতিহ্যের বাহন এবং শিল্পকর্ম ও অগ্রগতির ধারক। আমাদের এই প্রাণপ্রিয় মাতৃভাষা বাঙলাকে রাষ্ট্রভাষায় বাস্তবায়ন করতে গিয়ে যারা জীবন বাজি রেখে আন্দোলনে ঝাপিয়ে পড়েছিলেন এবং শহীদ হয়েছেন তাদেরকে আজ শুধু বাঙালি জাতি নয় সারা বিশ্বে যথাযোগ্য শ্রদ্ধায় স্মরণ করছে। যা রাষ্ট্র হিসেবে আমাদের জন্য অনেক বড় একটি পাওয়া। দেশের প্রতি ভাষা সৈনিক এবং শহীদদের যেমন ত্যাগ,তিতীক্ষা উৎসর্গ ছিল তা থেকে শিক্ষা গ্রহণ করে আগামীর বাংলাদেশ বিনির্মাণে সকলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করে যাবো এটাই হোক আমাদের আজকের আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের অঙ্গীকার। বৃহস্পতিবার রাজধানীর মিরপুর ইংলিশ ভার্সন স্কুল এন্ড কলেজে আন্তর্জাতিক মার্তৃভাষা দিবস উদযাপন উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন। এর আগে মিরপুর ইংলিশ ভার্সন স্কুল এন্ড কলেজের ক্যাম্পাস প্রাঙ্গনে স্থাপিত শহীদ মিনারে শিক্ষার্থী, অভিভাবক এবং স্থানীয়দের সমন্বয়ে পুষ্পস্তবক অর্পন করা হয়।

আলোচনা সভায় মিরপুর ইংলিশ ভার্সন স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ ইয়াহিয়া খান রিজনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের পরিচালক মো.কামাল হোসেন বলেন, সিনিয়র তথ্য অফিসার (বিসিএস তথ্য ক্যাডার) ও তথ্যমন্ত্রীর জনসংযোগ কর্মকর্তা তরুণ কবি মীর আকরাম উদ্দীন আহম্মদ, বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের কর্মকর্তা সেফায়েত আরেফিন, মিরপুর ইংলিশ ভার্সন স্কুল এন্ড কলেজের উপাধ্যক্ষ মফিজুর রহমান খান নান্নু প্রমুখ।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, ১৯৫২ সালের একুশে ফেব্রুয়ারিতে রাষ্ট্রভাষা ‘বাংলা’ দাবিতে রাস্তায় নেমে আসে লাখো মানুষ। জারি হয় ১৪৪ ধারা, ভেঙে ফেলা হয় পাকিস্তানি শোষকের শৃঙ্খল। রক্তে ভেসে যায় রাজপথ। গুলিতে বিদীর্ণ হয় বুক। শহীদ হন রফিক, শফিক, সালাম, বরকত, জব্বারসহ নাম না জানা আরো অনেকে। বাংলা পায় রাষ্ট্রভাষার মর্যাদা। এরই ধারাবাহিকতায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে একাত্তরে জন্ম নেয় স্বাধীন ও সার্বভৌম বাংলাদেশ। মাতৃভাষার জন্য প্রাণ উৎসর্গের এই দিনটিকে ইউনেস্কো স্বীকৃতি দেয় ১৯৯৯ সালে। ফলে অমর একুশে এখন শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস।

আলোচনা সভা শেষে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে মিরপুর ইংলিশ ভার্সন স্কুল এন্ড কলেজ আয়োজিত মোট ১২টি গ্রুপে শিক্ষার্থীদের হাতের লেখা এবং কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech