এই বর্ষায় রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর ৫ পরামর্শ

  

পিএনএস ডেস্ক : বিশ্বজুড়ে চলছে করোনাভাইরাস মহামারি। করোনা আতঙ্কের মধ্যেই এসেছে বর্ষা। এই মৌসুমে মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কিছুটা কমে যায়। এর ফলে বিভিন্ন ধরনের ভাইরাসজনিত অসুস্থতা দেখা দেয়। করোনাসহ এসব মৌসুমী অসুস্থতা থেকে মুক্তির সবচেয়ে ভালো উপায় হলো রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো। শরীরকে ভেতর থেকে শক্তিশালী করতে তুলতে জীবনযাপনে কিছু পরিবর্তন আনতে হবে। চলুন বর্ষায় কীভাবে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াবেন তার পাঁচটি উপায় জেনে নিই-

শুকনো ফল


প্রতিদিন সকাল শুরু করুন এক মুঠো ভিজানো কাঠ বাদাম ও কিসমিস দিয়ে। সারা রাত কাঠ বাদাম ভিজিয়ে রাখলে ভিটামিনের গুণ বৃদ্ধি পায় এবং হজম শক্তি বৃদ্ধি পায়। দিনের যেকোনো সময়ে খিদে পেলে তিন-চারটে কাজুবাদাম অথবা এক মুঠো চিনাবাদামও খেতে পারেন।

রাগি বা গমের রুটি

সাধারণত প্রত্যেক ভারতীয় বাড়িতেই আটার রুটি খাওয়া হয়। গমের আটার পরিবর্তে রাগি শস্যের আটাও খেতে পারেন। এতে প্রচুর পরিমাণে আয়রন থাকে যা শরীরে হিমোগ্লোবিন বাড়াতে সাহায্য করে। রাগির তৈরি লাড্ডুও খেতে পারেন, তবে সেটি ঘিতে রান্না করলে আরও বেশি পুষ্টিকর হবে।

আচার বা মোরোব্বা

দুপুর বা রাতের খাবারের সঙ্গে অল্প পরিমাণে আচার বা মোরোব্বা খেতে পারেন। লেবু, আমলকি বা আমের আচার অথবা মোরোব্বা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। তবে দোকান থেকে কেনা আচার এড়িয়ে চলা উচিত। কারণ এতে প্রিজারভেটিভ থাকে। চেষ্টা করুন বাড়িতেই আচার বানাতে। পেটের স্বাস্থ্য ভালো রাখার পাশাপাশি শরীরে ভিটামিন বি ১২ এর মাত্রা বাড়ায় আচার।

ভাত

রোগা হওয়ার হুজুগে অনেকেই ডায়েট থেকে ভাত বাদ দিয়ে দেন। কিন্তু একটা কথা সব সময়ে মনে রাখবেন। শরীরে ভাতের উপকারীতা কখনও অস্বীকার করা যায় না। ভাতে প্রচুর পরিমাণে ব্রানচড চেইন অ্যামাইনো অ্যাসিড রয়েছে যা শরীরের পক্ষে খুবই ভালো। এই অ্যাসিড শরীরের স্ট্রেস কমাতে সাহায্য করে। পরিমাণমতো ভাত খাওয়া উচিত।

জায়ফল দেওয়া হলুদ দুধ

এক চিমটি জায়ফলগুঁড়া মেশানো হলুদ দুধ শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এতে রয়েছে অ্যান্টি-ইনফ্লামেটরি উপাদান। ভালো ঘুমের ক্ষেত্রেও এটি উপকারী।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন