লন্ডনে বাংলাদেশ ডেপুটি হাইকমিশনার তালহাকে প্রত্যাহার - জাতীয় - Premier News Syndicate Limited (PNS)

লন্ডনে বাংলাদেশ ডেপুটি হাইকমিশনার তালহাকে প্রত্যাহার

  


পিএনএস ডেস্ক: গত ৭ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলার রায়কে কেন্দ্র করে লন্ডনে বাংলাদেশ হাইকমিশনে হামলা, ভাংচুর ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি ভাংচুরের ঘটনায় একটি উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে সরকার।

একইসঙ্গে যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশ হাইকমিশনের ডেপুটি হাই কমিশনার খন্দকার এম তালহাকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। তাকে আগামী ৭ মের মধ্যে দায়িত্ব ছেড়ে ঢাকায় ফিরে আসতে এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যোগ দিতে বলা হয়েছে।

ডেপুটি হাইকমিশনার খন্দকার তালহা বিএনপি নেতাকর্মীদের হামলার দিন ৭ ফেব্রুয়ারি ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনারের দায়িত্বে ছিলেন। হাইকমিশনার নাজমুল কাউনাইন তার পরিচয়পত্র প্রদানের জন্য তখন অায়ারল্যান্ডে অবস্থান করছিলেন। ওই দিন স্থানীয় সময় বিকেলে বিএনপির শতাধিক নেতাকর্মী স্মারক লিপি প্রদানের নামে হাইকমিশনে যায়। তারা খালেদা জিয়ার সাজার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। এক পর্যায়ে কয়েকজন স্মারক লিপি প্রদানের নামে হাইকমিশনে প্রবেশ করে হামলা চালায়। এরপর বঙ্গবন্ধুর ছবি খুলে অবমাননা ও ভাংচুর করে। বাংলাদেশ সরকার এ ঘটনায় ব্রিটিশ সরকারকে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আহ্বান জানায়। পুলিশ একজনকে আটক করে। এদিকে প্রাথমিক তদন্তে হাইকমিশনের কর্মকর্তাদের অবহেলা ছিল বলে প্রতীয়মান হয়। এর প্রেক্ষিতে ডেপুটি হাইকমিশনার খন্দকার তালহাকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। পাশাপাশি পুরো ঘটনা খতিয়ে দেখতে উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

একটি সূত্র জানায়, নিউইয়র্কে জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বিন মোমেনকে তদন্ত কমিটির প্রধান করা হয়েছে। কমিটিতে প্রধানমন্ত্রীর দফতর, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধিরা রয়েছেন। মের শুরুতে তদন্ত কার্যক্রম শুরু হবে।

এর আগে লন্ডনের বাংলাদেশ হাইকমিশনে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতি মামলার রায়কে কেন্দ্র করে যুক্তরাজ্য বিএনপির বিক্ষোভে এ হামলা চালানো হয়। স্থানীয় সময় বুধবার বিকাল ৫টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এসময় পুলিশ যুক্তরাজ্য স্বেচ্ছাসেবক দলের এক নেতাকে আটক করেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, স্থানীয় সময় বুধবার বেলা ২টার দিকে বিএনপির শতাধিক নেতাকর্মী ব্যানার-ফেস্টুন নিয়ে দূতাবাস চত্বরে জড়ো হয়। এরপর এখান থেকে দূতাবাসে হামলা চালায় তারা। এসময় হাইকমিশনের আসবাবপত্রসহ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি ভাঙচুর করে বিএনপির নেতাকর্মীরা।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী লন্ডন স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. সোহাগ মিয়া স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ৯টায় বলেন, ‘বেলা ২টা (লন্ডন সময়) থেকে হাইকমিশনের সামনে যুক্তরাজ্য বিএনপির নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ পালন করছিলেন। বিকাল ৫টার দিকে শান্তিপূর্ণভাবে স্মারকলিপি দিতে গেলে হাইকমিশনের কমর্কতারা তা নিতে অস্বীকার করেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে কিছু নেতাকর্মী হাইকমিশন ভবনে প্রবেশ করে ভাঙচুর করেন।’

ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ যুক্তরাজ্য স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি নাসির আহমদ শাহিনকে আটক করে বলেও জানিয়েছেন সোহাগ মিয়া। তিনি আরও জানান, নাসির আহমদ শাহিনকে জামিনে ছাড়িয়ে আনার জন্য বিএনপিপন্থী একাধিক আইনজীবী পুলিশ স্টেশনে গেছেন। লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশের একজন মুখপাত্র জানান, আটককৃত ব্যক্তিকে ওয়ান্ডওয়ার্থ পুলিশ স্টেশনে নেওয়া হয়েছে।

অন্য এক সূত্র জানায়, হামলার সময় বিএনপির নেতাকর্মীদের হাতে হাইকমিশনের একজন কর্মী লাঞ্ছিত হয়েছেন।

এদিকে লন্ডন সময় রাত ৯টার দিকে বাংলাদেশ হাইকমিশন এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানিয়েছে, বিএনপি নেতাকর্মীরা স্মারকলিপি দেওয়ার নামে জোর করে হাইকমিশনে প্রবেশ করে। এরপর তারা হাইকমিশনের কর্মীদের ওপর হামলা চালায় এবং হাইকমিশনের আসবাবপত্রসহ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি ভাঙচুর করে। এ সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে হাইকমিশন কর্মকর্তা এ কে এম কামাল লোহানীর সই রয়েছে।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech