কুয়াশার দাপটে আজ যেন ইতিহাস

  


পিএনএস ডেস্ক: শীত সকালে কুয়াশার এমন দাপট খুব কমই মেলে। ঘর থেকে বের হয়ে নিজের উপস্থিতি নিয়েই যেন সন্দেহ জাগে। বিস্তৃত ঘন সাদা চাদর সরিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে কর্মজীবী শ্রমজীবী মানুষ। মায়ের সঙ্গে স্কুলগামী শিশুর চোখেও বিস্ময়। হাতের কনুইয়ের ওপরটা স্বজনের হাতে ধরা- অবাক হয়ে তাকিয়ে দেখছে চারদিক। যাকে পাচ্ছে অক্টোপাসের মতো জাপটে ধরছে সাদা সাদা এই জিনিসটি।

কুয়াশার এমন দৃশ্য খোদ রাজধানীতেই। ঢাকার চারপাশের প্রকৃতিসহ দেশের অন্যান্য জেলাগুলোতে তো বটেই। মৃদু শৈত্যপ্রবাহের পাশাপাশি ঘন কুয়াশায় ঘরবন্দি হয়ে পড়েছে মানুষ। সড়কে গাড়ি চলছে হেডলাইট জ্বালিয়ে। তাও খুব ধীরে, হাঁটার গতিতে। চারপাশের সবকিছু ঢাকা পড়েছে সাদা পর্দায়। অন্যদিকে শীতের তীব্রতা কাঁপন ধরিয়েছে মানুষের হাড়ে।

রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে কুয়াশার এই শাসন নতুন নয়। কয়েকদিন ধরেই দেখা যাচ্ছে এমন দৃশ্য। কিন্তু আজ যেন আগের রেকর্ডকে ছাড়িয়ে গেছে। গাড়ি চলাচলে তো বটেই, পায়ে হেঁটেও পথ চলতে হচ্ছে সাবধানে। কেননা, হারাতে পারে পথ, রাস্তার আশপাশে পড়ে হুমড়ি খেয়ে পড়ার সম্ভাবনাও কম নয়।

সকাল সাড়ে ৯টায় এ প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত সূর্যের দেখা পাওয়ার কোনো লক্ষণই দেখা যায়নি। এর মধ্যে থেমে থেমে নগরবাসীকে ছুঁয়ে যায় কুয়াশায় ঘেরা ঘন বাতাস। বায়ু দূষণের কারণে বিপর্যস্ত ঢাকা নগরবাসীরা অনেকেই কুয়াশার কারণে বাড়তি শ্বাসকষ্টের মুখোমুখি হচ্ছেন।

এদিকে, কুয়াশার মারাত্মক প্রভাব পড়েছে জনজীবনে। দেশের বিভিন্ন নদ-নদী পারের ফেরি বন্ধ রাখতে হচ্ছে ঘণ্টার পর ঘণ্টা। নৌযানগুলো ঠিকমতো চলতে পারছে না। অসুবিধার মুখে পড়েছে বিমান ওঠানামাও।

গতকাল ভোর ৫টা থেকে সকাল ১০টা পর্যন্ত শাহজালাল বিমানবন্দরে উড়োজাহাজ উড্ডয়ন ও অবতরণ বন্ধ থাকে। সকাল ১০টার পর উড়োজাহাজ উঠানামা শুরু হলেও বিমান চলাচল ব্যাহত হওয়ায় সময়মতো গন্তব্যে পৌঁছতে না পেরে বিমানবন্দরে দুর্ভোগে পড়ে যাত্রীরা।

শাহজালালে গতকাল অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক উভ০ংয় ধরনের ফ্লাইটই ডিলে হয়। নভো এয়ারের সকাল ৯টা ৫০ মিনিটের ভিকিউ ৯২৫ ফ্লাইটটি কক্সবাজারের উদ্দেশে ছেড়ে যায় দুপুর ১২টায়। এ ছাড়া ইউএস-বাংলা, বিমান ও রিজেন্টের ফ্লাইটগুলোও তিন থেকে পাঁচ ঘণ্টা বিলম্বে ছেড়ে যায়। আন্তর্জাতিক রুটেও সকালের ফ্লাইটগুলো ছেড়ে যেতে বিলম্ব হয়।

বিমানবন্দর সূত্র জানায়, রানওয়ের ভিজিবিলিটি কমপক্ষে ৬০০ মিটার থাকলে উড়োজাহাজ উঠানামা করতে পারে। কিন্তু কয়েক দিন ধরে কুয়াশার দাপটে ভিজিবিলিটির মাত্রা ৫০ মিটারের নিচে নেমে আসছে।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, দেশের উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন জেলাসহ সারা দেশেই শীতের তীব্রতা আগামী ২৪ ঘণ্টায় প্রায় একই থাকবে। একই সঙ্গে যশোর, কুষ্টিয়া অঞ্চলসহ রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের ওপর দিয়ে বয়ে চলা শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে। কোথাও কোথাও হালকা কুয়াশা পড়তে পারে। এ ছাড়া সর্বত্র আকাশ অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলাসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন