লজ্জার হারের অপেক্ষায় বাংলাদেশ

  

পিএনএস ডেস্ক: বাংলাদেশ এবং আফগানিস্তানের মধ্যকার একমাত্র টেস্টে স্বাগতিকদের ৩৯৮ রানের জয়ের লক্ষ্য ছুঁড়ে দিয়েছে আফগানরা। চতুর্থ দিন শেষে বাংলাদেশ ৪৪.২ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে তুলেছে ১৩৫ রান। উইকেটে আছেন দলপতি সাকিব আল হাসান (৩৯) এবং সৌম্য সরকার (০)। শেষ দিন বাংলাদেশের জয়ের জন্য দরকার আরও ২৬২ রান, আফগানদের দরকার চারটি উইকেট। আগামীকাল (ম্যাচের শেষ দিন) সকাল সাড়ে ৯টায় শুরু হবে খেলা।

চট্টগ্রাম টেস্টে বড় হারের শঙ্কায় টাইগাররা। এমনিতেই ৩৯৮ রানের লক্ষ্য তাড়া করে কখনই জেতেনি বাংলাদেশ। চতুর্থ ইনিংসে সবচেয়ে বেশি রান তাড়ার রেকর্ড ২১৫। জিততে হলে তাই ইতিহাস গড়তে হবে তাদের। বাকি একদিনে করে দেখাতে হবে অবিশ্বাস্য, অভাবনীয়, অবর্ণনীয় কিছু। কিন্তু বাংলাদেশের ভংগুর ব্যাটিংয়ে সেই আশা দেখা অর্থহীন। কারণ এখন পর্যন্ত ৬ উইকেটে ১৩৫ রান করেছে বাংলাদেশ। হয়তো আজকের মধ্যেই খেলার মীমাংসা হয়ে যেত। কিন্তু বাংলাদেশকে বাঁচিয়েছে বৃষ্টি। যে কারণে চতুর্থ দিনের খেলা বেশ আগেভাগেই শেষ হয়।

বাংলাদেশ এই টেস্টে বাঁচতে পারে একমাত্র বৃষ্টির কল্যাণে। কারণ, আগামীকাল সোমবারও থেমে থেমে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। সাকিব আল হাসান ৩৮ রান নিয়ে ব্যাটিংয়ে আছেন। সঙ্গে থাকা সৌম্য সরকার এখনো রানের খাতা খুলতে পারেননি। প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসেও আফগান স্পিনের সামনে অসহায় বাংলাদেশ। পাহাড় সমান লক্ষ্য সামনে রেখে ব্যাট করতে নেমে একের পর এক উইকেট হারিয়ে বিপাকে স্বাগতিকরা। ফিরে গেছেন লিটন দাস, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, মুশফিকুর রহিম, মুমিনুল হক, সাদমান ইসলাম ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

৩৯৮ রানের লক্ষ্যে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে পরিবর্তন এনেছে বাংলাদেশ। বাঁহাতি সাদমান ইসলামের সঙ্গে ব্যাটিংয়ে নেমেছেন ডানহাতি লিটন দাস। প্রথম ইনিংসে লিটন ব্যাট করেছিলেন তিন নম্বরে। ওপেনিংয়ে নেমেছিলেন সৌম্য। কিন্তু ওপেনিংয়ে সুবিধা করতে পারেনি লিটন। বিশাল লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ৩০ রানেই লিটনকে হারালো বাংলাদেশ। ৩০ বলে ৯ রান করে জহির খানের শিকার হল লিটন। ওপেনিংয়ের পরিবর্তনের মতো ব্যাটিং অর্ডারের তিন নম্বরেও চমক উপহার দিল বাংলাদেশ। পাঠানো হলো মোসাদ্দেক হোসেনকে। কিন্তু ১২ রান তুলেই নিজের উইকেট বিলিয়ে দিয়েছেন তিন নম্বরে নামা মোসাদ্দেক। এরপর চার নম্বরে নেমেছেন বাংলাদেশের নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। কিন্তু তিনিও বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। মাত্র ২৩ রানেই রশিদ খানের শিকার হয়ে ফিরেছেন তিনি।

এরপর রশিদ খানের এলবির ফাঁদে সাজঘরে ফেরেন মুমিনুল হক(৩)। ৩৭তম ওভারে মোহাম্মদ নবীর বলে ওপেনার সাদমান ইসলাম আউট হন। এলবির ফাঁদে বিদায়ের আগে বাঁহাতি এই ওপেনার ১১৪ বলে চারটি চারের সাহায্যে করেন ৪১ রান। দলীয় ১০৬ রানের মাথায় বাংলাদেশ পঞ্চম উইকেট হারায়। রশিদ খানের তৃতীয় শিকারে বাংলাদেশ ষষ্ঠ উইকেট হারায়। দলীয় ১২৫ রানের মাথায় ফেরেন মাহমুদউল্লাহ (২১ বলে ৭)।

চট্টগ্রামে বাংলাদেশ এবং আফগানিস্তানের মধ্যকার একমাত্র টেস্টে স্বাগতিকদের ৩৯৮ রানের জয়ের লক্ষ্য ছুঁড়ে দিয়েছে আফগানরা। বৃষ্টি বিঘ্নিত চতুর্থ দিনের খেলা শুরু হয় নির্ধারিত সময়ের ২ ঘন্টা ১০ মিনিট পর। চতুর্থ দিনে ২৩৭ রান নিয়ে খেলতে নেমে মাত্র ২৩ রান যোগ করে অল আউট হয় আফগানরা।

আলোক স্বল্পতার কারণে কিছুক্ষণ আগে শেষ হয় তৃতীয় দিনের খেলা। ফলে চতুর্থ দিন ২০ মিনিট আগে তা শুরু হওয়ার কথা ছিল। তবে বৃষ্টির কারণে নির্ধারিত সময়ে খেলা গড়ানো সম্ভব হয়নি। অবশেষে ১১টা ৫০ মিনিটে শুরু হয়। আগের দিন আকাশ মেঘাচ্ছন্ন থাকায় আলোক স্বল্পতার কারনে ৪৫ মিনিট আগেই শেষ হওয়ায় চট্রগ্রাম টেস্টের তৃতীয় দিন।

৮ উইকেটে ২৩৭ রান নিয়ে নতুন দিনের খেলা শুরু করে আফগানিস্তান। আফসার জাজাই ৩৪ এবং শূন্য রান নিয়ে ইয়ামিন আহমেদজাই ব্যাটিংয়ে নামেন। তবে দলীয় স্কোর বোর্ডে খুব বেশি রান যোগ করতে পারেননি আফগানরা। ২৬০ রানেই গুটিয়ে যান তারা। এ রানে রানআউটে কাটা পড়েন ইয়ামিন। পরক্ষণেই মিরাজের শিকার হন জহির। তিনি কোনো রান যোগ করতে পারেননি। আফসার ৪৮ রানে অপরাজিত থাকেন।

ফলে ৩৯৭ রানের লিড পায় সফরকারীরা। এতে একমাত্র টেস্টের নাটাই হাতে নেন তারা। নিজেদের প্রথম ইনিংসে স্বপ্নের মতো ব্যাটিং করে আফগানিস্তান। রহমত শাহর ইতিহাস গড়া সেঞ্চুরিতে তোলে দলীয় সর্বোচ্চ ৩৪২ রান। জবাবে প্রথম ইনিংসে হতশ্রী পারফরম্যান্স প্রদর্শন করে বাংলাদেশ। ২০৫ রানে গুটিয়ে যায় তারা।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech